বোর্ডের সিদ্ধান্তে ইতিবাচক আশরাফুল, মোশাররফ তবে সংশয় আছে শুভাগত হোমের

আশরাফুল

বাংলাদেশের ঘরোয়া লিগের কাঠামো নিয়ে প্রশ্ন ওঠা নিয়মিত ব্যাপার। তবে জাতীয় লিগের আসন্ন আসর দিয়ে ধারায় পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছে বিসিবি। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলোয়াড়দের ফিটনেস , উইকেট ও জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণে বাধ্যবাধকতা করা সহ নানা দিকেই শক্ত অবস্থান বিসিবির। তবে মাঠের ক্রিকেট শুরু হলেই বোঝা যাবে নিজেদের অবস্থানে কতটা টিকতে পারছে বোর্ড। মাঠের লড়াই শুরুর আগে নিয়মিত ঘরোয়া লিগ খেলা ক্রিকেটাররা দেখছেন এসবকে ইতিবাচক হিসেবেই, তবে কিছু জায়গায় রয়েছে সংশয়ও।

মোহাম্মাদ আশরাফুল
ফাইল ছবিঃ সংগৃহীত

জাতীয় লিগ সামনে রেখে মিরপুরের একাডেমি মাঠে বাড়ছে ক্রিকেটারদের ব্যস্ততা। সকাল থেকেই অনেক ক্রিকেটারই নিজে দায়িত্বে শুরু করেছেন অনুশীলন। একাডেমির মাঝ উইকেটে লম্বা সময় ঘাম ঝরিয়েছেন ছুটি কাটিয়ে ফেরা ওপেনার তামিম ইকবালও। তামিম কোন ব্যাপারেই সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা না বলতে চাইলেও জাতীয় লিগ নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেছেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল, অলরাউন্ডার শুভাগত হোম ও ব্রেইন টিউমারের সাথে লড়াই করা মোশাররফ রুবেল।

প্রায় সব ঘরোয়া মৌসুমের আগেই বলা হয় উইকেট নিয়ে সতর্ক হচ্ছে বোর্ড অথচ প্রতিবারই একই চিত্র। ফ্ল্যাট উইকেটে খেলা, রানের বন্যা বয়ে যাওয়া টুর্নামেন্টে বোলারদের করার থাকেনা কিছুই। এবারও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে পরিবর্তন হতে যাচ্ছে উইকেট। তবে এ নিয়ে বেশ সন্দিহান শুভাগত হোম, ‘হ্যা প্রতিবারই শুনি ঘাসের উইকেটে খেলা হবে। উইকেটে ঘাস থাকে কিন্তু উইকেট অনেক নরম থাকে ফলে টস জেতা দল সুবিধা পায়। আমাদের কথা হল ঘাসের উইকেট হোক, বাউন্সি উইকেটই হোক যেন শুকনো থাকে তাহলে সবার জন্য ভালো।’

উইকেটের আদৌ পরিবর্তন হচ্ছে কিনা সেটা লিগ শুরুর পরই বোঝা যাবে, তবে আপাতত ফিটনেস নিয়ে বিসিবির কড়া হওয়াকে ইতিবাচক চোখেই দেখছেন ঘরোয়া লিগের শীর্ষস্থানীয় খেলোয়াড়দের একজন মোশাররফ রুবেল। বাঁহাতি এই স্পিনার বলেন, ‘আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের কাঠামো উন্নতিতে এটা জরুরী ছিল আরও অনেক আগে থেকেই। সেটা এবার থেকে হচ্ছে এটা ভালো লক্ষণ, আসলে ঘরোয়া ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার মত ফিটনেস নিয়ে না খেললে মানিয়ে নিতে কষ্ট হয় ভবিষ্যতে।’

এদিকে বেশ দীর্ঘ সময় পর জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের পাওয়া যাবে জাতীয় লিগে । একদিকে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ব্যস্ততা নেই অন্যদিকে বোর্ডের কড়া নির্দেশ জাতীয় দলের খেলা ও ক্যাম্প না থাকলে অবশ্যই খেলতে হবে জাতীয় লিগ। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের উপস্থিতিতে লিগের মর্যাদা বাড়বে বলে মনে করেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল, ‘হ্যাঁ অবশ্যই, এতদিন কিন্তু জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা জাতীয় লিগ খেলার সুযোগই পেতনা। এবার অন্তত প্রথম দুই রাউন্ডে জাতীয় দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই খেলবে। এটা অন্যরকম একটা চ্যালেঞ্জ, জাতীয় দলের তারকা খেলোয়াড়েরা খেললে টুর্নামেন্ট আসলেই অন্যরকম একটা মর্যাদা পায়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘বিপ টেস্ট’ নিয়ে যা বললেন আশরাফুল-রুবেল-শুভাগত

Read Next

মাঠের সাথে জীবনের লড়াইটাও চালিয়ে যাচ্ছেন রুবেল

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share