জয়ে শুরু বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজ মিশন

nnn 1

‘দ্য টাইগার’ যাদের ডাক নাম তাদেরকে আর কতক্ষণ দমিয়ে রাখা যায়! একদিনের ক্রিকেটে টানা চার ম্যাচ জয় ছাড়া থাকার পর ঘরের মাঠে তিন জাতী ক্রিকেট আসরের শুরুর ম্যাচেই জিম্বাবুয়েকে রীতিমত উড়িয়ে দিয়েই ৮ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে টুর্নামেন্টের শুভ সূচনা করলো বাংলাদেশ।

ban 1
অপরাজিত ৮৪ রান করার পথে তামিমের ট্রেডমার্ক শট

ট্রাইনেশন এই সিরিজ শুরুর আগে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিল টাইগারদের সাবেক দুই গুরু বাকি দুই দলের কোচ হয়ে এই সফরে আসাটা। বলা হচ্ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই দলটার আদ্যোপান্ত যানা সাবেক দুই কোচকে কিভাবে সামাল দিবেন সাকিব-তামিম’রা। জিম্বাবুয়ে দলের দায়িত্ব নিয়ে এসেছেন টাইগারদের সাবেক বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক, সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সেই হিথ স্ট্রিকের জিম্বাবুয়েকে শুরুতে বোলিং দিয়েই কুপোকাত করলো বাংলাদেশ।

মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে এদিন জিম্বাবুয়েকে আগে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। কুয়াশা ভেজা শুরুর ফাইদাটা এদিন বেশ ভালোভাবেই তুলেছেন স্বাগতিকদের বোলাররা। জিম্বাবুয়ের ইনিংসের প্রথম ওভারের ওপেনার মিরে ও আরভিনের উইকেট তুলে নিয়ে আজকের দিনটা যে নিজেদের সেইটাই যেন জানান দিলেন সাকিব-আল-হাসান।

তারপর আরেক ওপেনারের সাথে দীর্ঘদিন বাদে দলে ফেরা টেলরও দ্রুত ফিরে গেলে ৫১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে সফকারীরা। এরপর ওয়ালার ও রাজা টেস্ট মেজাজের ব্যাটিং করে গড়েন ৩০ রানের জুটি। ওয়ালের আউটের পর পিটার মুরের সাথে ৫০ রানের জোট বাঁধেন রাজা, তুলে নেন নিজের নবম অর্ধশতক।

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৫২ রান করে রাজা রান আউটে কাটা পড়লে শেষদিকে রুবেল ও মুস্তাফিজের বোলিং তোপে নির্ধারিত ওভারের ৬ বল আগেই ১৭০ রানে অল-আউট জয়ে যায় জিম্বাবুইয়ানরা। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন সাকিব আল হাসান।

১৭১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উড়ো শুরু করেন টাইগার ওপেনার এনামুল হক, শুরু করলেও ধরে রাখতে পারেননি প্রায় ৩ বছর পর দলে ফেরা এই ব্যাটসম্যান। রাজার করা প্রথম ওভারেই ফিরেছেন মাত্র ১৯ রানে। এরপর ক্রিজে আসেন নতুন ব্যাটসম্যান সাকিব-আল-হাসান। আরেক ওপেনার তামিমের সাথে মিলে ঠান্ডা মেজাজের ব্যাটিংয়ে দেখেশুনে খেলতে থাকেন এই দুই ব্যাটসম্যান। এলবির ফাদে পড়ে ৩৭ রানে থাকা সাকিব- রাজার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হলে ভাঙ্গে দুই বন্ধুর ৭৮ রানের জোট।

এরপর নতুন ব্যাটসম্যান মুশফিককে সাথে নিয়ে নিজ ক্যারিয়ারের ৩৯ তম অর্ধশতক পূরণ করে ৮৩ রানে অপরাজিত থেকে ৮ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন তামিম ইকবাল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

জিম্বাবুয়েঃ ১৭০/১০ (৪৯), সিকান্দার রাজা ৫২, পিটার মুর ৩৩, ব্রেন্ডন টেলর ২৪ সাকিব আল হাসান ৩/৪৩, মুস্তাফিজুর রহমান ২/২৯, রুবেল হোসেন ২/২৪

বাংলাদেশঃ ১৭১/২ (২৮.৩) তামিম ইকবাল ৮৪*, সাকিব-আল-হাসান ৩৭, এনামুল হক ১৯, সিকেন্দার রাজা ২/৫৩

ফলাফলঃ বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দশ হাজারি ক্লাবে তুষার ইমরান

Read Next

রানার অলরাউন্ড নৈপুন্যে এ.সি.আই ইয়ামাহার জয়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share