ভূমিকা বদলে মুশফিকের পরামর্শ নিচ্ছেন মিরাজ

মেহেদী হাসান মিরাজ মুশফিকুর রহিম

বয়সভিত্তিকে মেহেদী হাসান মিরাজ ছিলেন পুরোদস্তুর অলরাউন্ডার। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন সামনে থেকে, ব্যাটে-বলে পারফরম্যান্স ছিল সমান তালে। কিন্তু জাতীয় দলে মিরাজ যেন হয়ে পড়েছেন শুধুই বোলার, যে কিনা শেষদিকে কিছুটা ব্যাট করতে পারে। অবশ্য জাতীয় দলে মিরাজের ব্যাটিং অর্ডারেরও এসেছে পরিবর্তন, নিজের ব্যাটিং ভূমিকা নিয়ে কোচের সাথে কথা হয়েছে উল্লেখ করে টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের সাহায্য করতে চান বলে জানিয়েছেন এই অলরাউন্ডার।

ইনদোর টেস্টে প্রথম ইনিংসে দলের বাকি ব্যাটসম্যানদের মত মিরাজও হয়েছেন ব্যর্থ, ফিরেছেন খালি হাতে। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ রান করা মুশফিকের সাথে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৯ রানের জুটিতে দলকে দিয়েছেন কিছুটা সমর্থন। আউট হয়েছেন ৫৫ বলে ৫ চার ১ ছক্কায় দ্বিতীয় ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩৮ রান করে। শেষদিকে দল এমন কিছুই প্রত্যাশা করে যাতে ক্রিজে থাকা টপ/মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যান পারে নিজেকে সামনে এগিয়ে নিতে। কিন্তু তিতা সত্য বেশিরভাগ সময় ব্যর্থ হয় বাংলাদেশের লোয়ার অর্ডার।

আজ (১৮ নভেম্বর) ইনদোরে ফ্লাডলাইটে অনুশীলন শেষে মেহেদী মিরাজ জানান এ বিষয়ে কোচের সাথে হয়েছে আলাদা আলোচনা, ‘আসলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কিন্তু ভালো বল বেশি থাকে। এখানে সুযোগ কম থাকে একটা ভালো বলে উইকেট পড়ে যায়। আমরা যারা আছি লোয়ার অর্ডারের ব্যাটসম্যান, গত ম্যাচে দেখেন মুশফিক ভাই ভালো ব্যাটিং করছিল আমরা লোয়ার অর্ডার সাপোর্ট দিতে পারিনি।’

‘ভালো সাপোর্ট দিলে সে হয়তো আরও কিছু রান করতো। এটা নিয়ে আমাদের কথা হয়েছে কোচও কথা বলেছে বিশেষ করে আমার সাথে ও যারা পেস বোলার আছে তাদের সাথে। আমরা যেন একজন ভালো ব্যাটসম্যান ক্রিজে থাকলে তাকে সাপোর্ট দিতে পারি, রান না করলেও ২০-৩০ টা বল খেলে সমর্থন অন্তত দিতে পারি। আমার কাছে মনে হয় যে আরও বেটার পারফর্ম করা উচিত। সিনিয়ররা তো সবসময় পারফরম্যান্স করছে এবং তাদের জন্য আমাদের অবস্থান আরও ভালো।’

সিনিয়রদের সাথে জুনিয়ররাও জ্বলে উঠলে দলের জন্য ভালো উল্লেখ করে মিরাজ আরও যোগ করেন, ‘ আমরা যারা জুনিয়র আছি তাদের পারফরম্যান্সটা যদি আরও ভালো হয় দলের জন্যও ভালো হবে। আমরা যতগুলো ম্যাচ জিতেছি টেস্টে হোমে, বাইরে একটা জিতেছি। সিনিয়রদের সাথে জুনিয়রদের পারফরম্যান্স খুব ভালো ছিল। জুনিয়র যারা অনেকদিন খেলছি তাদের রোলটা গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ করে আমার, লিটন, মুস্তাফিজ, সাদমান, মিঠুন ভাই যারাই আছি।’

টেকনিক্যালি দেশের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন মুশফিকুর রহিম। টেস্ট কিংবা ওয়ানডে দেশের বড় বড় জুটিগুলোর একপাশে মুশফিকের থাকা যেন নিয়মিত দৃশ্য। এ প্রসঙ্গ টেনে মুশফিকের কাছ থেকে নিজের ব্যাটিং উন্নতিতে পরামর্শ নিচ্ছেন জানিয়েছেন এই অলরাউন্ডার, ‘মুশফিক ভাই সবসময় আমাকে ব্যাটিং নিয়ে বলে, একটা জিনিস দেখেন বাংলাদেশ টিমের যতগুলো বড় জুটি হয়েছে বেশিরভাগই মুশফিক ভাইয়ের সাথে হয়েছে।’

‘ওয়ানডে বলেন টেস্ট বলেন উনার সাথেই হয়েছে, উনার সাথে আমার বোঝাপড়া ভালো হয়। উনি আমাকে বলছিলেন ব্যাটিং ভালো হচ্ছে কিন্তু যত ভালো টিমের সাথে খেলবো ভালো বোলার বেশি থাকবে। যতটা নিজে টিকে থাকা যায়, আগে থেকে নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে, মানসিকভাবেও থাকতে হবে দৃঢ়।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

গোলাপি বলের রোমাঞ্চে বুঁদ মেহেদী মিরাজ

Read Next

দিল্লির বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ‘টাই’ করল বাংলা টাইগার্স

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
12
Share