কার্ডিফে প্রেরণা পাবে মাশরাফিরাঃ হাবিবুল বাশার

featured photo1 16
Vinkmag ad

এবারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশ থেকে চ্যাম্পিয়ন অ্যাম্বাসেডর হিসেবে আছেন হাবিবুল বাশার। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশের বিভিন্ন দিক নিয়ে ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি’র ওয়েবসাইটে নিয়মিত কলাম লিখছেন হাবিবুল বাশার। আগামীকালের ম্যাচকে সামনে রেখে টাইগারদের সম্ভাবনা নিয়ে লিখেছেন তিনি।

আগামী ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে হারালেই হবেনা টাইগারদের। চোখ রাখতে হবে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচেও। ওখানে কামনা করতে হবে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের জয়। হাবিবুল বলেন,  ‘কার্ডিফের শেষ ম্যাচটা জিততেই হবে বাংলাদেশকে; শুধু তারা কেন, জয় পেতে হবে তাদের প্রতিপক্ষকেও।’

বোলিং নিয়ে একটু দুশ্চিন্তাতে হাবিবুল বাশার। বৃষ্টিই আমাদের সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে মনে করিয়ে দিয়ে বাশার বলেন,  ‘ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ব্যাটিং ভালো হলেও বোলিং ভালো হয়নি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে অসাধারণ তামিম ইকবাল ছাড়া ব্যাটিংয়ে পুরোপুরি ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ, যদিও নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছে। ওই ম্যাচে সহজ লক্ষ্য থেকে অস্ট্রেলিয়া খুব একটা দূরে ছিল না, কিন্তু বৃষ্টিতে ম্যাচ ভেসে গেলে পরের রাউন্ডে ওঠার দুর্দান্ত সুযোগ তৈরি হয়ে যায় বাংলাদেশের।’

পারফরম্যান্স আশাব্যাঞ্জক না হলেও ক্রিকেটারদের প্রতি ভরসা রাখছেন সাবেক এই অধিনায়ক। তিনি বলেন,  ‘আগেও বলেছি আমার মনে হয় না বাংলাদেশের দক্ষতা কিংবা ক্ষমতা নিয়ে কোনও প্রশ্ন উঠতে পারে। অভাব যেটা আছে সেটা হলো- আগ্রাসী মনোভাব, ইতিবাচক মনোভাব ও হারের পর ভয়ডরহীনভাবে খেলার। সিনিয়র খেলোয়াড়রা এক দশকেরও বেশি সময় ধরে খেলছেন একসঙ্গে, সময় হয়েছে তাদের এই ধরনের বড় মঞ্চে নিজেদের মান বিশ্বকে দেখানোর। আর সেটার জন্য আগের দুই ম্যাচ পেছনে ফেলে স্বাধীন ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে এই ম্যাচে নামতে হবে।’

২০০৫ সালে এই কার্ডিফেই অস্ট্রেলিয়া বধ করেছিলো হাবিবুল বাশারের দল। ঐ দলের অংশ ছিলেন বর্ত্মান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। স্মৃতিচারণ করে বাশার বলেন,  ‘২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যখন আমরা জিতেছিলাম, ওই ম্যাচে খেলা একমাত্র মাশরাফি আছেন এবারের দলে। ওটা ছিল আমাদের অন্যতম বড় জয়। ওই ম্যাচের সৌভাগ্যবান অধিনায়কই কেবল নই আমি, বরং ৫ উইকেটের জয়ের পথটা তৈরি করতে মোহাম্মদ আশরাফুলের সঙ্গে গড়েছিলাম ১৩০ রানের জুটি।’

আগামীকালের ম্যাচে সতীর্থদের ঐ ম্যাচ নিয়ে গল্প করে তাদের মনোবল বাড়িয়ে দিবেন মাশরাফি, এমনটিই মনে করেন বাশার। বাশার বলেন,  ‘আমি নিশ্চিত মাশরাফি তার তরুণ সতীর্থদের ওই জয় সম্পর্কে বলবেন। সুখস্মৃতিতে ভরপুর এই ভেন্যু অনুপ্রাণিত করবে খেলোয়াড়দের আরও ভালো খেলতে- মাশরাফির সঙ্গে গোটা বাংলাদেশের চাওয়াও থাকবে এটা।’

তবে ইংল্যান্ডে ম্যাচের ফলাফল আসতে তাকিয়ে থাকতে হবে আবহাওয়ার দিকেও। বাশার এই সম্পর্কে বলেন,  ‘দুর্দান্ত এক ম্যাচ হতে যাচ্ছে। অবশ্য তার জন্য আবাহাওয়ার অনুমতি তো লাগবেই!’

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer- Cricket97

Read Previous

‘হাই পারফরম্যান্স’ দল ঘোষণা

Read Next

“এখনো অনেক কিছু শেখার বাকি আছে”-রনি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share