ফাইনালে কুমিল্লা, অপেক্ষায় রংপুর

1548754840232
Vinkmag ad

জিতলেই নিশ্চিত হবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ফাইনাল, তবে হারলেও সুযোগ থেকে যাচ্ছে আরও একটা। সেক্ষেত্রে আজ এলিমিনেটরে জয় পাওয়া ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে লড়তে হবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে। তবে দ্বিতীয় সুযোগ নয়, লুইস-বিজয়-শামসুরের ব্যাটে মুগ্ধতা ছড়িয়ে আজ প্রথম দল হিসাবে ফাইনাল নিশ্চিত করলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। যেখানে তারা রংপুরকে পরাজিত করেছে ৭ উইকেটের ব্যবধানে।

50580533 339796536616696 5034700216448581632 n 1280x870

ফাইনাল খেলা নিশ্চিত করার মিশন নিয়ে আজ টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন রাইডার্স অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। এদিন বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের হয়ে গেইলের সাথে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমেছিলেন মেহেদী মারুফ, তবে মারুফ সুবিধা করতে পারেননি একেবারেই। উদ্বোধনি জুটিতে গেইলের সাথে ১৭ রানের জুটি ইনিংসের তৃতীয় ওভারে ওয়াহাব রিয়াজের বলে আউট হওয়ার আগে করেন মোটে ১ রান। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং দানবের সাথে সমান ১৭ রানের জুটি গড়লেও যখন রান আউটে কাটা পড়ে থামে মোহাম্মদ মিঠুনের ইনিংস, তখন তার নামের পাশে ৩ রান।

পাওয়ার-প্লের প্রথম ৬ ওভার থেকে ৩৪ রানে দুই উইকেট হারানোর পর রংপুরের ইনিংস মেরামতের কাজ করেন দুই বিদেশি গেইল ও রুশো। তবে খুব বেশিদূর আগাতে পারেনি এই জুটি। একপ্রান্ত থেকে যখনি খোলস ছেড়ে বের হতে শুরু করলেন গেইল, ঠিক তখনই তাঁকে সাজঘরের পথ দেখান কুমিল্লার স্পিনার মেহেদী হাসান। এর ফলে ৩৩ রানে ভাঙন ধরে তৃতীয় উইকেট জুটির। ৬টা চার ও ১টা ছয়ের সাহায্যে ৪৪ বলে গেইল করেছেন ৪৬ রান।

B9I5879 1280x853

এরপর অবশ্য ১৩ ওভারের মধ্যে ৩ রান করে বোপারাও আউট হয়ে গেলে খানিক বিপদেই পড়তে হয় রাইডার্সদের। তবে রুশো ও হাওয়েলের ৩৮ বলে করা ৭০ রানে জুটি বড় লক্ষ্য দাঁড় করাতে সাহায্য করেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের। পরে ৩১ বলে ৪৪ রানে রুশো ফিরে গেলেও নিজের অর্ধশতকটা ঠিকই তুলে নিয়েছেন হাওয়েল। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে খেলেছেন ২৮ বলে ৫৩ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস। যেখানে ৩টা চারের সাথে হাঁকিয়েছেন ৫টা ছয়ের মার। আর এতেই নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে স্কোর বোর্ডে ১৬৫ রানের সংগ্রহ পায় রংপুর।

১৬৬ রানের জবাব দিতে নেমে নিজেদের ইনিংসের শুরুটা ভালোই করেন কুমিল্লা দলের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও এভিন লুইস। ওপেনিং জুটিতে গড়েন ৩৫ রানের পার্টনারশিপ। মাশরাফিকে ‘ব্যাক টু ব্যাক’ ছয় হাঁকাতে যেয়ে ১৭ রানে থাকা তামিম ইকবাল হাওয়েলের হাতে ধরা পড়লে ভাঙে এই জুটি। এরপর উইকেটে থাকা লুইসের সাথে নতুন ব্যাটসম্যান হিসাবে যোগ দেন দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয়, দুজন মিলে ভালোই সামাল দিতে থাকেন রংপুরের বোলারদের।

B9I5773 1280x853
ফাইল ছবি

একপ্রান্ত থেকে লুইস, অন্যপ্রান্ত থেকে বিজয়, দুইজনই সমানে চালাতে থাকেন ব্যাট। এতেই দিশেহারা হয়ে পড়ে মাশরাফি-ফরহাদ রেজারা। এর এক ফাঁকে অবশ্য নিজের অর্ধশতকটা তুলে নেন লুইস। তবে ক্ষান্ত যাননি সেখানেই, এর পরে জ্বলেছেন আরও বেশি। লুইস জ্বললেও ৯০ রানের পার্টনারশিপের মাথায় ৩৯ রানে ফিরতে হয়েছে এনামুলকে। তাতে অবশ্য জয় তুলে নিতে খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি কুমিল্লাকে।

B9I5557 1280x853

শামসুরকে সাথে নিয়ে জয়ের বাকি আনুষ্ঠানিকতা সারেন লুইস। যেখানে ৩টা ছয় ও ৫টা চারের মারে নিজে অপরাজিত থাকেন ৭১ রান নিয়ে এবং শামসুর রহমান অপরাজিত থাকেন ৩৪ রানে। এই জয়ের ফলে টুর্নামেন্টের প্রথম দল হিসাবে বিপিএলের চলতি মৌসুমের ফাইনাল নিশ্চিত করলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তবুও ‘যুদ্ধ’ জয়ে তৃপ্ত মুশফিক

Read Next

‘আমাকে আরও সিরিয়াস হতে হবে’

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share