সাইফউদ্দিনের চোট সমাধানে কতটুকু এগিয়েছে বিসিবি?

সাইফউদ্দিন

বাংলাদেশ দলের তরুণ পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের পিঠের চোট বেশ পুরোনো। বয়সভিত্তিক থেকেই এই চোট বয়ে বেড়াচ্ছেন এই তরুণ অলরাউন্ডার, আসলে সমস্যাটা মূলত কোথায় সেটাও বের করা যাচ্ছিলনা। শেষ পর্যন্ত সমস্যা বের করার জন্য বিসিবি দারস্থ হয়েছে ইংল্যান্ডের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ স্পোর্টস এক্সারসাইজ এন্ড সাইন্সের।

চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট সাইফউদ্দিন

বায়োমেকানিক্যাল সমস্যা উদঘাটনের জন্য বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেই সাইফ উদ্দিনের চোট সমাধানের পথ খুঁজছে বিসিবি। আজ (২৯ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক সাইফউদ্দিনের চোট সংক্রান্ত বিস্তারিত কথা বলেন। দুই একদিনের মধ্যেই হবে সিটি স্ক্যান, রিপোর্ট পাঠানো হবে ইংল্যান্ডে।

সাইফউদ্দিনের চোট নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ‘সাইফউদ্দিনের ইনজুরি নিয়ে আমরা বেশ কিছুদিন ধরে চেষ্টা করছি ইংল্যান্ডের যেটা ন্যাশনাল স্পোর্টস এক্সারসাইজ এন্ড সাইন্সে রেফার করার জন্য। সম্প্রতি ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য আমরা কিছুটা পিছিয়ে গিয়েছি, এ সিরিজ শেষে আমরা আবার পুনরায় যোগাযোগ স্থাপন করেছি, ওরাও ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।’

তাদের পরামর্শ মেনেই সাইফ উদ্দিনের চোট পুনর্বাসন প্রক্রিয়া এগোবে উল্লেখ করে দেবাশীষ চৌধুরী যোগ করেন, ‘আপাতত তাদের পরামর্শ অনুসারে আমরা সাইফউদ্দিনের একটা সিটি স্ক্যান করবো। এরপর সিটি স্ক্যানের রিপোর্টটা আমরা ওদের কাছে পাঠাবো। ওটা দেখার পর তারা আমাদের সাথে যোগাযোগ করবে। আমরাও চেষ্টা করছি স্পোর্টস ফিজিশিয়ান, বায়োমেকানিক বিশেষজ্ঞ, পেস বোলিং কোচ সবাইকে একজায়গায় এনে সাইফ উদ্দিনের ব্যাপারে আলোচনা করার ব্যাপারে। এখনো পর্যন্ত সব ইতিবাচকই, রিপোর্ট পাঠানোর পর তারা জানাবে সাইফউদ্দিন কবে যাবে, কি হবে।’

দেবাশিষ চৌধুরী
দেবাশীষ চৌধুরী

২২ বছর বয়সী সাইফের চোটের ধরণ যে বিসিবি ধরতে পারছেনা কিংনা সেরকম ব্যবস্থাও বাংলাদেশে নেই সে ব্যাপারটা তুলে ধরেন দেবাশীষ চৌধুরী। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সাইফউদ্দিনের ইনজুরিটা আসলে এখনো পর্যন্ত আমরা যেটা বুঝলাম সেটা হচ্ছে ওর লাম্বার্ড ফ্যাসেট জয়েন্টে সমস্যা। এ সমস্যাটা যখনই লোড বেড়ে যাচ্ছে বাড়ছে, যখনই লোড কমে যাচ্ছে কমছে।’

এদিকে এখনো পর্যন্ত ২০ ওয়ানডে ও ১৩ টি-টোয়েন্টি খেললেও চোটের কথা মাথায় রেখেই সাইফউদ্দিনকে বিবেচনায় রাখা হচ্ছেনা টেস্ট ক্রিকেটে। তাকে টেস্টে খেলাতে হলে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রয়োজন বললেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক,‘আপাতত ওর ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্ট করেই ওর সমস্যাটা সমাধানের চেষ্টা করছি। তবে এটা সাময়িক সমাধান, আমরা দীর্ঘমেয়াদি যদি ওকে নিয়ে কোন পরিকল্পনা করি, তাকে যদি টেস্ট বা লংগার ভার্সনের ক্রিকেটে চাই সেক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের পরিকল্পনা করতে হবে। যার জন্য বায়োমেকানিক বিশেষজ্ঞ, স্পোর্টস ফিজিশিয়ান ও পেস বোলিং কোচকে নিয়ে একটা বোর্ডের মত গঠন করতে হবে। তাদের পরামর্শমতেই তাকে শর্টার ভার্সন থেকে বের করে লংগার ভার্সনে খেলার উপযোগী করতে হবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন সাকিব-তামিমরা!

Read Next

মিঠুন ও জহুরুলের সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ, ব্যর্থ শান্ত

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share