আইসিসিতে শের-ই-বাংলার আউটফিল্ড ‘বাজে’

featured photo1 1 50
Vinkmag ad

সম্প্রতি বর্ষা মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার সাথে দুই টেস্টের সিরিজ সমতায় শেষ করে বাংলাদেশ। মিরপুর টেস্ট শুরুর আগে শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের মাঠ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল দুই অধিনায়কসহ ম্যাচ রেফারির কাছে। এবার ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) মিরপুরের আউটফিল্ডকে ‘বাজে’ বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

sher

২০১৬ সালের বিপিএলের পর থেকে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের প্রথম টেস্ট হওয়ার আগ পর্যন্ত কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ হয়নি শের-ই-বাংলায়। পানি নিষ্কাশনসহ মাঠের আউটফিল্ডের পুরনো মাটি তুলে নতুন মাটি বসানো হয়। কিন্তু অজিদের সাথে প্রথম টেস্টের আগে মাঠের সবুজ চেহারা পুনরায় আনা সম্ভব হয়নি, মাঠ হয়ে উঠে বাদামী।

আইসিসি এক ঘোষণা দিয়ে জানিয়েছে তাদের বিবৃতিতে, ‘২৭ থেকে ৩০ আগস্ট বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টেস্টের ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো শের-ই-বাংলার আউটফিল্ডকে ‘বাজে’ হিসেবে মূল্যায়ন করেছেন।’

১৪ দিনের মধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) এর কারণ ব্যাখ্যা করতে নিশ্চিত করা হয়েছে। এরপর বিসিবির দেওয়া ব্যাখ্যা খতিয়ে দেখবেন আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ অ্যালারডাইস ও ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাদুগালে।

এদিকে, এক সাক্ষাৎকারে বিসিবি’র সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘তাদের প্রধান উদ্বেগ ছিল ঘাস নিয়ে এবং আমরা বুঝেছি ক্যান আইসিসি আউটফিল্ডকে বাজে হিসেবে উল্লেখ করেছে। এ বছর আবহাওয়া গত দশ বছর থেকে বেশি খারাপ ছিল। তবে আমাদের গ্রাউন্ডস্টাফরা তাদের সেরাটা দিয়েছে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বিপিএলের পঞ্চম আসরে ২০৮ বিদেশি

Read Next

রামানায়েকের বিশ্লেষণ, প্রোটিয়াদের ভোগাবে টাইগার পেসাররা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share