দেশকে বড় লজ্জার হাত থেকে বাঁচালেন মুশফিক

rahim

ইডেন গার্ডেন্সে উপমহাদেশের প্রথম গোলাপি বলের টেস্ট বাংলাদেশের জন্য চূড়ান্ত বিব্রতকর ইতিহাস হওয়ার অবস্থা তৈরি হয়েছিল। বাংলাদেশ মাত্র ১৩ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে দুই দিনেই চলমান টেস্ট শেষ হওয়ার পর্যায়ে ছিল। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে ভর করে দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেটে ১৫২ রান করেছে বাংলাদেশ। ইনিংস হার এড়াতে দরকার আরও ৮৯ রান।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা দেখে (১৩ রানে ৪ উইকেট নেই বাংলাদেশের) ইডেনের ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির টেস্ট দুই দিনেই শেষ হয়ে যায় কিনা, এমন শংকায় জেগেছিল। তবে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর লড়াকু ব্যাটিংয়ে কোলকাতা টেস্ট গড়াল তৃতীয় দিনে।

৭০ বলে ৫৯ রানে অপরাজিত থেকে দিনের খেলা শেষ করেন মুশফিকুর রহিম। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট পেয়ে উঠে যাওয়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের আবার ব্যাটিং করা নিয়ে সংশয় রয়ে গেছে।

তাইজুল আউট, দ্বিতীয় দিন সমাপ্তঃ

মাত্র ৩ বল উইকেট দ্বিতীয় দিন অপরাজিত থেকেই সাজঘরে ফিরতে পারতেন তাইজুল। বোলার তাইজুল ইসলাম ২৪ বল মোকাবিলা করেছেন শেষ সেশনের শেষদিকে এসে। তাইজুলের ব্যাট থেকে আসে ১১ রান। উমেশ যাদবের বলে রাহানের হাতে ক্যাচ তুলে ফেরার সময় দিনের আর ৩ বল বাকি ছিলো। তাই আম্পায়ারদ্বয় দিনের খেলা সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

লড়াইয়ের চেষ্টা করে ফিরলেন মিরাজঃ

ইনজুরিতে পড়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ প্যাভিলিয়নে ফিরলে উইকেটে আসেন লিটনের পরিবর্তে একাদশে আসা মেহেদী হাসান মিরাজ। ২ চার ১ ছয়ে ২২ বলে ১৫ রানের ছোট ইনিংস খেলে ইশান্ত শর্মার বলে ক্যাচ তুলেন কোহলির হাতে। মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাটেই দিবা-রাত্রির টেস্টে প্রথম ছয়ের দেখা পায় বাংলাদেশ।

হ্যামস্ট্রিং চোটে পড়লেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ:

৪১ বল মোকাবিলায় ৭ বাউন্ডারিতে ৩৯ রান করা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ইনিংসের ১৯তম ওভারে দৌড়ে রান নেওয়ার সময় ডান পায়ে চোট পান। চিকিৎসকের পরামর্শে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে।

মুশফিককে সঙ্গ দিতে উইকেটে আসলেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

নাজমুল হোসেন শান্তকে কোলকাতায় পাঠালো বিসিবি

ইডেনে দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগেই দল থেকে ছিটকে পড়েন সাইফ হাসান। মোসাদ্দেক ফিরে এসেছেন দেশে। টেস্টের প্রথমদিন ব্যাট করার সময় লিটন দাস ও নাইম হাসান আহত হওয়ায় ‘কনকাশন বদলি’ হিসেবে তাদের জায়গায় খেলছেন মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম। আজও মাথায় আঘাত পেয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন।

আজ মিরপুরে পাকিস্তানের সঙ্গে ফাইনাল শেষেই বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত কোলকাতার বিমানে বসলো। ইতোমধ্যে শান্ত চলেও এসেছেন কোলকাতায়। ইনজুরির বাইরে থাকা ১১জন ক্রিকেটারই খেলছেন ইডেন টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে। আর কেউ ইনজুরিতে পড়লে বিপাকে পড়বে টিম ম্যানেজম্যান্ট। মূলত এই ইস্যু মাথায় রেখেই শান্তকে দ্রুত দলের সঙ্গে যুক্ত করা হলো।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টাঃ

১৩ রানেই ৪ উইকেট নেই বাংলাদেশের। এরপর মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টা করছে বাংলাদেশ।

ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির টেস্টের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনে ৯ উইকেটে ৩৪৭ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। বাংলাদেশকে ২৪১ রানের বড় লিড ছুঁড়ে দিল ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে আবারও বিপর্যয়ে বাংলাদেশ। দলের দ্বিতীয় ইনিংসেও কোনো রান করতে পারেননি অধিনায়ক মুমিনুল, সাদমান ইসলাম।

ব্যাট হাতে নামেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও সাদমান ইসলাম। প্রথম ওভারেই ইশান্ত শর্মার বলে লেগ বিফোরের শিকার হন সাদমান। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারলেন না। অধিনায়ক মুমিনুল হক যেন শূন্য’র ঘরেই বন্দী। প্রথম ইনিংসে ০’তে আউট হওয়া মুমিনুল আজও আউট হয়েছেন ০’তেই। ২ রানেই ২ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর দলীয় ৯ রানে ৬ রান করে আউট মোহাম্মদ মিঠুন। ইমরুল কায়েস আউট ৫ রানের ইনিংসে।

অধিনায়ক মুমিনুলের লজ্জার এক রেকর্ডঃ

মুমিনুল হক তৃতীয় বাংলাদেশি টেস্ট অধিনায়ক, যিনি এক টেস্টের দুই ইনিংসেই ডাক (০) রানে আউট হয়েছেন। বাংলাদেশের হয়ে  মুমিনুলের আগে অধিনায়ক হিসেবে এই লজ্জাজনক রেকর্ডের বইয়ে নাম লিখেছেন কেবল হাবিবুল বাশার সুমন। ভারতের বিপক্ষে টেস্টে এমন রেকর্ডের তালিকায় মুমিনুলই প্রথম অধিনায়ক।

আর পুরো ক্রিকেট ইতিহাসের এই রেকর্ডে মুমিনুল হক ২৪তম অধিনায়ক।

উমেশ যাদব-ইশান্ত শর্মা ‘০’

রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন উমেশ যাদব ও ইশান্ত শর্মা। আবু জায়েদ রাহির বলে ক্যাচ তুলেন উমেশ যাদব। আল-আমিনের তৃতীয় শিকার ইশান্ত শর্মা।

আল-আমিনের লেগ বিফোরের ফাঁদে অশ্বিনঃ

ইনিংসের ৮৬তম ওভারে শেষ বল, স্কোরবোর্ডে ভারতের রান ৩২৯/৬। আল-আমিনের হোসেনের করা অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বল আঘাত করে অশ্বিনের প্যাডে। আবেদন, আবেদন, জোড়ালো আবেদন। আম্পায়ার আউট দেন। অশ্বিন রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। ৯ রানে ফেরত যান সাজঘরে।

ভিরাট কোহলিকে ফ্লাইং ক্যাচ নিলেন তাইজুলঃ

বোলার এবাদত হোসেনের থেকে বড় কাজটা করলেন ফিল্ডার তাইজুল। ভিরাট কোহলিকে ১৩৪ রানে বিদায় করলেন এবাদত হোসেন।

এবাদতের ঝুলিতে আসলো তৃতীয় উইকেট।

রাহির বলে বোল্ড জাদেজাঃ

ইডেন টেস্টের দ্বিতীয় দিন ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের আধিপত্য ছিল। দলের এই হতাশার মধ্যে পেসার আবু জায়েদ রাহি পেসবান্ধব উইকেটের সুযোগ কাজে লাগিয়ে রবীন্দ্র জাদেজাকে বোল্ড করলেন। লাঞ্চ থেকে ফিরেই রাহির বল লিভ করতে যেয়ে স্ট্যাম্প ভেঙ্গে যায় ১২ রান করা রবীন্দ্র জাদেজার।

 লাঞ্চ বিরতিতে বাংলাদেশ-ভারতঃ

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১০৬। জবাবে ভারত দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষে ৪ উইকেটে সংগ্রহ করেছে ২৮৯ রান। এই সেশনে ভারত নিয়েছে ১১৫ রান, আর বাংলাদেশের সাফল্য কেবল তাইজুলের এক উইকেট।

ভিরাট কোহলি ১৩০*, রবীন্দ্র জাদেজা ১২* রানে অপরাজিত।

গোলাপি বলে সেঞ্চুরি কোহলির প্রথম সেঞ্চুরিঃ

কোলকাতায় ঐতিহাসিক গোলাপি বলের দিন-রাতের টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ক্যারিয়ারের ২৭ তম টেস্ট শতরান চলে এল ভিরাট কোহলির ঝুলিতে। যা গোলাপি বলে ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম। ১৫৯ বলে ১২ বাউন্ডারিতে তিন অংক স্পর্শ করেন কোহলি।

রিকি পন্টিংকে টপকে অধিনায়ক হিসাবে সর্বাধিক টেস্ট সেঞ্চুরিকারীদের তালিকায় দুয়ে চলে এলেন কোহলি। ভারত অধিনায়ক হিসাবে এটি তাঁর ২০ নম্বর শতরান। কোহলির আগে আছেন শুধুই গ্রেম স্মিথ (২৫ সেঞ্চুরি)।

রাহানেকে বিদায় করলেন তাইজুলঃ

দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যন আজিঙ্কা রাহানে এবং ভিরাট কোহলি চতুর্থ উইকেটে বড় জুটি গড়ার পথেই ছিলেন। ৬৯ বলে ৫১ রান করা আজিঙ্কা রাহানেকে ফিরিয়ে আজ দিনের প্রথম সাফল্য এনে দেন তাইজুল ইসলাম। এরই সঙ্গে ভাঙে ৯৯ রানের দারুণ এক জুটি। কোহলির সঙ্গী হয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা।

ইডেন টেস্টের প্রথম দিনঃ

টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সাহস দেখিয়ে বাংলাদেশ অলআউট ১০৬ রানে। মাত্র ৩০ ওভার স্থায়ী ইনিংস টিকেছে কেবল ১৭৪ মিনিট।

৩ উইকেটে ১৭৪ রান নিয়ে কলকাতা টেস্টের প্রথম দিন শেষ করেছে ভারত। স্বাগতিকরা এগিয়ে আছে ৬৮ রানে। কোহলি ৫৯ ও অজিঙ্কা রাহানে ২৩ রানে ব্যাট করছেন।

৬১ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন ইবাদত। আল আমিন ১ উইকেট নিয়েছেন ৪৯ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস : ৩০.৩ ওভারে ১০৬/১০ (সাদমান ২৯, ইমরুল ৪, মুমিনুল ০, মিঠুন ০, মুশফিক ০, মাহমুদউল্লাহ ৬, লিটন ২৪, নাঈম ১৯, ইবাদত ১, মিরাজ ৮, আল আমিন ১*, আবু জায়েদ ০; ইশান্ত ১২-৪-২২-৫, উমেশ ৭-২-২৯-৩, শামি ১০.৩-২-৩৬-২, জাদেজা ১-০-৫-০)।

ভারত ১ম ইনিংস: ৪৬ ওভারে ১৭৪/৩ (মায়াঙ্ক ১৪, রোহিত ২১, পুজারা ৫৫, কোহলি ৫৯*, রাহানে ২৩*; আল আমিন ১৪-৩-৪৯-১, আবু জায়েদ ১২-৩-৪০-০, ইবাদত ১২-১-৬১-২, তাইজুল ৮-০-২৩-০)

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিব, মাশরাফি কোলকাতায়

Read Next

ওয়ার্নারের পর লাবুশানের কাছে ইনিংস হারের শঙ্কায় পাকিস্তান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
61
Share