ওভালের উইকেটে তিনশ রান দিলেও ভালো বোলিং

featured photo1 1 10
Vinkmag ad

IMG 9530

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে বড় সংগ্রহ করেও হেরে যায় বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে উইকেট থেকে তিক্ত অভিজ্ঞতাই পেয়েছে টাইগার বোলাররা। উইকেটের ধরণ নিয়ে মুস্তাফিজ, রুবেল, সাকিবসহ দলনেতা মাশরাফির ব্যাখ্যাও একই

বেরিল্যান্ড লন্ডন স্কুল অফ ইকোনোমিকসের খেলার মাঠে অনুশীলন শেষে দেশের সফলতম ওয়ানডে বোলার প্রথম ম্যাচের উইকেটের আচরণ সম্পর্কে বিশদভাবেই তুলে ধরেন। অনুশীলনের পাশে নেটের দিকে ইশারা করে মাশরাফি বলেন, ‘এখানকার উইকেটের মতো হলেও চলে। নেটের উইকেটগুলো ব্যাটিং উইকেট হলেও বোলারদের জন্য কিছু আছে। কিন্তু ওভালের উইকেটে বিন্দুমাত্র কিছু নেই।’ শুধু ওভালই না, এজবাস্টনসহ ইংল্যান্ডের অন্যান্য মাঠেও পেসাররা অসহায়। মাশরাফির মতে, ‘এজবাস্টনে দেখেন, সেখানে মিচেল স্টার্ক সুবিধা করতে পারেনি। হেইজেলউড শেষ ওভারে ৩টি সহ ৬ উইকেট নিলেও শুরুতে রান দিয়েছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা- ইংল্যান্ড সিরিজে কত রান হলো। আমাদের থেকে তাদের পেস আক্রমণ অনেক ভালো। এরপরেও কিছু করতে পারছে না। ইংল্যান্ডে সাড়ে তিনশও এখন নরম্যাল হয়ে গেছে।’

অধিনায়ক মাশরাফি অবশ্য অপেক্ষায় আছেন ভারতীয় পেসারদের পারফরম্যান্স দেখতে। তিনি জানান, ‘আমি অপেক্ষায় আছি ভারতীয় পেসারদের দেখতে। তাদের পেস আক্রমণ অনেক ভালো। সবাই খুব স্কিলফুল পেসার। দেখব তারা কি করতে পারে।’ ইংল্যান্ডের কাছে বড় ব্যবধানে হারলেও প্রথম ম্যাচের জন্য বোলারদের খুব বেশি দায় দিচ্ছেন না মাশরাফি। ‘বোলাররা সবাই চেষ্টা করছে। মুস্তাফিজের বলেই কিছু হচ্ছিল না। মাত্র দুই থেকে তিনটা বল একটু গ্রিপ করে আর কিছু করেনি। রুবেল খারাপ বল করেনি, আমিও চেষ্টা করেছি। স্কোরবোর্ডে আরও কিছু রান থাকলে ওরা হয়তো রান রেটের চাপ অনুভব করত, তখন হলেও কিছু হতে পারত। কিন্তু সেটা তো আর হয়নি।’

অভিজ্ঞতাসহ অন্যান্য দিক থেকে দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় সাকিব। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার থেকে সবসময়ই প্রত্যাশা থাকে বেশি। সেই সাকিবও সেদিন বল হাতে ছিলেন ব্যর্থ। অধিনায়ক মাশরাফি সাকিবের কথাও উল্লেখ করে বলেন, ‘সাকিব সাধ্যমত চেষ্টা করেও কিছু করতে পারেনি। সে অনেকবার আমাকে বলেছে, এই উইকেটে কিছুই হচ্ছে না ভাই।’

আগামীকাল ( ৫ জুন) নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই ওভালেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ সম্পর্কে অধিনায়কের ব্যাখ্যা, ‘বড় রানের ম্যাচ হলে আমাদের জন্য কাজটা সহজ না। যদি উইকেট থেকে বোলাররা কিছু সুবিধা পেত অথবা উইকেট স্পোর্টিং হতো, ২৮০ বা ৩০০ রানের উইকেট হলেও আমাদের ভালো কিছু করার সম্ভাবনা থাকত। তখন আমরা তাদের আটকে রাখতে বা তাড়া করতে পারতাম। কিন্তু সাড়ে তিনশর খেলা হলে আমাদের জন্য অনেক কঠিন কিছুই অপেক্ষা করছে।’ পেসারদের সমস্যার কথার পাশাপাশি সমাধানের পথও দেখিয়েছেন মাশরাফি। দলনেতার উপলব্ধি, ‘১০ ওভারে ৬০ বলের ৪০টিই ইয়র্কার করতে হবে! তারপরেও দেখা যাবে ৫০ রান হয়ে গেছে। এরকম উইকেটে আসলে ৫০ কেন, ৬০ রানও ভালোই। পাঁচ জন বোলার ৬০ করে রান দিলে ৩০০ হয়, সেটা বেশ ভালো বোলিং। আমাদের এই কাজটিই করতে হবে। ব্যাটসম্যান বুঝে জায়গামত বল ফেলে রানটা যত সম্ভব আটকে রাখতে হবে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

শক্তিশালী ভারতকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে প্রস্তুত তরুণ পাকিস্তান

Read Next

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচকে গুরুত্ব দিয়েই দেখছেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share