হুট করে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়াতে অসন্তুষ্ট ক্রিকেটাররা!

বিপ টেস্ট

নতুন কোচের ইশারায় ফিটনেস নিয়ে বেশ সচেতন বিসিবি। জাতীয় লিগের গত আসর থেকেই যুক্ত হয়েছে বিপ টেস্ট, নূন্যতম মানদন্ড ছিল ৯ এবার তা বেড়ে ১১! মূলত প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর খেলোয়াড়দের ফিটনেসে অসন্তোষ থেকেই এমন পরিকল্পনা, তবে নিয়মিত ঘরোয়া লিগ খেলা ক্রিকেটাররা বলছে এমন কিছুর জন্য চাই পর্যাপ্ত সময়।

new face

একদিন আগে বিপ টেস্ট নিয়ে বলতে গিয়ে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ ও অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেল বলেছেন অন্তত লিগ শুরুর একমাস আগে থেকে পরিকল্পনা হাতে নেওয়া উচিত ক্রিকেটারদের বিপ টেস্টের আগে।

হুট করে নেওয়া সিদ্ধান্তে ক্রিকেটাররা যে বিপাকে পড়বেন তা নিয়ে ইতোমধ্যে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল ও অলরাউন্ডার শুভাগত হোমও। বিপ টেস্টে বিসিবির বেধে দেওয়া মানদন্ডে যতটা আপত্তি তার চাইতে বেশি অভিযোগ পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা পাননা বলে। পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা ও বিপ টেস্টের সময় সূচী সম্পর্কে আগাম ধারণা পেলে ১১ তোলাটা ব্যাপার না জানিয়েছে বেশিরভাগ ক্রিকেটারই।

কেমন সুযোগ সুবিধার কথা বলা হচ্ছে এমন প্রশ্নে আশরাফুল বলছেন অন্তত অফ সিজনে ইনডোর কিংবা একাডেমি মাঠে যেন অনুশীলন করতে পারে ক্রিকেটাররা, মোশাররফ রুবেল বলেছেন লিগ শুরুর অন্তত এক মাস আগে থেকে নিজ নিজ বিভাগের অধীনে ক্রিকেটারদের অনুশীলন শুরু করতে পারা। গত কয়েকদিনে ক্রিকেটারদের কথার সারমর্ম তুলে ধরতে গেলে বলতে হয় তাদের চাওয়া অন্তত কোন সিদ্ধান্ত যেন হুট করে চাপিয়ে দেওয়া না হয়, পরিকল্পনা আর যথেষ্ট সময় নিয়ে করলে সেটা যেমন বোর্ডের জন্য ভালো তেমনি ক্রিকেটারদের জন্যও প্রস্তুত হতে সুবিধা হয়। মূলত আসন্ন ঘরোয়া লিগে যে বিপ টেস্টে ১১ পেতে হবে সেটা ক্রিকেটাররা জেনেছে মাত্র ৫-৭ দিন আগেই, এ নিয়েই বর্তমানে ক্রিকেট পাড়ায় যত আলোচনা।

আজ (২৮ সেপ্টেম্বর) মিরপুর একাডেমি মাঠে ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত ও অভিজ্ঞ খেলোয়াড় মোহাম্মদ শরীফও জানিয়েছেন একই কথা। পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার জন্য অবশ্যই সময় দিতে হবে। ৩৩ বছর বয়সী এই ডানহাতি পেসার জানান, ‘এটা হুট করে যখন আসলে বলা হয় তখন নিজেদের প্রস্তুত করা কঠিন। ঘরোয়া লিগে যদি এমন পরিকল্পনা থাকেই সেটা বাস্তবায়নের জন্য আগে থেকেই জানানো উচিত। অন্তত একমাস আগে নিজ নিজ বিভাগকে আলাদা করে দিয়ে যদি বলা হয় লিগ শুরুর ৫-৭ দিন আগে আমরা বিপ টেস্ট নিবো সেক্ষেত্রে যারা জাতীয় দলের বাইরে ঘরোয়া লিগ খেলে তাদের জন্য সুবিধা হয়। ৭ দিন আগে জানালে অনেকেই দিতে পারবে তবে সেটা কষ্টকরই হয়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

এবার কাঠগড়ায় ঘরোয়া লিগের বলও!

Read Next

বল হাতে সাকিবের নজরকাড়া পারফরম্যান্স

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share