সাবেক ক্রিকেটারদের মাশরাফির ধন্যবাদ

featured photo1 1 32
Vinkmag ad

bd

ইংল্যান্ডের কাছে অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়ের মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের। ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিলো বাংলাদেশ। তবে আইসিসির বড় কোনও টুর্নামেন্টে এই প্রথম শেষ চারে খেলবে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের পর সবথেকে বড় আসরে সেমিফাইনালের টিকিট পাওয়ার পর অধিনায়ক মাশরাফি ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটারদের। 

বাংলাদেশের ক্রিকেট এই জায়গায় আসতে সাবেক বর্তমান সবার অবদানই রয়েছে। নাঈমুর রহমান, হাবিবুল বাশার, আমিনুল ইসলাম বুলবুল, আকরাম খান, মোহাম্মদ রফিকসহ অতীতে যাদের গড়ে দেওয়া ভিতের উপর দাঁড়িয়ে আজকের বাংলাদেশ ক্রিকেট তাদের কথাও স্মরণ করেছেন তিনি। অধিনায়ক জানান, ‘যারা অতীতে ক্রিকেট খেলেছেন তারাই সবথেকে বেশি ধন্যবাদ পাবেন। এখনকার বাংলাদেশ ক্রিকেট এই জায়গায় এসেছে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে। এখন হয়তো দলে তারকার অভাব নেই কিন্তু আমার মতে, একটা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই বাংলাদেশ ক্রিকেট এই জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছে।’

ক্রিকেটার মাশরাফি বাংলাদেশের ক্রিকেটকে এমন জায়গাতেই দেখতে চেয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি একজন ক্রিকেটার হিসেবে দেখতে চেয়েছিলাম বাংলাদেশের ক্রিকেট একদিন এই জায়গায় আসবে। শিরোপা জিতলেও বা বিশ্বের এক নম্বর দল হলেও উন্নতির জায়গা অব্যাহত থাকে। আমরা এখন মাত্র ভালো খেলা শুরু করেছি। ভালো খেলার ধারাবাহিকতা ধরে রাখাই আমাদের দায়িত্ব।’

মাশরাফির অধিনায়কত্বেই গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার ‘মিনি বিশ্বকাপ’ খ্যাত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালও নিশ্চিত হয় তার নেতৃত্বেই। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মতো টুর্নামেন্টে টাইগারদের এই অর্জনে খেলোয়াড় হিসেবে গর্বিত মাশরাফি। বাংলাদেশকে শেষ চারে দেখার স্বপ্ন পূরণ হওয়া অধিনায়কের অনুভূতি, ‘এটা আমাদের জন্য বড় এক অর্জন। ক্রিকেটার হিসেবে গর্বিত হওয়ার পাশাপাশি অধিনায়ক হিসেবেও এটা বড় অর্জন বলতে পারি। আমার অধিনায়কত্বে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠেছে। আমার এর থেকে বেশি আর কী চাওয়ার ছিল। আমি সবসময়ই দলকে এই অবস্থায় দেখতে তাকিয়ে ছিলাম।’

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কে তা এখনো নিশ্চিত হয়নি। তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে যেই আসুক লড়াই করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। মাশরাফির বিশ্বাস, এবারের সেমিফাইনাল তরুণ ক্রিকেটারদের স্বপ্নকে আরও বড় করার পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। শেষ চারের লড়াই নতুনদের সামনের দিকে আরও বড় স্বপ্ন দেখতে সাহায্য করবে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে ভারতের দরকার ১৯২

Read Next

ফাইনাল খেলাও সম্ভবঃ খালেদ মাসুদ

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share