টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতির পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে বিসিবি

বাংলাদেশ টেস্ট নাজমুল হাসান পাপন

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের বিপর্যস্ত হওয়ার চিত্র সামনে এলেই প্রশ্ন ওঠে ঘরোয়া ক্রিকেটের মান নিয়ে। অবকাঠামোগত পরিবর্তনে বোর্ডের নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। ইডেন টেস্টে আড়াই দিনের কম সময়ে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে প্রতিপক্ষ কাপ্তান লম্বা সময়ের আলোচনায় টেস্ট ক্রিকেটে সাফল্য পেতে বোর্ডের ভূমিকাকে তুলে এনেছেন বেশ ভালোভাবেই। ক্রিকেটারদের পুরো নিবেদন পেতে অবকাঠামোতেও মনযোগ দেওয়া পরামর্শ ছিল ভিরাট কোহলির।

একদিন পর আজ (২৫ নভেম্বর) দেশে ফিরে সাংবাদিকের বিসিবি সভাপতি জানালেন শুধু ঘরোয়া ক্রিকেট দিয়ে পরিবর্তন সম্ভব না। একটা সময় ঘরোয়া ক্রিকেটের অবকাঠামোতে সমস্যা থাকলেও সাম্প্রতি সেসবে নজর দিয়েছে বিসিবি, বেশকিছু পদক্ষেপ ইতোমধ্যে হয়েছে বাস্তবায়িতও। ফলে এই মুহুর্তে ঘরোয়া ক্রিকেটের কাঠামোতে খুব বেশি সমস্যা দেখছেন না বিসিবি বস।

আজ (২৫ মভেম্বর) সন্ধ্যা ৫ টা নাগাদ ভারত থেকে ফিরে বিমানবন্দরেই সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন নাজমুল হাসান পাপন। টেস্ট ক্রিকেটের উন্নতিতে ঘরোয়া কাঠামোর প্রসঙ্গ আসতেই বিসিবি সভাপতি পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়েন সাংবাদিকদের দিকে, ‘এটা আমার মনে হয়না, আপনারা বোধহয় ঘরোয়া লিগ দেখেন না। কারণ এখন ঘরোয়াতে কি সমস্যা আমাকে বলেন। আগের কথা বলতে পারেন আপনি। কিন্তু এখন কি সমস্যা?’

‘এখন আমরা ৬ ইঞ্চি ঘাস দিয়ে খেলছি, তৃতীয় বিভাগে খেলা হচ্ছে ৪ ইঞ্চি ঘাসে। পেসাররা সব উইকেট নিচ্ছে, এখন না আগেই হয়নি সেজন্য বলেন। এখন আমরা করছি এবং পেসাররা তো সুবিধা পাচ্ছে , বেশিরভাগ উইকেট পেসাররাই নিচ্ছে। স্পিনাররা ডোমিনেট করছে না।’

ঘরোয়া ক্রিকেটে মনযোগ দেওয়ার যৌক্তিকতা নিয়েও সাংবাদিকদের প্রশ্ন করে বসেন নাজমুল হাসান পাপন, ‘ঘরোয়া ক্রিকেটে মনযোগ দিয়ে লাভটা হবে কি? আপনি দেখেন ঘরোয়া ক্রিকেট খেলছে এখন, আমরা তো স্পোর্টিং উইকেট করছি, বাউন্সি, পেসারদের জন্য। একটা অনূর্ধ্ব-১৯ দল সিরিজ খেলছে আবার ইমার্জিং কাপ খেলছে, জাতীয় দল নেই। তাহলে যে সমস্ত বোলার আছে তাদের বিপক্ষে ব্যাট করে ওরা কি শিখবে?’

‘আপনি কার সাথে তুলনা করছেন আমাদের তো ওরকম বোলারও লাগবে। আপনি শুধু পিচ তৈরি করলে তো হবেনা, ভালো বোলার লাগবে যাদের খেলে তাদের অভ্যস্ত হতে হবে। ওই কোয়ালিটির বোলার তো লাগবে, বিশ্বমানের বোলারদের সাথে খেলে এসেছে তারা। আমাদের বোলিংয়ে ধারটাও বাড়াতে হবে।’

টেস্ট ক্রিকেটের উন্নতিতে বিসিবি নকশা সাজিয়েছে বলেও জানান বিসিবি বস, শীঘ্রই জানা যাবে পরিকল্পনাটা কি উল্লেখ করে তিনি যোগ করেন, ‘ হ্যাঁ আমরা এটা নিয়ে ভাবছি। সত্যি সত্যি আমরা একটা প্ল্যান করেছি যেটা আপনারা আগামী দুই তিনমাসের মধ্যে দেখবেন। টেস্ট ক্রিকেটে এ ধরণের পরিস্থিতি ফেস করার জন্য আমরা একটা দীর্ঘমেয়াদি ও স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনা করেছি। যেটা আপনারা দেখতে পারবেন, আমি মনে করি এটা অনেক কাজে দিবে, অন্তত ব্যাটিংয়ে ভালো হবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের পূর্নাঙ্গ সূচি, সিলেটে ৬ ম্যাচ

Read Next

জাতীয় দলের পাকিস্তান সফরে নিরাপত্তা সংকেত আলাদা হচ্ছেনা

One Comment

  • বাস্তবে চায়, আমরা কথা বলি বেশী কাজ করি কম.

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
14
Share