কোচ নিয়ে চটজলদি কিছু ভাবছেন না অধিনায়কেরা

featured photo1 1 2
Vinkmag ad

২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও গত সাউথ আফ্রিকা সফর শেষে ছুটিতে যাওয়ার পরেই বিসিবি বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন হাথুরুসিংহে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাথে সম্পর্ক চুকিয়ে এবার দায়িত্ব নিয়েছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের। হাথুরু না থাকাতে এখনো খালি আছে হেড কোচের পদ, তবে শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে নতুন কোচ না এলেও নিজেদের আত্মবিশ্বাসের কথা জানিয়েছেন টাইগার অধিনায়কেরা।

Image may contain: 2 people, people smiling, outdoor
তিন ফরম্যাটের তিন টাইগার অধিনায়ক।

নিজ দেশে বসেই পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছিলেন হাথুরুসিংহে, টাইগার কোচের পদ ছাড়ার পর আজকেই প্রথমবারের মত আসলেন ঢাকাতে। শনিবার ঢাকায় ফিরে এদিন দুপুরে যে হোটেলে উঠেছেন চন্দিকা হাথুরুসিংহে সেখানেই অনুষ্ঠিত হয়েছে এক বৈঠক!

বাংলাদেশের তিন সংস্করণের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের সঙ্গে সভায় ছিলেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান, প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী। ছিলেন চার বোর্ড পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক, আকরাম খান, খালেদ মাহমুদ ও জালাল ইউনুস। দলের সাপোর্ট স্টাফদের মধ্যে ছিলেন সহকারী কোচ রিচার্ড হ্যালসল ও স্পিন কোচ সুনিল যোশীও।

সদ্য সাবেক হওয়া বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ চান্দিকা হাথুরুসিংহের আসার সঙ্গে অধিনায়কদের নিয়ে বোর্ড প্রধানের এই বৈঠকের কোন সম্পর্ক নেই, তবে বৈঠকের কারণ হাথুরুসিংহেই। বিসিবির চাকরি ছাড়ার পর শ্রীলঙ্কার হেড কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি, গতকালেই পাকা চুক্তি সেরেছেন ওদের সাথে। হাথুরু যাওয়াতে আপাতত কোচশূন্য বাংলাদেশ।

আগামী মাসেই বাংলাদেশ সফরে আসছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। সেই সিরিজ নিয়ে পরিকল্পনা, সিরিজের আগে নতুন প্রধান কোচ পাওয়া না গেলে বিকল্প ব্যবস্থা, সেসব প্রসঙ্গে কথা বলতেই এই সভার আয়োজন। সভা শেষে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন, শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে নতুন কোচ পাওয়া নিয়ে তাড়া নেই তিন অধিনায়কের। কোচ ছাড়াও এই সিরিজে আত্মবিশ্বাসে কমতি নেই তিনজনের কারও।

এমন কথা জানিয়ে সংবাদমাধ্যমকে পাপন বলেন, “আমাদের যে কোচিং স্টাফ আছে এবং যে তিন অধিনায়ক আছে, ওদেরকে আমরা ডেকেছিলাম বসার জন্য। সামনে আমাদের একটা সিরিজ আছে। হাথুরুসিংহে আমাদের সঙ্গে নেই। আমাদের হেড কোচ নেই। আমরা প্রক্রিয়ায় মধ্যে আছি (নতুন কোচের), কিন্ত এমনও তো হতে পারে, এ সিরিজের আগে কোনো কোচ নিয়োগ করিনি। এর মধ্যে যদি কাউকে না আনি, তাহলে কী হবে, সেসব নিয়ে কথা হয়েছে।”

পাপন আরো যোগ করে বলেন, “ওদের কাছে সবার আগে জানতে চেয়েছি যে ওরা আত্মবিশ্বাসী কি না। ওরা সবাই এক বাক্যে বলেছে, ওরা পুরো আত্মবিশ্বাসী যে সামনের সিরিজটা ওরা নিজেরাই করতে পারবে। এজন্য কার কি চাওয়া, কি পরিকল্পনা, কিভাবে কাজ করলে, কবে থেকে ক্যাম্প শুরু হবে, এ জিনিসগুলো নিয়ে কথা হয়েছে।”

বিসিবি প্রধানের ভাষ্যমতে, “তিন অধিনায়ককে বলছিলাম যে সকলকে এক সাথে সামলাতে পারবে কিনা। আসলেই ওরা আত্মবিশ্বাস নিয়ে জানিয়েছে যে পারবে। ওদের কোনো তাড়া নেই যে সিরিজের আগে তাড়াহুড়ো করে কোচ আনতে হবে। আমরা আস্তে ধীরে যেন সম্ভাব্য সেরা পছন্দের দিকে এগুতে পারি। তার মানে এই না যে আমরা কোচ নিচ্ছি না। কাল-পরশুও আমরা কোচ নিতে পারি। এটা ভিন্ন ইস্যু। আমি ওদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে বললাম। যদি কোনো কারণে কোচ না পাই তাহলে যেন আমরা সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারি।”

নতুন কোচ নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত অন্তবর্তীকালীন কোচ হিসেবে খালেদ মাহমুদের কথা আগেই বলেছিলেন তিনি। শনিবার সভা শেষে আবারো খালেদ মাহমুদের সাথে সহকারী কোচ হ্যালসলের নামও যোগ করে বলেন, “কালকে আমাদের বোর্ড মিটিং আছে। সেখানে আমরা সিদ্ধান্ত নিব অন্তবর্তীকালীন অবস্থায় এখান থেকে কাউকে হেড কোচ করবো কিনা। আপাতত যে রিচার্ড হ্যালসল আছে, বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন আছে।”

চন্দিকা হাথুরুসিংহে আসলেও তার সাথে কথা হয়নি এখনো। তবে সৌজন্য সাক্ষাৎ হতে পারে জানিয়ে পাপন বলেন, “হাথুরুসিংহের সঙ্গে আমার এখনও কথা হয়নি। আমার জানা মতে সে এসেছে। উনাদের সাথে বসবে। আমাদের সিইও ও পরিচালকরা তার সঙ্গে বসবে। যে আনুষ্ঠানিকতা আছে, সেগুলো করবে। আমার সাথে দেখা হয়নি। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে হয়ত আমার সাথে একবার দেখা হবে।”

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

শীর্ষে থাকা কুমিল্লাকে অপেক্ষায় রেখে ফাইনালে ঢাকা

Read Next

গেইলের ছক্কার ৮০০

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share