ফতুল্লাতে ড্র হওয়া ম্যাচে ম্যাচসেরা দু’জন

চট্টগ্রাম
Vinkmag ad

ফতুল্লাতে বরিশাল-চট্টগ্রাম ম্যাচে শেষদিকে রোমাঞ্চ ছড়ালেও ড্রই জুটেছে দু দলের ভাগ্যে। ৩৩৬ রানের টার্গেটে হারই চোখ রাঙ্গাচ্ছিল বরিশালকে, মোসাদ্দেকের ছোট তবে কার্যকরী ইনিংস ও দিনের খেলা আগেই শেষ হওয়ায় রক্ষা পায় আশরাফুলের বরিশাল, কপালে চিন্তার ভাঁজটা ফেলেন চট্টগ্রাম স্পিনার নাইম হাসান।

প্রথম ইনিংসে ১৫০ রানের লিড পাওয়া চট্টগ্রাম নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ১ উইকেটে ৫০ রান তুলে তৃতীয় দিন শেষ করে। আজ লাঞ্চের আগেই ফিফটি তুলে নেন ওপেনার পিনাক ঘোষ। ৭৪ বলে ৫৪ রান করে ফেরেন কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে। চলতি জাতীয় লিগে মুমিনুল হক পাচ্ছেন না বড় ইনিংসের দেখা আজ আউট হয়েছেন ৩০ রান করে।

মুমিনুল হকের বিদায়ের পর দ্রুতই ফেরেন আগের ইনিংসেই ফিফটি পাওয়া ইয়াসির আলি রাব্বিও। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানো চট্টগ্রাম বিভাগ উ উইকেটে ১৯৫ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে। দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ রান আসে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনের ব্যাট থেকে। মাসুম খান ও নাইম হাসান অপরাজিত ছিলেন যথাক্রমে ২৭ ও ১১ রানে।

প্রথম ইনিংসে ১৫০ রানে পিছিয়ে থাকায় বরিশালের জন্য লক্ষ্যটা দাঁড়ায় ৩৩৬। দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ওভারেই উইকেট হারায় বরিশাল। নাইম হাসানের বলে কোন রান না করেই সাজঘরে ফেরেন ওপেনার রাফসান আল মাহমুদ। ১ উইকেটে কোন রান না তুলেই লাঞ্চে যাওয়া বরিশাল ঘুরে দাঁড়ায় শাহরিয়ার নাফিস ও মোহাম্মদ আশরাফুলের ১১৩ রানের জুটিতে। জুটি ভাঙেন মাসুম খান, ৬০ রান করা মোহাম্মদ আশরাফুলকে তাসামুলের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান মাসুম।

আশরাফুলের বিদায়ের পরই নাইম-নোমানের তোপে বেশ বিপর্যয়ে পড়ে বরিশাল। ১ উইকেটে ১১৩ থেকে পরিণত হয় ৬ উইকেটে ১২৭। এরপর শামসুল ইসলামকে নিয়ে বিপর্যয় সামলানোর চেষ্টা করেন মোসাদ্দেক হোসেন। নাইম হাসানের ঘূর্ণি যখন চোখ রাঙাচ্ছে হারের তখনই স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ৪৭ রান। ৩৫ বলে ৩৫ করা মোসাদ্দেককে ফিরিয়ে আবারও জুটি ভাঙেন নাইম হাসান।

এরপরই মাঠের আম্পায়ার দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করলে ৭ উইকেটে ১৭৪ রান করা বরিশাল হার থেকে বাঁচে। প্রথম ইনিংসের মত দ্বিতীয় ইনিংসেও নাইমের শিকার ৪ উইকেট, নোমান চৌধুরী দুটি ও মাসুম খান নেন একটি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

চট্টগ্রাম ১ম ইনিংস ৩৫৬/১০ (১৩৪.৩), পিনাক ১৯, শুক্কুর ৫৭, মুমিনুল ১৫, তাসামুল ২৮, ইয়াসির ৭০, অঙ্কন ৯১, মাসুম ৫০*, নাইম ০, রানা ৫, আফ্রিদি ০, নোমান ৪; নুরুজ্জামান ১২-৩-৪৩-১, মোসাদ্দেক ১৯-৭-২৯-২, মনির ৩৪.৩-৬-৯৯-৪, আশরাফুল ১১-৫-১৮-১, তানভির ২৮-৪-৬৮-১

বরিশাল ১ম ইনিংস ২১৬/১০ (৮২.৩), নাফিস ১৭, রাফসান ৪৯, রাব্বি ১৪, কামরুল ০, আশরাফুল ২১, মোসাদ্দেক ৪, গাজী ৮, নুরুজ্জামান ৬০, শামসুল ১০, মনির ৫, তানভির ০*; রানা ১৭-৩-৬৪-২, নোমান ১৫-৪-৩৫-২, নাইম ২৮.৩-১০-৬২-৪, আফ্রিদি ১২-২-২৬-২

চট্টগ্রাম ২য় ইনিংস ১৯৫/৬ (ইনিংস ঘোষণা, ৪৭ ওভারে), পিনাক ৫৪, শুক্কুর ১১, মুমিনুল ৩০, রাব্বি ৬, অঙ্কন ৪৩, তাসামুল ১১, মাসুম ২৭*, নাইম ১১*; কামরুল ১৬-১-৪৩-২, আশরাফুল ৯-০-৩৮-১, নুরুজ্জামান ৪-০-১৯-১, মনির ১২-০-৬৮-১, তানভির ৩-০-২১-১

বরিশাল ২য় ইনিংস ১৭৪/৭ (৬৫), রাফসান ০, নাফিস ৪২, আশরাফুল ৬০, নুরুজ্জামান ১, রাব্বি ৭, গাজী ০, মোসাদ্দেক ৩৫, শামসুল ১৫*; নাইম ২৯-১৩-৫৪-৪, নোমান ১২-৪-৩৪-২, মাসুম ৭-৪-৬-১।

ফলাফলঃ ম্যাচ ড্র

ম্যাচসেরাঃ নাইম হাসান ও মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন (চট্টগ্রাম)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অস্ট্রেলিয়ার কোচিং স্টাফে যুক্ত হচ্ছেন হাসি ও হ্যারিস

Read Next

সাইফউদ্দিনকে নিয়ে বৈঠক আগামীকাল, ছিটকে যেতে পারেন স্কোয়াড থেকেও

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
4
Share