থ্রো করতে না পারারাও আছে জাতীয় দলে!

বাংলাদেশ
Vinkmag ad

বাংলাদেশ দলের ফিল্ডিং নিয়ে হতাশাটা পুরোনো। দুই-একজন ছাড়া দুর্দান্ত ফিল্ডার বলার মত ক্রিকেটার খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। জাতীয় দলের নতুন কোচতো বলেই দিয়েছেন ফিল্ডিংয়ের মৌলিক বিষয়ই অজানা অনেকের। আর এ কারণেই এখন থেকে এসবে বেশ গুরুত্ব দিচ্ছেন জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের পারফরম্যান্সে সন্তোষ প্রকাশ করে তাদের নিয়েও নানা পরিকল্পনা আঁটছেন বলে জানান নাজমুল হাসান পাপন।

বাংলাদেশের নতুন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর কাছে বিশ্বকাপসহ সাম্প্রতিক সময়ে বাজে ফিল্ডিংয়ের ব্যাপারে জানতে চায় বোর্ড। তখনই ক্রিকেটারদের মৌলিক জ্ঞানের অভাব নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দেন, ‘বিশ্বকাপের সময় ফিল্ডিং নিয়ে অনেক কথা হচ্ছিল। আমরা তাঁর কাছে জানতে চেয়েছি ফিল্ডিং ভালো হচ্ছে না কেন। তখন তার দেয়া প্রথম পরামর্শ ছিল ফিল্ডিং এবং ফিটনেস। মৌলিক কিছু নেই, দলের মধ্যে ১০-১৫টা ছেলে পাঠালে তারা নাকি ফিল্ডিংয়ের মৌলিক বিষয়গুলোই জানে না, ৪-৫ জন আছে থ্রো কিভাবে করতে হয় সেটা জানে না।’

এ নিয়ে হতাশ বিসিবি সভাপতি অবশ্য বলছেন কোচিং স্টাফদের পরামর্শ নিয়ে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা শুরু করেছেন, ‘এগুলা যদি জাতীয় দলে এসে বিশ্বকাপের মঞ্চে শিখাতে হয়, তাহলে তো হবে না। আমরা এগুলো নিয়ে কাজ করছি, সাপোর্ট স্টাফদের দেয়া প্রত্যেকটি পরামর্শ নিয়েই কাজ করছি আমরা। এতে অনেক বাঁধা আসবে, তবে আমার ধারণা দীর্ঘ পরিসরে চিন্তা করলে এটাই সব থেকে ভালো।’

নাজমুল হাসান পাপন
ফাইল ছবি

বোর্ড পরিচালক ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সাথে বৈঠক শেষে গতকাল (১৭ অক্টোবর) মিরপুরে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন বিসিবি সভাপতি। সাম্প্রতিক সময়ে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের পারফরম্যান্সে খুশি পাপন বলেন, ‘আমাদের অনূর্ধ্ব-১৯ দল আল্লাহর রহমতে খুব ভালো খেলেছে। প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডে গিয়ে তাঁরা জিতে এসেছে ২-০ তে, ভারতের সঙ্গে একটা জিতেছে। ফাইনালে হেরেছে। কিন্তু নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ৪-১ যেটা একটা নতুন কন্ডিশনে, এরাই তো বিশ্বকাপ খেলবে।’

জাতীয় দলের আদলেই যুবাদের নিয়েও পরিকল্পনা সাজাচ্ছে বিসিবি উল্লেখ করে পাপন যোগ করেন, ‘আমি মনে করি এদের এখানেও আমাদের একটা মিনিমাম স্ট্যান্ডার্ড তৈরি করে দেয়া উচিত। আমরা ওই জায়গায় জাতীয় দলের মতো কোচিং স্টাফদের নিয়ে অতো চিন্তা করতাম না। তারপর আস্তে আস্তে এইচপি শুরু করলাম মাত্র। কয় বছর হয়? দু-তিন বছর? তারপর এখন আসছি আমরা অনূর্ধ্ব-১৯ দল নিয়ে। আমরা প্রতিটা পর্যায়ে ভালো কোচিং স্টাফ দিতে চাই। যাতে নিচে থেকে একটা স্ট্যান্ডার্ড তৈরি করা যায়।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষা, সাইফউদ্দিন এবং টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড!

Read Next

ইমরুলের ফিফটি, ইনিংস বড় করতে পারেননি বিজয়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
7
Share