মাশরাফি ও আবাহনীর ‘৫’

match report 26
Vinkmag ad

কদিন ধরে ক্রিকেট পাড়ায় খুব করে আলোচনা হচ্ছে টি-টোয়েন্টিতে মাশরাফি বিন মর্তুজা আবার অবসর ভেঙে ফিরবেন কিনা সেটা নিয়ে। ঠিক কি কারণে মাশরাফিকে ফেরাতে উদগ্রীব বিসিবি তার প্রমাণ আজও রেখেছেন তিনি। ডিপিএলে (ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ) বল হাতে ৫ উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি। আর তাতে আবাহনী দেখা পেয়েছে লিগে নিজেদের টানা ৫ম জয়ের। 

আজ বৃহস্পতিবার বিকেএসপির (বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান) ৪ নম্বর মাঠে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে ৪৭ রানে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড।

টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামে নাসির হোসেনের দল (আবাহনী)। দুই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জেতা সাইফ হাসান এদিন ফেরেন দ্রুত (৮ রান করে)। সাইফকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান আবু জায়েদ রাহি। নাজমুল হোসেন শান্ত ১ রান করে সাইফের পথে হাঁটেন। তাঁকে বোল্ড করেন সোহাগ গাজী। এরপর অধিনায়ক নাসির হোসেন ১১ ও মোহাম্মদ মিঠুন ১৪ রান করে ফিরলে ৭৮ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসা আবাহনী বিপদে পড়ে। সেখান থেকে উদ্ধার কাজ সারেন এনামুল হক বিজয় ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৫ম উইকেট জুটিতে ১১১ রান তোলেন এই দুজন। বিজয় ১১৬ রান করে আউট হলে ভাঙে এই জুটি।

DPL 120180222172830

বিজয়ের পর উইকেটে থাকতে পারেননি সৈকতও। ৪৯ রান করে আউট হন তিনি। মাশরাফি বিন মর্তুজার ব্যাটে ৬ রানের বেশি আসেনি। ২১২ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলা আবাহনী যখন কম রানে গুটিয়ে যাবার ভয়ে ভীত, তখন মঞ্চে আবির্ভাব মিরাজ-সানজামুল জুটির।

৫ ওভার ২ বল উইকেটে থেকে এই দুজন রান তোলেন ৫৮। ১৮ বলে ২ টি করে চার ও ছয়ে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৫ বলে ৩ চারে ২৪ রান করে অপরাজিত থাকেন সানজামুল ইসলাম। এই ঝড়ো জুটিতে আবাহনীর ইনিংস থামে ৭ উইকেটে ২৭০ রানে।

২৭১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই জিয়াউর রহমানের উইকেট হারায় শেখ জামাল। তাঁকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান মাশরাফি বিন মর্তুজা। জিয়াউরের সঙ্গী হয়ে ওপেন করতে নামা সৈকত আলিকেও বোল্ড করেন মাশরাফি। এরপর সাক্সেনা ও নুরুল হাসান সোহানই যা একটু প্রতিরোধ গড়েন।

28056225 1598222646928193 2697662111101283308 n

৪৩ রান করেন সাক্সেনা, ৬১ বলে ৮৩ রান করে থামেন শেখ জামাল দলপতি নুরুল হাসান সোহান। ৭ম ব্যাটসম্যান হিসেবে নুরুল যখন আউট হন দলের রান তখন ২০৫। তবে শেখ জামাল থমকে যায় ২২৩ এই। শেষ স্পেলে তিন উইকেট নিয়ে আবাহনীর জয় নিশ্চিত করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। লিস্ট-এ ক্যারিয়ারে ৪র্থ বারের মতো ৫ উইকেট নিলেন মাশরাফি। এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজ ২টি, সানজামুল ও সাকলাইন সজীব ১ টি করে উইকেট পান।

ম্যাচসেরার পুরস্কার ওঠে মাশরাফির হাতে।

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer- Cricket97

Read Previous

গাজীর জয়ে ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ইমরুল

Read Next

অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share