ক্রীড়াক্ষেত্রে ভারতের সর্বোচ্চ পুরস্কারে ভূষিত কোহলি

1537901876288
Vinkmag ad

একজন ক্রিকেটার হিসাবে নিজ ক্যারিয়ারে ঠিক যা যা অর্জন করার মত, তার সিংহভাগই নিজের ঝুলিতে পুরেছেন ভারত জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। ব্যাট-বলের খেলা ক্রিকেটে ব্যাট হাতে বাইশ গজে নামলেই যেন হয়ে যান অপ্রতিরোধ্য। তার পুরস্কারটাও তিনি পেয়ে যান মাঠেই। তবে মাঠের এমন অনবদ্য পারফরম্যান্সের জন্য এবার মাঠের বাইরে বড় স্বীকৃতি পেলেন কোহলি। নিজের করে নিলেন ক্রীড়াক্ষেত্রে ভারতের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কার’ টা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত টেস্ট সিরিজটা ৪-১ ব্যবধানে হারলেও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সটা বেশ ভালো ছিলো কোহলির। তবে সামনে ব্যস্ত সূচির সাথে অস্ট্রেলিয়া সফর থাকাতেই টানা ক্রিকেট খেলা ভারতীয় দলের নিয়মিত অধিনায়ককে চলতি এশিয়া কাপ থেকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। তাইতো সতীর্থরা যখন মাঠ মাতাচ্ছেন তখন টিভিতেই তাদের খেলা দেশে প্রশান্তি মেটাতে হচ্ছে কোহলিকে। দলের জয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

তবে এনিয়ে হয়তো খুব বেশি আক্ষেপ থাকার কথা না এই ব্যাটিং সেনসেশনের। কেননা ক্রীড়াক্ষেত্রে ভারতের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কার’ টা যে এবার বাগিয়ে নিয়েছেন কোহলি। যেইটা আবার দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কভিন্দের হাত থেকে গ্রহণ করেছেন সরাসরি। তবে এবার অবশ্য কোহলি একাই নন, ভারতের নারী ভারোত্তলক মীরাবাই চানুর সঙ্গে যুগ্মভাবে এই পুরস্কার পেয়েছেন বিশ্বসেরা এই ব্যাটসম্যান।

unnamed 1
রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কার গ্রহণ করছেন কোহলি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা আর একের পর এক কীর্তি গড়ার কারণেই খেলরত্ন পুরস্কার দেওয়া হলো কোহলিকে। এবারের আগে অবশ্য ২০১৬ সালেও তিনি একবার এই পুরস্কারের জন্য মনোনিত হয়েছিলেন। কিন্তু সেবার তার ভাগ্যের শিকে ছেঁড়েনি। সেবার অলিম্পিকের বছর হওয়ায় কোহলিকে খেলরত্নের পুরস্কার না দিয়ে পিভি সিন্ধু, সাক্ষী মালিকদের এই সম্মান দেওয়া হয়েছিল।

এবারও তার পুরস্কার পাওয়া নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছিল। তবে তার ধারাবাহিক পারফরম্যান্স দেখে তাকে খেলরত্ন করতে প্রস্তাব করে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)।

উল্লেখ্য, ১৯৯৭-৯৮ সালে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে খেলরত্ন পুরস্কার পান ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকার। আর ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার জন্য দলটির অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি একই সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘পাকিস্তানি পেসাররা বাংলাদেশের সুবিধা করে দিবে’

Read Next

লেখা থাকবে ‘টাই’, আফগানদের কাছে ‘জয়’ নিশ্চয়ই

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share