পারটেক্সকে হারিয়ে তৃতীয় স্থানে প্রাইম ব্যাংক

prime bank
Vinkmag ad

maruf

চলমান ডিপিএলের অষ্টম রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনে মুখোমুখি হয় প্রাইম ব্যাংক এবং পুরো আসরে মাত্র একটি জয় পাওয়া দল পারটেক্স। দলগত পারফর্মেন্সে ৩৭ রানে (বৃষ্টি আইন) জয় পায় মেহেদি মারুফের দল প্রাইম ব্যাংক।

এদিন সকালে ফতুল্লায় টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্বান্ত নেয় পারটেক্সের অধিনায়ক ইরফান শুক্কুর। দুই ওপেনার উদ্বোধনী জুটিতে দারুণ সূচনা এনে দিয়ে অধিনায়কের সিদ্বান্তকে সঠিক প্রমাণ করতে থাকেন। দুই ওপেনার থেকে উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৭৮ রান। পারটেক্সের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন জাতিন সাক্সেনা। ৪১ বলে পাঁচটি চার এবং একটি ছয়ের সাহায্যে ৪০ রান করেন এই ব্যাটসম্যান। পরের ওভারেই সাজ্জাদ হোসেন ফিরে যান মাত্র ৪ রান করে। আরেক ওপেনার জনি তালুকদার তুলে নেন অর্ধশতক। ইনিংস সর্বোচ্চ ৬৯ রান আসে জনির ব্যাট থেকে। ৮৬ বলে ছয়টি চার এবং দুটি ছয়ে ইনিংসটি সাজান তিনি। অধিনায়ক ইরফান করেন ২৬ রান। দলিয় ১৪৬ রানে জনি এবং ইরফান প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরে পারটেক্স। নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে তারা। শেষ ৪৬ রান তুলতেই সাত উইকেট হারায় পারটেক্স। অন্য কোন ব্যাটসম্যান তেমন দাঁড়াতে না পারায় শেষ পর্যন্ত সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৯২ রান সংগ্রহ করে পারটেক্স।

প্রাইম ব্যাংকের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন নাজমুল অপু। এছাড়া আসিফ আহমেদ দুটি উইকেট নেন এবং নাহিদুল ইসলাম, তাইবুর পারভেজ, আল আমিন ও আরিফুল হক একটি করে উইকেট ভাগ করে নেন।

পারটেক্সের ইনিংসের পর খেলায় বিঘ্ন ঘটায় বৃষ্টি। খেলা পুনরায় শুরু হতে দেরি হওয়ায় প্রাইম ব্যাংকের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ৪০ ওভারে ১৭৫ রান। উদ্বোধনী জুটিতেই জয় অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলেন প্রাইম ব্যাংকের দুই ওপেনার। অধিনায়ক মেহেদি মারুফ এবং জাকির হাসান দুজনেই তুলে নেন অর্ধশতক। মেহেদি মারুফ ৬৯ বলে দুটি চার এবং সমান সংখ্যক ছয়ের মাধ্যমে ৫২ রান করে ক্রিজে থাকেন। আরেক ওপেনার জাকির হাসানের ব্যাট থেকে আসে ৭৫ বলে চারটি বাউন্ডারি এবং একটি ওভার বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৫ রান। বিনা উইকেটে ২৪ ওভারে ১১৪ রান করার পর আবারো বৃষ্টি বাঁধা দেয়। আলো স্বল্পতার কারণে ম্যাচটি বন্ধ হয়ে যায়। বৃষ্টি আইনে ৩৭ রানে জয় পায় প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাব ১৯২/১০ (৪৬.২) জনি তালুকদার ৬৯, সাক্সেনা ৪০
নাজমুল অপু ৩/২৩, আসিফ ২/৩৪

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ১১৪/০ (২৪) জাকির হাসান ৫৫, মেহেদি মারুফ ৫২

ম্যাচসেরাঃ জাকির হাসান (প্রাইম ব্যাংক)

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ষ্টেইনের প্রশ্নের উত্তরে মুস্তাফিজ

Read Next

বৃষ্টি আইনে হেরে গেল কলাবাগান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share