দারুণ কামব্যাকের পরও মোহামেডানে হার প্রাইম ব্যাংকের

match report 12
Vinkmag ad

মোহামেডানের বোলারদের বোলিং তোপে মাত্র ৩৬ রানেই আউট হয়ে ফিরে যায় প্রাইম ব্যাংকের ৬ জন ব্যাটসম্যান। সেখান থেকে আল-আমিন ও আরিফুলের ১৬১ রানের পার্টনারশিপে ৯ উইকেটে ২৫৯ রানের সংগ্রহ দাড় কড়াই প্রাইম ব্যাংক। এমন অনবদ্য কামব্যাকের পরেও লাভ হয়নি খুব একটা! রকিবুল ইসলাম ও রনি তালুকদারের ব্যাটে মোহামেডানের কাছে ৩ উইকেটে পরাজয় মেনে নিতে হয় প্রাইম ব্যাংকের।

27655212 767117053488596 2500290721986739556 n

একদিন বিরতির পর আজ আবার মঠে গড়িয়েছে ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল) এর খেলা। যেখানে বিকেএসপিতে টসে জিতে আগে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নিয়ে দুই প্রান্ত থেকেই স্পিন আক্রমণ দিয়ে শুরু করেন মোহামেডান অধিনায়ক শামসুর রহমান। ফলাফল পেতেও দেরি হয়নি খুব একটা। প্রাইম ব্যাংকের রানের খাতা খোলার আগেই ওপেনার শাহনাজ আহমেদকে ফিরিয়ে শুরুটা এনে দেন ভারতীয় স্পিনার বিপুল শার্মা।

জাকির হাসান (৮), ও মেহেদি মারুফের (৫) সাথে ডিপিএলের এবারের আসরে প্রথমবারের মত মাঠে নামা ভারতীয় রিক্রুট ইউসুফ পাঠনের (০) উইকেটও তুলে নেন তাইজুল ইসলাম। এরপর নাহিদুল ও সাজ্জুদলও দাঁড়াতে পারেনি বেশিক্ষণ। ফলে ৩৬ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে প্রাইম ব্যাংক। সেখান থেকে আল-আমিন ও আরিফুল হকের ১৬১ রানের পার্টনারশিপে ঘুড়ে দাঁড়াই তারা।

লিস্ট-এ ক্যারিয়ারে নিজের তিন নাম্বার শতকটা তুলে নিয়ে আল-আমিন ১১০ রানে ফিরলে ভাঙ্গে এই জুটি। তারপর নয় নাম্বারে ব্যাট করতে নামা দেলওয়ারের সাথেও ৪৬ রানে জোট বাঁধেন আরিফুল। নির্ধারিত ওভারের ৮ বল আগে ৮৭ রানে আরিফুল আউট হয়ে যাওয়ার পর ৯ উইকেট হারিয়ে ২৫৯ রানের সংগ্রহ পায় প্রাইম ব্যাংক।

২৬০ রানের জয়ে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুই তালুকদার রনি ও জনির ব্যাটে ভালো শুরু পায় সাদাকালোরা, তাদের ওপেনিং জুটি থেকে আসে ৬০ রান। ১৫ রানে থাকা জনিকে আউট করে এই পার্টনারশিপ ভাঙ্গেন দেলওয়ার হোসেন। এর দুই রান পরেই শামসুল রহমান খালি হাতে ফিরিলে চাপে পড়ে যায় মতিঝিলের এই দলটা। সেখান থেকে রনি ও শুক্কুরের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে তারা।

লাভ হয়নি তাতেও, ২৪ রানের জুটির পর মাত্র ৬ রানের ব্যাবধানে দু’জনি আউট হয়ে গেলে ৯২ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে মোহামেডান। সেখান থেকে রাকিবুল ও আমিনুলের ৭০ রানের জুটিতে বিপর্যয় সামাল দেই সাদাকালোরা। এরপর দলীয় ২০৫ রানের সময় ৬৪ রানে থাকা রাকিবুলের বিদায়ের মধ্য দিয়ে সাত উইকেট হারিয়ে বসলেও অষ্টম উইকেটে এনামুল ও তাইজুলের অবিচ্ছেদ্য ৫৫ রানের পার্টনারশিপে ৩ উইকেট জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে কোচ আফতাব আহমেদের শিষ্যরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবঃ ২৫৯/৯ (৫০ ওভার) আল-আমিন ১১০, আরিফুল হক ৮৭, দেলওয়ার হোসেন ২৫, তাইজুল ইসলাম ৩/৫৩, বিপুল শার্মা ২/৪৩, কাজী অনিক ২/৪৭

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবঃ ২৬০/৭ (৪৮.৫ ওভার) রাকিবুল ইসলাম ৬৪, রনি তালুকদার ৬০, তাইজুল ইসলাম ৩৫*, রুবেল হোসেন ২/৪২, দেলওয়ার হোসেন ২/৪৯, আরিফুল হল ১/৩৭

ফলাফলঃ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ৩ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরাঃ আল-আমিন (প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব)

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

রোহিত শর্মার নেতৃত্বে নিদাহাস ট্রফিতে ভারতের নতুন দল

Read Next

নিদাহাস ট্রফির দলে অভিজ্ঞদের উপস্থিতি বাড়াতে চায় সুজন

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share