গোলাপি বল নিয়ে উচ্ছ্বসিত ঋদ্ধিমান, আছে শঙ্কাও!

ঋদ্ধিমান সাহা
Vinkmag ad

আগামী ২২ নভেম্বর থেকে কোলকাতায় শুরু হতে যাওয়া বাংলাদেশ-ভারত দ্বিতীয় টেস্টটি আক্ষরিক অর্থেই দু দলের জন্য রোমাঞ্চের। প্রথম বারের মত দু দলই খেলতে নামছে গোলাপি বলে তথা দিবারাত্রির টেস্ট। দু দলই যেটাতে অনভ্যস্ত তবে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে গোলাপি বলে খেলার অভিজ্ঞতা আছে ভারতের টেস্ট স্কোয়াডের মোহাম্মদ শামি ও ঋদ্ধিমান সাহার।

গোলাপি বলের অভিজ্ঞতা ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে কথা বলেছেন উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা। ২০১৬ সালে ইডেন গার্ডেনে সিএবি সুপার লিগের ফাইনালের মধ্য দিয়ে ভারতে প্রথম চারদিনের দিবা রাত্রির ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। পেসার মোহাম্মদ শামি ও ঋদ্ধিমান সাহা দুজনেই খেলেছেন মোহনবাগান দলের হয়ে যেটার বর্তমানে ভবানিপুর ক্লাব নামকরণ হয়েছে।

সে অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরতে গিয়ে ঋদ্ধিমান সাহা বলেন, ‘সেবার কোকাবুরা বলে খেলা হয়েছে, আর এবার এসজি বলে হবে। সুতরাং পুরো ব্যাপারটিই ভিন্ন। ফ্লাডলাইটের আলোয় বল অত্যাধিক সুইং করে যা আমাদের পেসারদের বেশ সহায়তা করবে। আমি মনে করি তারা এই কন্ডিশনটা উপভোগ করবে।’

গোলাপি বলে বাংলাদেশকে খেলার প্রস্তাব দিয়ে ভালো মানের বল পাওয়া যাচ্ছেনা বলে বিপাকে বিসিসিআই এমন খবরও প্রকাশ হয়েছে গত কয়েকদিন। বল যে একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেটা জানিয়েছেন এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যানও, ‘হ্যাঁ বল পুরোনো ও ময়লা হয়ে গেলে সমস্যা হয় বিশেষ করে গোধূলী সময়ে এটি চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়াতে পারে। এছাড়া নভেম্বরে শিশির একটা ফ্যাক্ট হতে পারে, এটাও বিবেচনায় রাখতে হবে।’

দ্য দলের জন্যই প্রথম, ঘরোয়া ক্রিকেটেও দিবা রাত্রির টেস্ট ও গোলাপি বলে অভিজ্ঞতা নেই বাংলাদেশের। ভারতের ক্ষেত্রেও অপর্যাপ্তই বলতে হয়, প্রস্তুতির সময় কম হলেও দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করতে চান ৩৫ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান,   ‘আমরা খুব উচ্ছ্বসিত কিন্তু সতীর্থদের সাথে দিবা রাত্রির টেস্ট নিয়ে খুব একটা আলোচনার সুযোগ হয়নি।’

‘আগামী কয়দিন এটা নিয়ে আলোচনা করতে হবে। প্রস্তুতির খুব বেশি সময় পাওয়া যাবেনা, এরমধ্যেই নিজেদের মানিয়ে নেওয়া ও পরিকল্পনার কাজটা করতে হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মানসিক অবসাদে ক্রিকেট থেকে ম্যাক্সওয়েলের বিরতি

Read Next

সাকিব ইস্যুতে লিগ্যাল টিমের সাথে কথা বলছে বিসিবি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
4
Share