ক্যারিয়ার বাঁচাতে যেকোন কিছু করতে রাজি সাইফউদ্দিন

মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন
Vinkmag ad

বাংলাদেশের একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডারের দীর্ঘদিনের আক্ষেপ ঘুচানোর দায়িত্ব বর্তিয়েছে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের কাঁধে। আস্তে আস্তে নিজেকে তৈরিও করে নিচ্ছেন, দিচ্ছেন আস্থার প্রতিদান। বয়সভিত্তিক থেকেই আলো কেড়েছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার, তবে জাতীয় দলে এসেই নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার তিনি, যার একটি পিঠের চোট। ব্যথার তীব্রতা সাম্প্রতিক সময়ে বাড়লেও মাস কয়েক আগেই জানা গেছে এই চোট দীর্ঘদিন আগের, অর্থাৎ বয়সভিত্তিক থেকেই এটি বয়ে বেড়াচ্ছেন সাইফউদ্দিন।

তার চোটের কারণ ধরতে পারার যন্ত্রপাতিই নেই বাংলাদেশে, ফলে বিসিবি দ্বারস্থ হয়েছে ইংল্যান্ডের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ স্পোর্টস এক্সারসাইজ এন্ড সাইন্সের’। ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডও করছে বেশ সহযোগিতা। সিটি স্ক্যান করানো হয়েছে সাইফ উদ্দিনের, যার প্রতিবেদন পাঠানো হবে ইংল্যান্ডে। প্রতিবেদন দেখে তাদের পরামর্শমতেই এগোবে বিসিবি। প্রয়োজনে বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষার জন্য ইংল্যান্ড পাঠানো হতে পারে তরুণ এই পেসারকে। সেখানে বোলিং অ্যাকশনে ত্রুটি ধরা পড়লে বদলে ফেলতে হতে পারে অ্যাকশনই।

ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শুরু থেকে যে বোলিং অ্যাকশনে বল করে এসেছেন সাইফ সেটা বদলে ফেলতে হলে মানসিকভাবে প্রস্তুত কিনা জানতে চাইলে বলেন, ‘হ্যাঁ, ক্যারিয়ার বাঁচানোর জন্য যেকোন কিছু করতে রাজি আছি। মাশরাফি ভাইয়ের কথাই বলেন অনেকগুলো সার্জারি নিয়ে খেলছে। আমার তো মাত্র শুরু, তাই এখনই করলে হয়তো আমার জন্য একটু কঠিনই হবে। সবকিছু করতে রাজি আছি। যেহেতু এটা আমার রুটি রুজির বিষয় এটার জন্য সবকিছু করতে প্রস্তুত আমি।’

বোলিং অ্যাকশন পরিবর্তনের পর আগের মত সফলতা না পাওয়া বোলারের উদাহরণ ক্রিকেটে আছে অসংখ্য সেক্ষেত্রে সাইফউদ্দিনেরও আছে ঝুঁকি। সাইফউদ্দিন নিজে কীভাবে দেখছেন ব্যাপারটি, ‘হ্যাঁ, অ্যাকশন পরিবর্তের বিষয়টা আগে আসছিল। আমার মনে হয় কোচ এসব নিয়ে কিছু বলেনি। ইনজুরি হলেই যে অ্যাকশন পরিবর্তন করতে হবে এটা আগেতো বলা ঠিক না। আমার জন্য লাইফের একটা টার্নিং পয়েন্ট হবে। হুট করে কিছু বলবনা এখন। আগে ভেবে চিন্তে দেখি আমার জন্য যেটা ভালো হবে সেটাই করবো।’

সম্প্রতি ক্রিকেট থেকে দূরে থাকলেও সাইফের ভাবনাজুড়ে আছে শুধুই বোলিং, ‘আমি হয়তো রেস্টে আছি, ক্রিকেট খেলতে পারছিনা। আমার চিন্তা চেতনা সবকিছু বোলিং ঘিরে, কীভাবে বল করবো। যখন আমি পুরোনো কোন ম্যাচ দেখি তখন আমি অনুভব করি আমি থাকলে কি করতাম। একটা বল হাতে নিয়ে চেষ্টা করি ভিন্ন কিছু বের করার, নতুন কিছু করার। কারণ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে হলে ভিন্ন কিছু করতেই হবে। আমি খেলতেছিনা ঠিক আছে তবে আমার পুরো মনযোগ বোলিং ঘিরে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বেসিস আইসিটি অ্যাওয়ার্ড পেলো বিডিক্রিকটাইম

Read Next

একদম অখুশি নন সাকিব, তবে…

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
11
Share