‘আফগানিস্তানের কাছ থেকে শেখার কিছু নেই’

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কা সফরে ভরাডুবি, দেশের ক্রিকেটকে চাঙ্গা করতে জয়ের খোঁজে মরিয়া সাকিব আল হাসান। কিন্তু আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টেই পড়েছেন মুখ থুবড়ে। ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয়, আফগানদের সাথে প্রথম দেখাতেই হার! পরের দুই ম্যাচে জিতলেও উন্নতি জায়গা ছিল স্পষ্ট, নবাগত আফগানদের কাছে শেখার আছে কি বাংলাদেশের? মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সরাসরি উত্তর – না!

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ
ফাইল ছবি

বিশ্ব ক্রিকেটে প্রতিনিয়ত নিজেদের প্রমাণ করে চলেছে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে ক্রিকেট খেলুড়ে দেশ বলে পরিচিতি পাওয়া আফগানিস্তান। ওয়ানডে, টেস্ট, টি-টোয়েন্টি সব ফরম্যাটেই দেখাচ্ছে প্রতিভার ঝলক, পাচ্ছে নিয়মিত সাফল্য। দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলা বাংলাদেশ যেখানে তিন ফরম্যাটে আলাদা ক্রিকেটার খুঁজতে দিশেহারা, আফগানরা ফরম্যাট বিবেচনায় এখনই আলাদ ক্রিকেটার নিয়ে দল গড়ে।

চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশকে নাকানিচুবানি খাইয়ে যেন শেখাতে চেয়েছে টেস্ট ক্রিকেটটা এভাবে খেলতে হয়! এদিকে টি-টোয়েন্টিতে দু দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে আফগানিস্তানের চার জয়ের বিপরীতে বাংলাদেশের দুটি, ওয়ানডেতেও সাফল্য মন্দ নিয় রাশিদ, নবিদের। চাইলে ইতিবাচক ভাবেই বাংলাদেশ শিক্ষা নিতে পারে আফগানদের কাছ থেকে। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলছেন, ‘না, আমি মনে করিনা আফগানিস্তানের কাছে থেকে আমাদের শেখার কিছু আছে। হ্যাঁ তারা সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের বিপক্ষে ভালো করেছে। তবে তাদের কৃতিত্ব দেওয়ার পাশাপাশি বলতে চাই আমরাই বাজে ক্রিকেট খেলেছি, আমরা আমাদের খেলাটা খেলতে পারিনি।’

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট থেকে ত্রিদেশীয় সিরিজ, পুরো সময়টায় নিজেদের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করতে গিয়ে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার বলেন, ‘টেস্টে হতাশার ছিল, আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি আমাদের দল এর চেয়ে ভালো করার সামর্থ্য রাখে। যখন টেস্ট ম্যাচ শেষ হওয়ার পর নিজেদের মধ্যে কথা হল, কোচও কথা বলল তখন আস্তে আস্তে আমরা চিন্তা করলাম আমাদের শক্তভাবে ফিরতে হবে। তারপর আফগানিস্তানের সাথে প্রথম ম্যাচটা হারলাম, সত্যি বলতে আমরা মানসিকভাবে পিছিয়ে ছিলাম। তারপরও সবার মধ্যে যে স্পৃহা ছিল সেটা কাজে দিয়েছে দল হিসেবে। এ জিনিসটা যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেটাই সম্ভবত আমাদের বিবেচনায় নিতে হবে।’

রিজার্ভ ডে না থাকায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে মাঠের লড়াই ছাড়াই ভাগাভাগি হয়েছে শিরোপা। রিজার্ভ ডে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে রিয়াদ টেনে আনেন সাম্প্রতিক সময়ে দলের হতাশার জায়গাগুলোও, ‘একজন ক্রিকেটার হিসেবে আমি রিজার্ভ ডে থাকলে ভালো হত মনে করি। আমরা ফাইনালটা খেলতে পারতাম, যেটা আমাদের ক্রিকেটের জন্যই ভালো হত। সবমিলিয়ে চিন্তা করলে বলতে হবে হতাশার জায়গাটাই বেশি, আমি আগেও বলেছি আমি যেটা বিশ্বাস করি আমাদের যতটুক সামর্থ্য ছিল সে অনুযায়ী আমরা পারফর্ম করতের পারিনি। আমার মনে হয় যে ওই সামর্থ্য অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারলে হয়তবা আরও ভাল পারফরম্যান্স আমরা দেখাতে পারতাম সব বিভাগেই।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

দর্শকদের জন্য বিসিবি বসের দুঃখ প্রকাশ, বিপিএল নিয়ে দিলেন তথ্য

Read Next

জাতীয় লিগ খেলবে সব ক্রিকেটারই

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share