বাকিদের সাথে মাশরাফির পার্থক্য তুলে ধরলেন হাবিবুল

মাশরাফি বিন মর্তুজা হাবিবুল বাশার

বয়স ৩৬ পেরিয়েছে, টেস্ট ক্রিকেট থেকে অঘোষিত অবসর ১০ বছরের বেশি সময়। ২০১৭ সালে আচমকা ঘোষণা দিয়ে বসেন টি-টোয়েন্টিও আর খেলবেননা, অবশ্য তার ওই সিদ্ধান্তের পেছনের রহস্য আজও উন্মোচিত হয়নি। নিয়মিত খেলেন ওয়ানডে ফরম্যাটেই, কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপের আগেই পুরোদস্তুর রাজনীতিতে জড়ানোর পর অনেকেই মাশরাফির ক্যারিয়ারের এপিটাফ লিখে ফেলেছে।

অনেকে ধরেই নিয়েছিল ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলেই বুঝি অবসরে চলে যাবেন বাংলাদেশের সফল এই অধিনায়ক। বিশ্বকাপের যাচ্ছেতাই পারফরম্যান্সের পরও সেরকম সিদ্ধান্ত নেননি বরং অধিনায়ক হয়ে যেতে চেয়েছেন লঙ্কা সফরেও। দল দেশ ছাড়ার একদিন আগেই চোটে পড়ে মাশরাফি ছিটকে যান শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে স্কোয়াড থেকে। এরপর সূচী অনুযায়ী ছিলনা বাংলাদেশের কোন ওয়ানডে ম্যাচ, নিকট ভবিষ্যতেও নেই।

ফলে ক্রিকেটার মাশরাফি যেন আড়ালেই পড়ে গেলেন, তবে নীরবেই নিজের ক্রিকেট খেলার বাসনা পুষে রাখেন। বিপিএল সামনে রেখে ঠিক সূর্য ওঠার পরই মিরপুর একাডেমি মাঠে নিভৃতে চালিয়ে গেছেন অনুশীলন, লোকারণ্যে ভরে ওঠার আগেই নিতেন বিদায়। ফলে মাশরাফি যে এখনো খেলার জন্য মুখিয়ে আছেন, ২২ গজে ফিরতে মরিয়া অজানাই ছিল অনেকের। সম্প্রতি বিষয়টা উঠে আসে গণমাধ্যমে, ইতোমধ্যে অনুশীলনে পেয়েছেন চোটও।

চোট কাটিয়ে আজই (৩০ নভেম্বর) বল হাতে নেন মাশরাফি, ঢাকা প্লাটুন কোচ সালাউদ্দিনের অধীনে নিজেকে ঝালিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করেন। প্লাটুন সতীর্থ তামিমকে নেটে করেন বলও। মাশরাফি যেন বুঝিয়ে দিতে চাচ্ছেন ক্রিকেট খেলতে, মাঠে ফিরতে কতটা উদগ্রীব তিনি। তার এই আগ্রহ মুগ্ধ করেছে জাতীয় দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনকে।

মাশরাফির খেলা আগ্রহ মরে যায়নি উল্লেখ করে হাবিবুল আজ (৩০ নভেম্বর) সাংবাদিকদের বলেন, ‘মাশরাফি কিন্তু অনেকদিন ধরে অনুশীলন করছে; কেউ জানে না। ফাঁকে ফাঁকে চুপি চুপি করে যাচ্ছে। মাশরাফির বোলিংয়ে অভিজ্ঞতা বলেন, সামর্থ্য বলেন এটা তো কখনো কমেনি। কখনও কমবেও না। ওর ফিটনেসটা ইস্যু। ফিটনেস নিয়ে ও কাজ করছে। আমি কয়েকদিন আগে দেখলাম ওজনটাও কমিয়ে ফেলেছে। দেখেই বুঝা যায় সে সিরিয়াস। আমি শিওর যে এই বিপিএলটা ও খুব ভালো খেলবে। কারণ ওর খেলার আগ্রহটা এখনো মরে যায়নি।’

মাশরাফির সাথে বাকিদের পার্থক্য তুলে ধক্তে এই নির্বাচক আরও যোগ করেন, ‘অনেকেই অনেক কথা বলে আমি মনে করে সে এখনও ক্রিকেট খেলতে চায় এবং ও যখন খেলে সেরাটাই খেলতে চায়। এটাই হল মাশরাফির সাথে বাকিদের পার্থক্য। ওকে যে দল নিয়েছে আমি মনে করি এটা ‍গুড জব। বিপিএল ও ভালোই খেলবে। যেটা আমাদের জন্য খুব ভালো খবর। বিপিএলের পরপরই হয়ত আমাদের সিরিজগুলো শুরু হয়ে যাবে তখন সুস্থ ও তৈরি মাশরাফিকে আমরা পাব।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

তামিম-মাশরাফিকে নিয়ে ভাবছেন না কোচ সালাউদ্দিন

Read Next

ইনিংস ঘোষণা করা নিয়ে যা বললেন ওয়ার্নার

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
9
Share