বিসিএলে চলছে সেঞ্চুরি উৎসব

bcl f

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) চলমান রাউন্ডে যেন চলছে সেঞ্চুরির প্রতিযোগিতা। প্রথম দুইদিন শেষে হয়েছে ৫ সেঞ্চুরি ও একটি ডাবল সেঞ্চুরি।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের ব্যাটসম্যানরা দিচ্ছেন সেই প্রতিযোগীতার নেতৃত্ব, গতকাল তিন উইকেটে ৩৩২ রানে প্রথম দিন শেষ করেছিলো তারা। লিটন দাস ১১২ রানে আউট হলেও তরুণ জাকির হোসেন অপরাজিত ছিলেন ১৫৬ রানে। আজ তুলে নেন প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে নিজের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। দলীয় ৪৫৩ রানে যখন পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরে যান তখন তার নামের পাশে লিখিয়ে ফেলেন ২১১ রান। ৩২০ বল আর ৪৪৪ মিনিট ক্রিজে থেকে ২৩ চারের সাহায্যে এ রান করেন বিপিএলে রাজশাহী কিংসের হয়ে নিজেকে আলোয় আনা জাকির হোসেন।

Zakir 02
ইস্ট জোনের জাকির হাসান ৩২০ বলে করেন ২১১ রান।

জাকির-লিটনের পর সেঞ্চুরি পান ইস্ট-জোনের আরও দুই ব্যাটসম্যান। এতেই ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে রানের পাহাড় গড়ে বসে ইস্ট-জোন, ৬ উইকেটে ৭৩৫ রানে ইনিংস ঘোষণার মাধ্যমে শেষ হয় দ্বিতীয় দিন। সেঞ্চুরি পান ইয়াসির আলী ও অলক কপালিও। ইয়াসির আলী ১৭৫ বলে ১২ চার ও ২ ছয়ে ১৩২ রান করে আবু হায়দার রনির বলে আউট হলেও ১৩৯ বলে ১০ চার ও ৩ ছক্কায় ঝড়ো ১৬৫ রান করে অপরাজিত থাকেন অলক কপালি। এছাড়া তাসামুল হক ৬০ রান করেন।

bcl 3
ইস্ট-জোনের ইনিংস ঘোষণার আগে ১৬৫ রানে অপরাজিত থাকেন অলোক কাপালি।

ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের শুভাগত হোম তিনটি, আবু হায়দার রনি দুটি ও তাসকিন আহমেদ একটি উইকেট নেন।

অন্যদিকে রাজশাহীতে প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনের বিপক্ষে মিজানুর রহমানের সেঞ্চুরিতে গতকাল ৩ উইকেটে ২১৪ রানে দিনশেষ করা বিসিবি নর্থ-জোন আজ অল আউট হয়েছে ৪০৮ রানে।

আজ শুরুটা ভালো হয়নি নর্থ জোনের, দিনের ২য় ওভারেই স্কোরবোর্ডে মাত্র এক রান যোগ করেই ফিরে যান আগেরদিনের অপরাজিত ব্যাটসম্যান নাঈম ইসলাম, তিন রান পর ফিরে যান জহরুল ইসলামও। এরপর ধীমান ঘোষকে নিয়ে ১১০ রানের জুটি গড়ে দলকে পথ দেখান গতকাল সেঞ্চুরির অপেক্ষায় থাকা ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী।

bcl 2

ধীমান ঘোষ ৬৫ রান করে আল আমিন হোসেনের বলে উইকেট কিপার সোহানের হাতে গ্লাভসবন্দী হলে ভাঙ্গে জুটি। ধীমান বিদায় নিলেও প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে নিজের ১২ তম সেঞ্চুরি তুলে নেন আগেরদিন ৮২ রানে অপেক্ষায় থাকা জুনায়েদ। ২৩৮ বলে ১৩ চার ও ২ ছক্কায় ১৩৭ রানের ইনিংস খেলে ৮ম ব্যাটসম্যান হিসেবে কামরুল ইসলাম রাব্বির শিকার হয় সাজঘরে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। শেষদিকে তাইজুলে ৫৪ রানের ইনিংস বিসিবি নর্থ জোনকে দেয় বড় পুঁজি। প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনের আব্দুর রাজ্জাক একাই পকেটে নেন ৬ উইকেট যা তার প্রথম শ্রেণীর ক্যারিয়ারে ৩১ তম বারের মত ৫ উইকেট শিকার। এছাড়া কামরুল ইসলাম রাব্বি তিনটি ও আল আমিন একটি উইকেট নেন।

জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে দুই উইকেটে ১২৫ রান তুলে দিন শেষ করে সাউথ জোন। দুই ওপেনার শাহরীয়ার নাফীস ও সৌম্য সরকার যথাক্রমে ১৪ ও ২৯ রান করে আউট হন। ৫৮ রানে ইমরুল কায়েস ও ২৩ রানে অপরাজিত আছেন তুষার ইমরান। উইকেট দুটি ভাগাভাগি করে নেন আরিফুল হক ও শফিউল ইসলাম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইস্টজোন-সেন্ট্রাল জোন
ইস্টজোন প্রথম ইনিংস: ১৬৪ ওভারে, ৭৩৫/৬ (ইনিংস ঘোষণা)
জাকির হোসেন ২১১, লিটন দাস ১১২, তাসামুল ৬০, ইয়াসির আলি ১৩২, অলক কপালি ১৬৫*, সোহাগ গাজী ১৬*
তাসকিন ১১৩/১, আবু হায়দার ৬৭/২, মোশারফ হোসেন ১২২/০, শুভাগত হোম ১৮৩/৩, তানভীর হায়দার ১৬৪/০, মেহরাব হোসেন ৪৮/০

নর্থজোন-সাউথজোন
নর্থজোন প্রথম ইনিংস ৪০৮/১০(১০৬.২)
মিজানুর রহমান ১০৬, জুনায়েদ সিদ্দিকী ১৩৭, নাজমুল শান্ত ০, ফরহাদ হোসেন ০, নাঈম ইসলাম ২৬, জহরুল ইসলাম ২, ধীমান ঘোষ ৬৫, আরিফুল হক ৬, তাইজুল ইসলাম ৫৪, শফিউল ইসলাম ৬, শুভাশিস রায় ২*
দেলোওয়ার ৩৬/০, আল-আমিন ৫৬/১, কামরুল ইসলাম রাব্বি ১২২/৩, আব্দুর রাজ্জাক ১০৭/৬, সৌম্য সরকার ২০/০, মোসাদ্দেক ৬৬/০

সাউথ জোন প্রথম ইনিংস ১২৫/২(২৮)
নাফীস ১৪, সৌম্য সরকার ২৯, ইমরুল কায়েস ৫৮*, তুষার ইমরান ২৩*
শফিউল ইসলাম ২৯/১, শুভাশিস ২৮/০, তাইজুল ইসলাম ১৫/০, নাঈম ১২/০, আরিফুল হক ৪০/১

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘আশা করবো সামনের ম্যাচগুলোতে দর্শক বেশি হবে’

Read Next

ব্যর্থতার বৃত্তেই বন্দী সৌম্য সরকার

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share