‘বদলে যেতে পারে সাইফউদ্দিনের বোলিং টেকনিক’

মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন

বাংলাদেশের একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডারের দীর্ঘদিনের আক্ষেপ ঘুচানোর দায়িত্ব বর্তিয়েছে মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের কাঁধে। আস্তে আস্তে নিজেকে তৈরিও করে নিচ্ছেন, দিচ্ছেন আস্থার প্রতিদান। বয়সভিত্তিক থেকেই আলো কেড়েছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার, তবে জাতীয় দলে এসেই নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার যার একটি পিঠের চোট। ব্যথার তীব্রতা সাম্প্রতিক সময়ে বাড়লেও মাস কয়েক আগেই জানা গেছে এই চোট দীর্গদিন আগের, অর্থাৎ বয়স ভিত্তিক থেকেই এটি বয়ে বেড়াচ্ছেন সাইফ উদ্দিন।

চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট সাইফউদ্দিন

এদিকে তার এই চোটের ধরণ কিংবা মূলত সমস্যা কোথায় এ নিয়ে রয়েছে দ্বিধা। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী আগেই জানিয়েছেন এটার কারণ কিংবা ধরণ জানার ব্যবস্থা নেই বাংলাদেশে। চোট নির্ণয়ের জন্য ইংল্যান্ডে পাঠানোর জোর প্রস্তুতিও চলছে। দুই একদিনের মধ্যেই করানো হবে সিটি স্ক্যান, যার রিপোর্ট ইংল্যান্ডের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ স্পোর্টস এক্সারসাইজ এন্ড সাইন্সে’ পাঠানোর পরই সাইফের যাওয়ার সময় সূচী নির্ধারিত হবে।

মূলত বায়োমেকানিক্যাল পর্যবেক্ষণের জন্যই ইংল্যান্ড পাঠানো হবে সাইফ উদ্দিনকে। সেখানে বোলিং টেকনিকে কোন ত্রুটি ধরা পড়লে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে শারীরিক সুস্থতার তাগিদে বদলে ফেলতে হতে পারে ২২ বছর বয়সী এই তরুণের বোলিং টেকনিকও। সেক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের টেকনিক বদলের ফলে আগের মত বোলিং সাফল্য আসবে কিনা এ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। এমন একটি মারাত্মক চোট নিয়েও নিয়মিত ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে যাওয়াই কি চোটের তীব্রতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে সাইফ উদ্দিনের বোলিং টেকনিক বদলের বিষয়টি সামনে আনেন দেবাশীষ চৌধুরী।

gettyimages 910876552 1024x1024

আজ(২৯ সেপ্টেম্বর) মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন,

‘যেহেতু সে বেশ প্রতিভাবান একজন সেক্ষেত্রে কোচ ও টিম ম্যানেজমেন্ট ওকে চাইবে সব ধরণের ক্রিকেটেই ওর উপস্থিতি নিশ্চিত করতে। এখনো পর্যন্ত যেহুতু সে শর্টার ভার্সনে খেলছে, লঙ্গার ভার্সনে খেলতে গেলেই ব্যথাটা ফিরে আসছে। তো ওর ওয়ার্ক লোডটা খুব শক্তভাবে ম্যানেজ করা হচ্ছে। এর বাইরে যদি আমরা তার ওয়ার্ক লোড ম্যানেজ করতে যাই তাহলে ওর ক্ষেত্রে কিছু পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন আছে। বিশেষ করে যেটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা হল বায়োমেকানিক্যাল পর্যবেক্ষণ।’

received 595281400957766
ফাইল ছবি

আর এই বায়োমেকানিক্যাল পর্যবেক্ষণেই বদলে যেতে পারে তরুণ এই অলরাউন্ডারের বোলিং টেকনিক,

‘ওর যে বোলিং টেকনিক সেখানে কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা। সেটার জন্যই মূলত তাকে আমরা ইংল্যান্ডে পাঠানোর চেষ্টা করছি। সেখানে যদি টেকনিক্যাল কোন সমস্যা ধরা পড়ে তাও থেকে যাচ্ছে একটা বড় চ্যালেঞ্জ। একটা বোলার এতদিন এক টেকনিকে বল করেছে হঠাৎ সেটা পরিবর্তন করলে ভালো ফল দিবে কিনা সে নিশ্চয়তা কখনোই দেওয়া যায়না। তারপরও আমরা যদি তার টেকনিক্যাল কিংবা বায়োমেকানিক্যাল কোন সমস্যা ধরতে পারি সেটা ওর পরবর্তী পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় আমাদের সাহায্য করবে। ওর রক্ষনাবেক্ষণ, কীভাবে ওকে আমরা গাইড করবো এসব বিষয়ে তথ্য দিবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বঙ্গবন্ধু বিপিএলঃ ২ মাঠ, ৭ দল, ২৪ দিন, ৪৬ ম্যাচ

Read Next

বল হাতে আবারও উজ্জ্বল সাকিব, প্লে অফে বার্বাডোস

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share