এবার কাঠগড়ায় ঘরোয়া লিগের বলও!

তানবীর হায়দার মোহাম্মদ শরীফ

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠা নিয়মিত ব্যাপার। আরেকটি জাতীয় লিগ সামনে রেখে কাঠামোগত নানা দিকই চলে আসছে সামনে। মাঠ, উইকেট নিয়ে অভিযোগটা পুরোনো এবার বলের মান নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন পেসার মোহাম্মদ শরীফ।

তানবীর হায়দার মোহাম্মদ শরিফ
ফাইল ছবিঃ বিসিবি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আর ঘরোয়া ক্রিকেটের পার্থক্যটা স্বাভাবিক। তবে নির্দিষ্ট একটা মান বজায় রাখার ক্ষেত্রে বোর্ডকে হতে হয় সচেতন, অথচ বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট মানেই নানা বিতর্ক আর অভিযোগ। প্রতিবারই স্পোর্টিং উইকেটের আশ্বাস দিলেও বাস্তবায়ন হয়না সেসব আশ্বাস। একদিন আগেই অলরাউন্ডার শুভাগত হোমও জানিয়েছেন আসলেই এবার উইকেটে পরিবর্তন আসবে কিনা এ নিয়ে তিনি আছেন সংশয়ে। আজ (২৮ সেপ্টেম্বর) মিরপুরে একাডেমি মাঠে অনেকটা একই রকম মন্তব্য ঘরোয়া লিগের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মোহাম্মদ শরীফের।

উইকেট প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময় বলে আসছি স্পোর্টিং উইকেট দেওয়ার জন্য। আপনি দেখেন আমাদের যে শারীরিক গঠন ও গতি আর যে পরিবেশে খেলি কোনটাই দক্ষিণ আফ্রিকা বলেন কিংবা ইংল্যান্ড বলেন তাদের পর্যায়ের না। আমরা অনেক দিক দিয়েই তাদের থেকে পিছিয়ে, সেক্ষেত্রে একমাত্র উইকেট থেকে ফায়দা নিতে পারি। যেটা আমাদের ব্যাটসম্যানদের জন্যই সুবিধা, প্রতিবারই আশ্বাস দেওয়া হয় তবে মাঠে গেলে সেটা আর পাওয়া যায়না।’

মোহাম্মদ শরীফ
ছবিঃ ক্রিকেট৯৭

৩৩ বছর বয়সী এই পেসারের অভিযোগের তালিকায় কেবল উইকেটই নয় আছে বলের মানও। বাংলাদেশের হয়ে ১০ টেস্ট ও ৯ ওয়ানডে খেলা এই পেসার ভালো মানের বল প্রসঙ্গে বলেন, ‘আরেকটা জিনিস জানিনা আসলে বলা ঠিক হবে কিনা সেটা হল বল। বল অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার, অনেকসময় উইকেট শুকনো থাকে কিন্তু বলটা নরম হয়। সেক্ষেত্রে উইকেট ও বলের সংমিশ্রণে ভালো ফল আসেনা।আমরা যে বল দিয়ে খেলি এসজি, আমি জানিনা এটা টপ লেভেলে গ্রেড ওয়ান মানের বল কিনা। হলেও হতে পারে হয়তো আমরা যেটা পাই সেটা পুরোনো। অনেক সময় আগের বল থেকে যায় সেটা দিয়েই চালিয়ে দেওয়া হয়, এটা বল প্রস্তুতকারকও হয়তো জানেনা।’

ভালো মানের বলের দিকে নজর দেওয়া উচিত উল্লেখ করে তিনি আরও যোগ করেন, ‘আপনি যদি গত কয়েকয়টি ম্যাচের কিংবা ২-৩ বছরের রেকর্ড দেখেন দেখবেন ৪-৫ ওভার পরই নতুন বল পরিবর্তন করতে হচ্ছে। আমার কথা হল বলটা গুরুত্বপূর্ণ, এ জায়গাটায় নজর দেওয়া উচিত, তাহলে বল ও উইকেট মিলিয়ে কিছুটা সুবিধা পাওয়া যাবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

বিপ টেস্ট নয়, ম্যাচ ফিটনেসেই নজর মোহাম্মদ শরীফের

Read Next

হুট করে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়াতে অসন্তুষ্ট ক্রিকেটাররা!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share