তরুণদের অধিনায়ক করার পক্ষে খালেদ মাহমুদ সুজন

খালেদ মাহমুদ সুজন

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর থেকেই বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে আলোচনার খোরাক জুগাচ্ছে নানা বিষয়। যার মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে সাকিব আল হাসানের অধিনায়কত্বে অনাগ্রহ প্রকাশ একটি। এ নিয়ে বোর্ড ও গণমাধ্যমেও হচ্ছে নানা আলোচনা সমালোচনা। তবে আজ (১৪ সেপ্টেম্বর) গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন এ প্রসঙ্গে কথা বলেছেন বাস্তবতা তুলে ধরেই, তরুণদের অধিনায়কত্বে আনার ব্যাপারেও দিয়েছেন নিজের যুক্তি।

খালেদ মাহমুদ সুজন
ছবিঃ সংগৃহীত

বাংলাদেশ ক্রিকেটে সাকিবের গুরুত্ব হয়তো বোঝানো সম্ভব নয়, আর অভিজ্ঞতায় টইটুম্বুর অধিনায়ক সাকিবের বিকল্প যে বর্তমানে নেই সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। কিন্তু খোদ সাকিবই যখন খেলোয়াড় হিসেবে বাড়তি কিছু দেওয়ার তাড়নায় ছাড়তে চান অধিনায়কত্ব তখন নতুন করে ভাবতে হয় অনেক কিছুই।

সাকিবের কাছ থেকে ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত কিছু পেতে অধিনায়কত্বের জায়গাটায় ছাড় দিতে চান খালেদ মাহমুদ সুজন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সাকিব আমাদের সেরা অধিনায়কদের একজন। তার ক্রিকেটীয় দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোন সুযোগ নাই। সে যদি উপভোগ না করে, সেক্ষেত্রে তো একটা প্রশ্নের উদ্ভব হয়ই। সে যেটা বলল পারফরম্যান্সের জন্য ভালো হয় অধিনায়কত্ব ছাড়াটা। আমরাতো চাই সে সেরা পারফরম্যান্স করুক, বিশ্বকাপে একাই দলকে টেনেছে।’

সাকিবের অধিনায়কত্ব ছাড়ার ইস্যুতে একদমই নড়বড়ে নয় খালেদ মাহমুদের চিন্তাভাবনা। বাস্তবতা তুলে ধরে সিনিয়রদের অধিনায়কত্বে অনাগ্রহ থাকায় তরুণদের আনার পক্ষে সাফাই গাইলেন বোর্ডের এই অন্যতম কর্তা, ‘অধিনায়কত্ব করার মত তিন চারজনই আছে। সাকিব, রিয়াদ, মুশফিক। মাশরাফি একটা সংস্করণে আছে , আর বাকী তামিম। এরা যদি করতে না চায় তাহলে তরুণ কাউকেই ডাকতে হবে। এরা যদি ২২ বছর বয়সে অধিনায়কত্ব করতে পারে, দলে এখন আরও অনেকেই আছে ২২ বছর বয়সে অধিনায়কত্ব করার মত। আমরা সেটা দেখিনা কারণ আমরা এক জায়গাতেই পড়ে আছি।’

কিন্তু সাকিব-রিয়াদদের মত সিনিয়ররা তরুণদের অধীনে খেলতে কতটা স্বাচ্ছন্দবোধ করবেন সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হলে অনেকটা কড়া সুরেই কথা বলেন খালেদ মাহমুদ, ‘তারা নিজেরাও অধিনায়কত্ব করবেনা আবার অন্যের অধীনেও খেলবেনা তাহলে বাংলাদেশ দল চলবে কীভাবে? সাকিবতো আর সারাজীবন থাকবেনা অবসরে যাবে। তরুণদের নিয়ে ভাবতে হবে আপনাকে। তবে সে দলে থিতু কিনা সেটা দেখতে হবে। ওয়ানডেতে মিরাজ আছে টেস্টে সাদমান। এখন আপনি যদি ভাবেন দুই টেস্ট খেলেছে তাই অধিনায়ক করা যাবেনা সেটা কথা হতে পারেনা। এত সমস্যা হলে অনূর্ধ্ব ১৯ দলের অধিনায়কত্ব করা আকবর আলি অধিনায়কত্ব করছে তাকে দিয়ে করান।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

হঠাৎ স্কোয়াডে ডাক পেলেন আবু হায়দার রনি

Read Next

জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে শক্তিমত্তার প্রমাণ দিলো আফগানিস্তান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
8
Share