উইকেট ইস্যু একেবারেই ভাবাচ্ছে না ডি ভিলিয়ার্সকে

তারকাতে ঠাসা চলমান বিপিএল, হচ্ছে প্রযুক্তির পূর্ণ ব্যবহারও। তবুও মাঠের ক্রিকেটে ঠিকই কমতি থেকে যাচ্ছে একখানে এসে। টুর্নামেন্টের বেশিরভাগ ম্যাচই হচ্ছে লো স্কোরিং। টার্নিং উইকেটে ব্যাটসম্যানদের থেকে আধিক্য থাকছে বোলারদেরই। তবে এনিয়ে একেবারেই ভাবতে নারাজ বিপিএলের দল রংপুর রাইডার্সের দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স।

Reaz 4

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানেই যেন মারকাটারি ব্যাটিং, চার-ছক্কার ফুলঝুরি। অথচ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ষষ্ঠ আসরে দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র। স্লো উইকেটে ফুটে উঠছে ব্যাটসম্যানদের অসহায়ত্ব। এই ফরম্যাটের বিশেষজ্ঞ হিসাবে বিবেচিত বিশ্ব ক্রিকেটে সেরা সেরা সব ব্যাটসম্যানও জুতসইভাবে খুঁজে পাচ্ছেন না নিজেদের ছন্দটা। গেইল-হেলসদের মত ক্রিকেটারও থেকে যাচ্ছেন নিষ্প্রাণ।

এমতাবস্থায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ খেলতে এবারই প্রথমবারের মত এসেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। মূলত আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের জন্য ক্রিকেট বিশ্বে আলাদা সুখ্যাতি আছে তারকা এই ক্রিকেটারের। তবে প্রশ্ন রয়ে যাচ্ছে, এমন টার্নিং উইকেটে খেলতে নেমে নিজেকে ঠিক কতখানিই বা মেলে ধরতেন পারবেন ‘মিস্টার থ্রি সিক্সটি ডিগ্রি’!

তবে এনিয়ে যার সবথেকে বেশি ভাবার কথা, সেই ডি ভিলিয়ার্সই চিন্তিন নন মোটেও। এই প্রসঙ্গ ভিলিয়ার্স বলেন, ‘আমি যতটুকু দেখেছি তাতে উইকেট বেশ ভালো লেগেছে। হ্যা কিছু উইকেটে হয়তো খানিকটা টার্ন থাকে, আমার তাতে আপত্তি নেই। টার্নিং উইকেটে খেলা আমি সবসময়ই উপভোগ করেছি। পাশাপাশি ব্যাটিংয়ের জন্য উপযুক্ত উইকেটও তো পাওয়া যায়। সিলেটের বিপক্ষে আমাদের শেষ ম্যাচটি আমি দেখেছি। উইকেট সেই ম্যাচে ভালোই ছিল। আশা করি কালকেও তেমনই থাকবে।’

একই সাথে দলে নিজের ভূমিকার কথা বলতে যেয়ে প্রোটিয়া এই ক্রিকেটার জানান, ‘আমি এখনও তাদের (রংপুর) হয়ে খেলিনি। আশা করি আগামীকাল আমার প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার সুযোগ হবে, যদি আমাকে রাখা হয় একাদশে। আপনি দেখবেন দলটির স্কোয়াডটি দারুণ, রংপুরের ক্রিকেটারদের নাম দেখুন। এটি আসলেই একটি ভারসাম্যপূর্ণ দল।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘আমি বিপিএল সম্বন্ধে অনেক প্রশংসা শুনেছি’

Read Next

আজ ডি ভিলিয়ার্সের ৪৪ বলে ১৪৯ রানের দিন

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
0
Share