পেসারদের নিয়ে সন্তুষ্ট ল্যাঙ্গেভেল্ট, বেশি প্রশ্ন করেন এবাদত

ল্যাঙ্গেভেল্ট এবাদত রাহি

বাংলাদেশের পেস বোলিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ল্যাঙ্গাভেলেটের প্রথম এসাইনমেন্টটা আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ম্যাচ। ইতোমধ্যে কাজ করেছেন কন্ডিশনিং ক্যাম্পসহ বেশ কয়েকদিন। গতকাল ৩১ আগস্ট মিরপুরে দু দলে ভাগ হয়ে টাইগারদের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে শিষ্যদের নিয়ে নিজের মুল্যায়ন করেছেন নবনিযুক্ত পেস বোলিং কোচ। জানিয়েছেন শিস্যদের উপর সন্তুষ্টির কথা, পেসাররা শিখতে চায় যা মুগ্ধ করেছে বেশ।

519A9671
ছবিঃ বিসিবি

বাংলাদেশ দল আজ (১ সেপ্টেম্বর) বিকালেই টেস্ট ম্যাচের ভেন্যু চট্টগ্রামে পৌঁছাবে। এর আগে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার অংশ হিসেবে মিরপুরে দুই দলে ভাগ হয়ে খেলেছেন দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ। যার শেষটি ছিল গতকাল (৩১ আগস্ট)। এর একদিন আগেই ৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। স্পিন নির্ভর বাংলাদেশ দলে সুযোগ পেয়েছেন তিন পেসার আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, তাসকিন আহমেদ ও এবাদত হোসেন। চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ার আগেরদিন দিন কয়েকের দেখায় পেসারদের সম্পর্কে নিজের অভিব্যক্তি তুলে ধরলেন গুরু ল্যাঙ্গেভেল্ট।

বাংলাদেশে এসেই ল্যাঙ্গেভেল্ট জানিয়েছেন নতুন বলে ভালো করার গুরুত্ব। আর স্বল্প সময়ে সেটা নিয়েই করেছেন কাজ, উন্নতিটাও নাকি সন্তুষ্ট করেছে তাকে। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ল্যাঙ্গেভেল্ট বলেন, ‘তারা খুব ভালো বল করছে। ঠিক জায়গায় বল ফেলছে। আমার জন্য আনন্দের বিষয় তারা নতুন বল নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে। এটা নিয়ে আরও কাজ করতে হবে। ওদের গতি আছে , আমার কাছে আসল কাজ নিয়ন্ত্রণ। গতি থাকলে সেটা নিয়ন্ত্রণ করা শিখতে হবে।’

519A9720
ছবিঃ বিসিবি

যেকোন ক্ষেত্রেই শিক্ষকের ভালো লাগা বাড়িয়ে দেয় শিষ্যের জানতে চাওয়ার আগ্রহটা। আর এ জায়গায় বেশ ভালোই সাড়া পাচ্ছেন ল্যাঙ্গেভেল্ট, প্রাক্তন বোলিং কোচ যেখানে ছিলেন ব্যর্থ। এবাদত, তাসকিন , মুস্তাফিজরা যেন প্রশ্নের ঝাঁপি খুলে বসে আছেন পেস বোলিং কোচের কাছে জানতে চেয়ে। সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন আসে এবাদতের কাছ থেকে উল্লেখ করে ল্যাঙ্গেভেল্ট যোগ করেন, ‘এবাদত সম্ভবত আমাকে সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন করে। ফিজের শুরুটা ভালো। হয়তো ভিন্নধর্মী প্রশ্ন করবে আমাকে। আর তাসকিন তো প্রশ্ন করতেই থাকে। প্রায় সবাই আমাকে নানা বিষয়ে জিজ্ঞেস করে।’

চট্টগ্রাম টেস্টের পিচ কেমন হতে যাচ্ছে সেটা বলা মুশকিল। তবে অতীত পরিসংখ্যান আর বাংলাদেশের শক্তির জায়গা বিবেচনায় স্পিননির্ভরই হওয়ার কথা সেক্ষেত্রে তিন পেসার থেকে সুযগ মিলতে পারে সর্বোচ্চ দুজনের, পরিস্থিতি বিবেচনায় খেলানো হতে পারে একজনকেও। তবে এসব নিয়ে না ভেবে নিজের শিষ্যদের সবসময়ের জন্য প্রস্তুত রাখাতেই মনযোগ ল্যাঙ্গেভেল্টের, ‘এটা অধিনায়কের চাওয়া। ম্যানেজমেন্ট যা চাইবে তাতেই আমি খুশি। আমার কাজ পেসারদের প্রস্তুত রাখা। অধিনায়ক যদি এক পেসার চায় তবে সেটিই হবে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দিনের শেষভাগে আল আমিন জুনিয়রের বাজিমাত

Read Next

প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির পর বাবাকে নিয়ে আবেগপ্রবণ হনুমা বিহারি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share