ভারতের সফলতার পেছনে কঠিন বাস্তবতা তুলে ধরলেন কোহলি

ভিরাট কোহলি
টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে বাংলাদেশে একটা গুঞ্জন সবসময়ই শোনা যায়। টেস্ট খেলতে আগ্রহী নয় অনেকেই, এমনকি ঘরোয়া লঙ্গার ভার্সনেও আছে অনীহা। অথচ ক্রিকেটের ঐতিহ্যবাহী সংস্করণ টেস্ট ক্রিকেট, দেশের হয়ে টেস্ট খেলার চাইতে গৌরবের হতে পারেনা অন্য কিছু। অবশ্য অর্থের ঝনঝনানি ও দর্শক উন্মাদনা বিবেচনায় এখনকার ক্রিকেটে অনেকে টেস্ট, ওয়ানডে থেকে অবসর নিয়ে খেলে বেড়াচ্ছে শুধু ফ্র‍্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগ।

আর সেদিক থেকে একেবারেই ভিন্ন ভারতীয় ক্রিকেট। আইপিএলের বাইরে বিদেশি ফ্র‍্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ নেই ভারতীয় দলের ক্রিকেটারদের। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের অন্যতম সেরা টেস্ট দলে পরিণত হয়েছে ভিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারত শিবির। কেবল ঘরের মাঠেই নয় দেশের বাইরে বিরুদ্ধ কন্ডিশনেও তারা চোখে চোখ রেখে কথা বলছে প্রতিপক্ষের।

ফরম্যাট বিবেচনায় ইতোমধ্যে সাজিয়ে ফেলেছে আলাদা আলাদা স্কোয়াড, যে যার ফরম্যাটে নিংড়ে দিচ্ছে পুরোটাই। বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড থেকে ইনদোর টেস্টে খেলেছে কেবল রোহিত শর্মা। যা স্পষ্ট তাদের আলাদা দলগুলোর গভীরতা কত বিশাল। এখন প্রশ্ন উঠতেই পারে এমন দুর্দান্ত কম্বিনেশন, কাঠামো কীভাবে দাঁড় করিয়েছে ভারত?

উত্তর দিয়েছেন খোদ দলপতি ভিরাট কোহলি। ভারতীয় বোর্ডের সাথে ক্রিকেটারদের আর্থিক নিরাপত্তা কিংবা অন্যান্য সুযোগ সুবিধা নিয়ে টানাপোড়েনের শিরোনাম হয়নি কখনই। দু পক্ষ কাজ করে জুটি হয়ে, বাস্তবতা মানতে গেলেও সেটাই হওয়া উচিত। ক্রিকেটার আছে বলে বোর্ড আর্থিকভাবে লাভবান হয়, আবার বোর্ড আছে বলে ক্রিকেটাররা দেশের প্রতিনিধিত্ব করছে, আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত হচ্ছে।

বোর্ডের সাথে নিজেদের সম্পর্ক নিয়ে বলতে গিয়ে ভারতীয় কাপ্তান জানান, ‘আপনারা দেখে থাকবেন দল হিসেবে গত দুই-তিন বছরে আমরা কতটা রোমাঞ্চকর জায়গায় পৌঁছেছি। আমার মনে হয়, এটা বোর্ড ও খেলোয়াড়দের একটা সুন্দর জুটির মতো, যা সঠিক পথে এগিয়ে নিচ্ছে সব। আপনি যদি আমাদের চুক্তির ব্যাপারটা দেখেন, তাহলে দেখবেন টেস্ট ক্রিকেটারদের যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হয়।’

টেস্ট ক্রিকেটকে আপনি যখন রাজকীয় সংস্করণ বলবেন তখন সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারও নিশ্চিতভাবে এখান থেকে সেরা আয়টাই চাইবে। যা তাকে টেস্ট ক্রিকেটে মনযোগী হতে আরও বেশি অনুপ্রেরণা জোগাবে, নিজেকে উজাড় করে দিয়ে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার টোটকা হিসেবে কাজ করবে। ভারতের টেস্ট ক্রিকেটে এত সমৃদ্ধ হওয়ার পেছনে রয়েছে আর্থিক নিরাপত্তার বড় ভূমিকাও।

সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক ভারতীয় বোর্ড দেশটির টেস্ট ক্রিকেটারদেরই দেয়। বর্তমানে টেস্টে ভারতীয় ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি প্রায় ২৫ লাখ টাকা। ভারতীয় ক্রিকেটারদের এক ম্যাচের পারিশ্রমিক আয় করতে বাংলাদেশি টেস্ট ক্রিকেটারকে খেলতে হয় প্রায় ৮ টি টেস্ট ম্যাচ। অথচ বছরে বাংলাদেশ ৮ টি টেস্ট ম্যাচ খেলারই সুযোগ পায়না অনেক সময়। অর্থাৎ যা দাঁড়ায় ভিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পুজারাদের এক ম্যাচের পারিশ্রমিক আয় করতে সাকিব-তামিমদের লাগে একবছরের বেশি সময়।

ভারতীয় ক্রিকেটারদের টেস্ট ক্রিকেটে নিবেদনের পেছনে ভিরাট কোহলি ঈঙ্গিত দিয়েছেন পারিশ্রমিক কাঠামোর ব্যাপারটিকেও, ‘আপনি শুধু ক্রিকেটারদেরই টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি নিবেদিত হতে বলতে পারেন না। আমরা পেশাদার ক্রিকেটার। এটা আমাদের রুটি-রুজি। যখন বলা হবে টেস্ট ক্রিকেট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তখন সবকিছুই সেই হিসেব মেনেই হওয়া উচিত।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ইমরুল ৪, মুমিনুল-মিঠুন-মুশফিক ০

Read Next

সাজঘরে সাদমানও, লিটন-রিয়াদ বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টায়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
32
Share