শেষ বলের রোমাঞ্চে লঙ্কানদের হারালো বাংলাদেশ ‘এ’ দল

মোহাম্মদ মিঠুন নিরোশান ডিকওয়েলা
Vinkmag ad

কলম্বোতে তিন ম্যাচের আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছিলো বাংলাদেশ ‘এ’ দল। আজ দ্বিতীয় আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলকে হারিয়ে সিরিজে সমতা এনেছে মোহাম্মদ মিঠুনের নেতৃত্বাধীন দল।

২২৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। ওপেন করতে নামা সাইফ হাসান ৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তবে অপর ওপেনার মোহাম্মদ নাইম শেখ দাপুটে এক ইনিংস খেলেন। আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়ার আগে ৩৪ বলে ৮ চারে ৪৪ রান করেন ২০ বছর বয়সী এই বাঁহাতি ওপেনার।

তিনে নেমে ভালো কিছুর আভাস দিলেও ২১ রানের বেশি করতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্ত। আফিফ হোসেন ধ্রুবও ২৫ রানের গন্ডি পার করতে পারেননি। ৩১ বলে ২ ছয়ে ২৪ রান করে আউট হন তিনি।

চতুর্থ উইকেটে নুরুল হাসান সোহানের সঙ্গে মিলে ৬৩ রানের জুটি গড়েন চারে নামা মোহাম্মদ মিঠুন। ৪৩ বলে ৩ চারে ২৫ রান করে নুরুল হাসান আউট হলে ভাঙে এই জুটি। এরপর সুস্থ হয়ে মাঠে ফেরেন নাইম। এসেই তুলে নেন ফিফটি।

নাইমের আগেই ফিফটি তুলে নেওয়া মোহাম্মদ মিঠুন ম্যাচ শেষ করে আসতে পারেননি। ৮৭ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৫২ রান করে রমেশ মেন্ডিসের বলে আউট হন তিনি। সাতে নামা আরিফুল হক আউট হন ঠিক সাত রান করে। আরিফুল আউট হবার ঠিক ১ বল করে আউট হন নাইম। ৫৯ বলে ৯ চারে ৬৮ রান করে রমেশ মেন্ডিসের বলে তাঁকেই ক্যাচ দেন নাইম।

শেষ ২ ওভারে সফরকারীদের দরকার ছিলো ১৪ রান, হাতে ছিলো ৩ উইকেট। ৪৯ তম ওভারে আসে ৫ রান, আউট হন এবাদত হোসেন। শেষ ওভারে দরকার ছিলো ৯ রান, হাতে দুই উইকেট। শেষ ওভারের তৃতীয় বলে বাউন্ডারি আদায় করে নেন সানজামুল। ৫ম বলে যেয়ে আউট হন আবু জায়েদ। শেষ বলে বাংলাদেশের দরকার ছিলো ১ রান। ৯ বলে ১১ রান করে অপরাজিত থাকা সানজামুল ইসলাম নেন জয়সূচক রান। শেষ বলে রোমাঞ্চে বাংলাদেশ ‘এ’ দল জেতে ১ উইকেটের ব্যবধানে।

এর আগে কলম্বোর রনসিংহে প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টসে জিতে আগে স্বাগতিকদের ব্যাট করতে পাঠান বাংলাদেশ ‘এ’ দলের অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন।

পাথুম নিসাঙ্কা ও লাহিরু উদারা উদ্বোধনী জুটিতে তোলেন ২৮ রান। ২৭ বলে ৩ চারে ১৫ রান করা নিসাঙ্কাকে সানজামুল ইসলামের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান আবু হায়দার রনি। লাহিরু উদারা ও তিনে নামা কামিন্দু মেন্ডিস এগিয়ে নিচ্ছিলেন দলকে। জমতে থাকা জুটি ভাঙেন পেসার এবাদত হোসেন। ৪০ বলে ১ চারে ২৩ রান করা উদারাকে মোহাম্মদ নাইম শেখের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান তিনি।

তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক আসান প্রিয়ঞ্জন কামিন্দু মেন্ডিসের সঙ্গে উইকেটে বেশীক্ষণ সময় কাটাতে ব্যর্থ হন। ১৭ বলে ৭ রান করে সাইফ হাসানের অফব্রেক বোলিংয়ে ধরাশায়ী হন, ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে দাঁড়িয়ে থাকা নুরুল হাসান সোহানকে।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৭৮ রান যোগ করেন কামিন্দু মেন্ডিস ও প্রিয়মল পেরেরা। ৬৭ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৬১ রান করা কামিন্দু মেন্ডিসকে আউট করে যে জুটি ভাঙেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। এরপর প্রিয়মল পেরেরাও আর বেশীক্ষণ থাকেননি উইকেটে। ৬২ বলে ২ চার ও ১ ছয়ে ৫২ রান করে স্টাম্পড হন সানজামুল ইসলামের বলে।

দলের স্কোর ২০০ ছোঁয়ার আগেই ৬ষ্ঠ ও ৭ম ব্যাটসম্যান হিসাবে আউট হন রমেশ মেন্ডিস (২) ও আসেন বান্দারা (১৮)। ৯ নম্বরে ব্যাট করতে নামা চামিকা করুণারত্নের ২৭ বলে অপরাজিত ২৫ রানে ২২৬ অব্দি পৌঁছায় স্বাগতিকরা।

বাংলাদেশ এ’ দলের পক্ষে ২ টি করে উইকেট নেন আবু হায়দার রনি, এবাদত হোসেন ও সানজামুল ইসলাম। আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, সাইফ হাসান ও আফিফ হোসেন ধ্রুব নেন ১ টি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা এ’ দল ২২৬/৯ (৫০), নিসাঙ্কা ১৫, উদারা ২৩, কামিন্দু ৬১, প্রিয়ঞ্জন ৭, প্রিয়মল ৫২, বান্দারা ১৮, রমেশ ২, জয়ারত্নে ৬, চামিকা ২৫*, আপোন্সো ৩, ফার্নান্দো ১*; রাহি ৮-০-৩৯-১, রনি ১০-১-৪২-২, এবাদত ১০-০-৪৬-২, সাইফ ১০-০-৩৯-১, সানজামুল ১০-০-৪৩-২, আফিফ ২-০-১৩-১।

বাংলাদেশ ‘এ’ দল ২২৭/৯ (৫০), সাইফ ৫, নাইম ৬৮, শান্ত ২১, মিঠুন ৫২, আফিফ ২৪, নুরুল ২৫, আরিফুল ৭, সানজামুল ১১*, এবাদত ২, রাহি ১, রনি ০*; রমেশ ৪০/৩, ফার্নান্দো ৩৮/২, চামিকা ৩৫/২, প্রিয়ঞ্জন ২৯/২।

ফলাফলঃ বাংলাদেশ ‘এ’ দল ১ উইকেটে জয়ী।

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer- Cricket97

Read Previous

তাইজুল-শফিউলে দিশেহারা ঢাকা

Read Next

বিগ ব্যাশের আদলে বিপিএল, চলছে যথাসময়ে আয়োজনের চেষ্টা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
13
Share