কাপ্তান মরগানের ব্যাটে ভর করে জয় পেলো ইংল্যান্ড

match report 31
Vinkmag ad

263468

ম্যাচে একটা সময় পিছিয়েই পড়েছিল স্বাগতিক ইংল্যান্ড। কিন্তু কাপ্তান ইয়ন মরগান আর মইন আলীর ব্যাটে শেষ পর্যন্ত সফরকারীদের হতাশ করে বড় স্কোর গড়ে ইংলিশরা ম্যাচ জিতে নেয় ৭২ রানে। আর এ জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে স্বাগতিকরা এগিয়ে গেলো ১-০ তে। 

স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ঠিক আগেই তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে সবার আগেই ইংল্যান্ডের মাটিতে পা রেখেছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। হেডিংলীতে টস জিতে প্রোটিয়া কাপ্তান ডি ভিলিয়ার্স বেছে নেন ফিল্ডিং। শুরুতেই জেসন রয়ের ফিরে যাওয়াতে আফ্রিকান দলনায়কের সিদ্ধান্ত যোক্তিকই মনে হচ্ছিল।

তবে এরপরই দলের হাল ধরেন আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলস আর জো রুট। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এ দুজনের ৯৮ রানের জুটি ইংল্যান্ডকে ফেরায় খেলায়। হেলস ফিরে যান ৬১ রানে আর রুটের ব্যাট থেকে আসে ৩৭ রান। তবে ১৯৮ রানের মধ্যেই বাটলার আর বেন স্টোকসের বিদায় ভাবিয়ে তোলে ইংলিশদের।

কিন্তু অধিনায়ক মরগান মইন আলীকে সঙ্গে নিয়ে ৬ষ্ঠ উইকেট জুটিতে গড়েন ১১৭ রানের জুটি। মরগান ৬ চার আর ৫ ছয়ে মাত্র ৯০ বলে দেখা পান ক্যারিয়ারের ১১তম শতকের। আর মইন আলীর ব্যাট থেকে আসে ৬৯ বলে ৭৭ রানের এক ঝড়ো ইনিংস। সমান পাঁচটি করে ছয় এবং চারের মার ছিল মইন আলীর ব্যাটে। মরগান ১০৭ রানে বিদায় নিলেও মইন আলী অপরাজিত থাকেন ৭৭ রানে।

শেষ ১১ ওভারে এ দুজনের ব্যাট থেকে এসেছিল ১১৩ রান। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে সফরকারীদের জন্য লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ৩৪০ রান। ক্রিস মরিস ও আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো প্রোটিয়াদের হয়ে শিকার করেন দুটি করে উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। যদিও ক’দিন আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরষ্কার জিতে নেয়া কুইন্টন ডি কক বিদায় নেন ব্যক্তিগত পাঁচ রানের মাথায়ই। হাসিম আমলা আর ফাফ ডু প্লেসিস অবশ্য জবাব দিচ্ছিলেন সমানতালে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এ দুজনের ব্যাট থেকে আসে ১২২ রান।

কিন্তু এরপরই হঠাৎ যেন ছন্দপতন! মাত্র চার রানের ব্যবধানে ফিরে যান আমলা এবং ডু প্লেসিস দুজনই। অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ছাড়া এরপরের আর কোন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেনি ইংলিশ বোলারদের সামনে। হাসিম আমলার ব্যাট থেকে আসে দলীয় সর্বোচ্চ ৭৩ রান, ডু প্লেসিস করেন ৬৭ রান। ভিলিয়ার্সের ৪৫ রান ছাড়া আর কোন বলার মত ইনিংস গড়তে পারেন সফরকারীরা।

পাঁচ ওভার বাকী থাকতে ২৬৭ রানেই অতিথিদের গুটিয়ে দেয়া ইংলিশ দলের হয়ে সর্বোচ্চ চার উইকেট শিকার করেন ক্রিস ওকস। স্পিনার মইন আলী এবং আদিল রশীদ শিকার করেন সমান ২ উইকেট করে। ব্যাট এবং বলে দলের জন্য অসাধারণ অবদান রাখা মইন আলী জিতে নেন ম্যাচ সেরার পুরষ্কার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

ইংল্যান্ডঃ ৩৩৯/৬ (৫০ ওভার) ইয়ন মরগান ১০৭, মইন আলী ৭৭*, অ্যালেক্স হেলস ৬১। আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো ২/৫৯, ক্রিস মরিস ২/৬১

দক্ষিণ আফ্রিকাঃ ২৬৭/১০ (৪৫ ওভার) হাসিম আমলা ৭৩, ডু প্লেসিস ৬৭, এবি ডি  ভিলিয়ার্স ৪৫। ক্রিস ওকস ৪/৩৮, মইন আলী ২/৫০, আদিল রশীদ ২/৫৯

ফলাফলঃ ইংল্যান্ড ৭২ রানে জয়ী।

ম্যান অফ দ্যা ম্যাচঃ মইন আলী (ইংল্যান্ড)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে চান মাশরাফি

Read Next

কিউই বধের কৃতিত্ব বোলারদের দিলেন মুশফিক

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share