বিরক্ত লাবুশানে, অ্যাশেজে ‘বেল’ ছাড়া স্টাম্পেই খেলা চললো!

বেয়ারস্টো লাবুশানে

পাড়ার ক্রিকেটে হরহমেশায় দেখা যায় বেল ছাড়া স্টাম্প। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তাও আবার অ্যাশেজের মত সিরিজে খেলা হচ্ছে বেল ছাড়া, ভাবা যায়? হ্যাঁ, গতকাল ওল্ড ট্রাফোর্ডে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড চতুর্থ টেস্টের প্রথমদিনে এমনটাই হয়েছে। দিনশেষে এ নিয়ে বিরক্তিও প্রকাশ করেছেন দিনের সেরা ব্যাটসম্যান লাবুশানেও।

লাবুশানে বেয়ারস্টো

কনকনে শীতের সাথে প্রচন্ড বাতাস। বৃষ্টিতে খেলা শেষ হওয়ার আগে বেশ বেগ পেতে হয়েছে অজি ব্যাটসম্যানদের। বিশেষ করে ক্রিজে লম্বা সময় কাটানো লাবুশানে দিনশেষে জানিয়েছেন কতটা সংগ্রাম করতে হয়েছে। দলের পক্ষে এখনো পর্যন্ত ১২৮ বলে ৬৭ রান করে হয়েছেন আউট।

আউট হওয়ার আগে স্টিভ স্মিথের সাথে ১১৬ রানের জুটি গড়ে দলকে করেছেন বিপদমুক্ত। কিন্তু বাতাসের সাথে লড়াই করতে গিয়ে মনযোগে বেশ কবারই চিড় ধরেছিল লাবুশানের। বাতাসের সাথে গ্যালারি থেকে উড়ে আসা খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট ও বীচ বলও সরাতে হয় ক্রিজে দাঁড়িয়ে। তবে এসব পর্যন্ত নাহয় ঠিকই ছিল কিন্তু বাতাসে যদি ব্যাটিং করার সময়ই বেল পড়ে যায় কেমন হয়?

বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত ৪৪ ওভার খেলা হয়, এতেই কয়েকবার বাতাসে বেল পড়ে যায়। এক পর্যায়ে দুই আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা ও মারাইস এরাসমাস সিদ্ধান্ত নেন বেল ছাড়াই হবে খেলা, হয়েছেও তাই। তবে সেটা আইসিসি নিয়ম মেনেই,আইসিসি আইনের ৮.৫ অনুচ্ছেদ বলছে প্রয়োজনে আম্পায়ার বেল ছাড়াই খেলা চালাতে পারবেন। সেক্ষেত্রে অবশ্য দু প্রান্তের বেলই তুলে নিতে হবে।

অবশ্য বেশিক্ষণ এভাবে খেলা চালাতে হয়নি, মাত্র ৯ বল খেলা চলে বেল ছাড়া। বাতাসের সাথে সংগ্রামের ব্যাপারে লাবুশানে বলেন, ‘এমন পরিস্থিতিতে আমি কখনোই খেলিনি। কন্ডিশন নিয়ে সবাই হতাশ ছিল। বাতাসে বারবার বেল পড়ে যাচ্ছিলো আমার মনে হচ্ছিলো আমিই বুঝি ফেলে দিচ্ছি বেল। পরে দেখি বেল ঠিক জায়গাতেই আছে। চিপস ও বীচবলও সরাতে হয়েছে ব্যাট দিয়ে। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাট করা সত্যি কঠিন, ইংল্যান্ডও এ নিয়ে বেশ বিরক্ত ছিল। বেল ছাড়া ব্যাটিং করা অভিজ্ঞতাও অন্যরকম।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

স্মিথের ব্যাটে রানের ফোয়ারা ছুটেই চলেছে, স্বস্তিতে অজিরা

Read Next

একাদশ সাজানোর খেলোয়াড়ই পাচ্ছেনা সিরিজ জেতা নিউজিল্যান্ড!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
5
Share