হেসেখেলে ফাইনালে হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা

match report 29

সমীকরণটা সহজই ছিল শ্রীলঙ্কার জন্য। জিতলে তো বটেই, কম ব্যবধানে হারলেও শ্রীলঙ্কার নিশ্চিত হতো ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল খেলা। তবে হেসেখেলেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছে লঙ্কানরা। উড়তে থাকা টাইগারদের মাটিতে নামিয়ে ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে জিতেছে হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা।  

প্রথম তিন ম্যাচেই হেসেছিল তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের ব্যাট, বাংলাদেশের স্কোরবোর্ড ও দেখার মতো ছিল। ত্রিদেশীয় সিরিজে আজই প্রথম ব্যর্থ এই দুইজন, আর তাতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে লজ্জাজনক স্কোরবোর্ড উপহার দিয়েছিল টাইগাররা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছিল ৮২ রানেই! যা কিনা বাংলাদেশের ৯ম সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন।

৮৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা শ্রীলঙ্কা হেসেখেলেই লক্ষ্য পার করেছে। দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান উপুল থারাঙ্গা ও ধানুশকা গুনাথিলাকা ব্যাট করেছেন পজিটিভলি। আর তাতেই বড় পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে টাইগারদের।

এর আগে টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। সানজামুল ইসলামের বদলে দলে জায়গা পান আবুল হাসান রাজু।

ত্রিদেশীয় সিরিজেই দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা এনামুল হক বিজয় আজও নিজেকে হারিয়ে খুঁজেছেন। আজ আউট হয়েছেন কোন রান না করেই। লাকমলের বলে হয়েছেন বোল্ড। দুইটি চার মেরে শুরু করা সাকিব আল হাসান ৮ রানেই ফিরেছেন দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউট হয়ে।

272473

টানা তিন ফিফটি করা তামিম লাকমলের হঠাৎ লাফিয়ে ওঠা বলে গুনাথিলাকাকে ক্যাচ দিয়েছেন ৫ রান করে। মাহমুদউল্লাহ করতে পারেননি ৭ রানের বেশি। কোনমতে দুই অঙ্কের রান করে (১০) ভুল শট সিলেকশনে আউট হয়েছেন সাব্বির রহমান। ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলা বাংলাদেশ দল মাথা তুলে আর দাঁড়াতে পারেনি।

দলে ফেরা আবুল হাসান রাজু আউট হয়েছেন ৭ রান করে। একবার জীবন পাওয়া মুশফিক বড় করতে পারেননি নিজের রান, আউট হয়েছেন সর্বোচ্চ ২৬ রান করে। ব্যাট হাতে আবারও ব্যর্থ হয়ে নাসির ফিরেছেন মাত্র ৩ রান করে। মাশরাফি ১ রান করে ফিরলেও কোন রান না করে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়েছেন রুবেল হোসেন।

শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন লাকমল। ২ টি করে উইকেট নিয়েছেন চামিরা, পেরেরা ও সান্দাকান।

বাংলাদেশের সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ:

৫৮- বিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ২০১১
৫৮- বিপক্ষ ভারত, ২০১৪
৭০- বিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ২০১৪
৭৪- বিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, ২০০৮
৭৬- বিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, ২০০২
৭৬- বিপক্ষ ভারত, ২০০৩
৭৭- বিপক্ষ নিউজিল্যান্ড, ২০০২
৭৮- বিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, ২০১১
৮২- বিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, আজকের ম্যাচ
৮৬- বিপক্ষ নিউজিল্যান্ড, ২০০৪।

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer of Cricket97 & en.Cricket97

Read Previous

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, দলে আছেন রাজু

Read Next

অবশেষে জয়ের মুখ দেখল পাকিস্তান

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share