৯০তেই শেষ টাইগারদের ইনিংস

Capture
Vinkmag ad

পচেফস্ট্রুম টেস্টের পঞ্চম দিনে ম্যাচ বাঁচানোর লড়াইয়ে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। শেষ দিনের কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে শুরুতেই অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে হারায় সফরকারীরা। এরপর মাহমুদউল্লাহ, লিটন, সাব্বিররা দ্রুত সময়ের মধ্যে ফিরে গেলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। ৪২৪ রানের বিশাল লক্ষ্যে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৯০ রানেই সবকটি উইকেট হারায় অতিথিরা। শেষ দিনের প্রথম সেশনে ১৭.১ ওভারে ৪১ রানেই নেই শেষ ৭ উইকেট। স্বাগতিকদের ৩৩৩ রানের বিশাল জয়।

bd 1

মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, ও লিটন দাস তিনজনকেই সাজঘরে ফেরান প্রোটিয়া পেসার রাবাদা। প্রথমে শর্ট অব লেংথ থেকে বাড়তি লাফিয়ে উঠা বলে স্লিপে আউট সাইড এজ হয়ে বিদায় নেন মুশফিক। স্লিপে মাথার ওপর থেকে দারুণ রিফ্লেক্স ক্যাচ হাশিম আমলার। ৫৫ বলে ১৬ রান করেন মুশফিক।

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ইনসাইড এজের শিকার হন মাহমুদউল্লাহ। রাবাদার করা অফ স্টাম্পের বাইরের বলটি ব্যাটের কানা ছুয়ে মিডল স্টাম্পে আঘাত করে। ১৮ বলে ৯ রানে আউট মাহমুদউল্লাহ। দলীয় ৬২ রানে টাইগারদের পাঁচ উইকেট নেই।

আর উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লিটন দাস ফাঁদে পড়েন লেগ বিফোরের। রাবাদার ইনসুইং বলে কোনরকম শট খেলেননি লিটন। রিভিউ নিয়েছিলেন কিন্তু সেটা রাবাদার পক্ষে গেলে বিদায় নেন তিনি। চলমান টেস্টের শেষ দিনের প্রথম চার ওভারেই বল হাতে তিন উইকেট নিয়ে ত্রাস ছড়িয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার কাগিসো রাবাদা।

কিছুক্ষণ পর সাব্বির রহমানও ফেরেন। কেশভ মহারাজের বলে সুইপ শট খেলতে গিয়ে এল্বিডব্লিউর শিকার হন তিনি। ৮ বলে ৪ রানে বিদায় সাব্বিরের। এরপর তাসকিনকেও ফেরান মহারাজ। রিভিউ নিয়ে বাঁচতে পারলেন না এই লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান। ৭১ রানেই ৮ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এমনিতেই একের পর এক উইকেট যাচ্ছে। এরমাঝে একটা রান আউটও দেখল বাংলাদেশ। অযথা দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে ২ রানেই আউট শফিউল। ৯ উইকেটে ৭৫ রান বাংলাদেশের। একপ্রান্তে মিরাজ অপরাজিত থাকলেও দলীয় ৯০ রানে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে মুস্তাফিজকে ফেরান মহারাজ।

বাংলাদেশ চতুর্থ দিন শেষ করেছিল ৩ উইকেটে ৪৯ রান নিয়ে। ওপেনিংয়ে নেমে মর্নে মর্কেলের বলে বোল্ড হয়ে বিদায় ঘটে তামিমের। একই ওভারের শেষ বলে বিদায় নেন মুমিনুল হক। বোর্ডে কোন রান হওয়ার আগেই সাজঘরে দুই ব্যাটসম্যান। তামিম-মুমিনুলের বিদায়ের পর হাল ধরেছিলেন মুশফিক আর ইমরুল। ইমরুল ডি ককের হাতে ধরা পড়ে আউট হওয়ার আগে ৪২ বলে করেছিলেন ৩২ রান।

প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শতরানের নিচে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে আগের সর্বনিন্ম ছিল ২০০২ সালে ১০২ রান।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

খাঁদের কিনারায় বাংলাদেশ, জয়ের পথে প্রোটিয়ারা

Read Next

লাঞ্চের আগেই দ. আফ্রিকার জয়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share