‘১৪০ কিমি’ গতি তুলে পাকিস্তান জয়ের অপেক্ষায় হাসান মাহমুদ

বয়স মাত্র ২০ পেরোলো, গতি আর লাইন লেংথে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ আলোচনায় তরুণ পেসার হাসান মাহমুদ। মূলত গতির জোরেই লক্ষীপুরের এই তরুণ পেসারের দিকে বাড়তি নজর দিয়েছিল নির্বাচকরা। ঘন্টায় ১৪০ এর বেশি গতিতে নিয়মিত বল করতে পারেন, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট বিবেচনায় যা বেশ দুর্দান্তই বলতে হয়। এমন প্রতিভা এখানে যে কালে ভদ্রে মেলে! ইমার্জিং দলের হয়ে বেশ ভালো করার পর সদ্য সমাপ্ত বঙ্গবন্ধু বিপিএলেও গতিতে ছিলেন স্থানীয়দের মধ্যে সেরা।

পরিসংখ্যান হয়তো খুব একটা কথা বলবেনা তার হয়ে কারণ উইকেট ও ইকোনোমি বিবেচনায় তার চাইতেও ভালো করেছেন অনেকেই। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মেহেদী হাসান রানা ১৮ উইকেট ও খুলনা টাইগার্সের শহীদুল ইসলাম নেন ১৯ উইকেট। তবে গতির জোরে নির্বাচকদের রাডারে ভালোভাবে ধরা পড়েন ঢাকা প্লাটুন পেসার হাসান মাহমুদ। ১৩ ম্যাচে ১০ উইকেট নেওয়া এই পেসার সুযোগও পেয়ে যান পাকিস্তান সফরের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে। জাতীয় দলে প্রথমবার ডাক পাওয়া এই তরুণের অনুভূতি জানতে মুঠোফোনে কথা বলা হয় ‘ক্রিকেট৯৭’ এর পক্ষ থেকে। পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল সাক্ষাৎকারটি-

ক্রিকেট৯৭- প্রথমবারের মত জাতীয় দলে ডাক পেলেন। রোমাঞ্চটা কেমন কাজ করছে?

হাসান মাহমুদ- এখনতো খুশি। অনেক ভালো লাগছে, বেশ এক্সাইটেড।

ক্রিকেট৯৭- এমন খুশির খবরট প্রথম কার কাছ থেকে পান?

হাসান মাহমুদ- প্রথম খবর পাই বিসিবি থেকে আমাদের যে ম্যানেজার হবে (সাব্বির খান) উনি। উনি ফোন দিয়েছেন, বলল তুমি ১৫ জনের স্কোয়াডে আছো। কালকে ১২ টার সময় একাডেমিতে থাকবা।

ক্রিকেট৯৭- আনন্দের সংবাদটা যখন পান কোথায় ছিলেন? পরিবারের সদস্যদের অনুভূতি কেমন?

হাসান মাহমুদ- বাসায় ছিলাম, সবাই একটা হাসি দিলো আলহামদুলিল্লাহ বলে। আমার বাবা-মা সবাই খুশি, আত্মীয়স্বজন যারা আছে ভাই-বোন সবাই অনেক খুশি।

ক্রিকেট৯৭- দলে রুবেল, আল আমিন, শফিউল, মুস্তাফিজদের সাথে আপনিই একমাত্র নতুন পেসার। তাদের ভীড়ে হয়তো একাদশে জায়গা পাওয়াটা বেশ কঠিনই হবে। তবুও টিম কম্বিনেশনের কারণে যদি সুযোগ পেয়েও যান পরিকল্পনা কী থাকবে?

হাসান মাহমুদ- প্ল্যান থাকবে নরমাল জিনিস। আমাকে যদি নেয় তারপর আমি আমার লাইন লেংথেই বল করবো। ভালো বল করার চেষ্টা করবো। যেহেতু উনারা (রুবেল, মুস্তাফিজ, আল আমিন,শফিউল) আছেন। আমার থেকে অবশ্যই বেশি অভিজ্ঞ এবং ভালো বলেই দলে অনেকদিন ধরে আছেন। সুতরাং যদি আমাকে নেয় আমি সেভাবেই চেষ্টা করবো।

ক্রিকেট৯৭- প্রধান নির্বাচক স্পষ্ট জানিয়েছেন আপনার গতিই দলে জায়গা দিতে বেশ বড় ভূমিকা রেখেছে। যেখানে মেহেদী হাসান রানা ও শহীদুলরা আপনার থেকেও বেশি উইকেট পেয়েছে। গতি নিয়ে আপনার ভাবনা কি?

হাসান মাহমুদ- হ্যা অবশ্যই আমার যেহেতু গতি আছে সেহেতু ওই জিনিসটাই মেইনটেইন করার চেষ্টা করবো। যেহেতু বাংলাদেশের মধ্যে আমিই একটু জোরে বল করি (হাসি)। ওই হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব যে এই গড়টা ঠিক রাখা, ১৪০ এর আশেপাশে।

ক্রিকেট৯৭- বাবর আজম টি-টোয়েন্টির এক নম্বর ব্যাটসম্যান। তার বিপক্ষে বল করার সুযোগ পেলে কতটা উপভোগ করবেন?

হাসান মাহমুদ- উপভোগ অবশ্যই করবো। সেরা ব্যাটসম্যান বলতে যেকোন ব্যাটসম্যানেরই কিন্তু একটা দুর্বল জায়গা থাকে। সুতরাং ওই হিসেবেই বল করবো আরকি।

ক্রিকেট৯৭- একজন পেসার হিসেবে আদর্শ মানেন এমন কারও নাম যদি বলতেন?

হাসান মাহমুদ– আদর্শ বলতে আমি বিশ্বের যত পেসার আছে যারা ১৪০ এর বেশি গতিতে বল করতে পারে তাদের অনুসরণ করি, বোলিং ভিডিও দেখি। নির্দিষ্ট করে বললে প্যাট কামিন্স, মার্ক উড আছে, লকি ফার্গুসন আছে নিউজিল্যান্ডের।

ক্রিকেট৯৭- নিজেকে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের জন্য ফিট মনে করছেন?

হাসান মাহমুদ- সব মিলিয়ে টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য যে ধারণা থাকা দরকার সেটা মোটামুটি হয়েছে বিপিএল খেলার পর। তো এখন সবার সাথে যোগাযোগ করার পর মাশরাফি ভাই বলেন তামিম ভাই বলেন তাদের কাছ থেকে যে নির্দেশনাগুলো পাই সেটাই মেনে চলার চেষ্টা করি।

ক্রিকেট৯৭- বিপিএলে দেশি বিদেশি অনেক ভালো মানের পেসার, কোচের সাথে কাজ করেছেন। তাদের কাছ থেকে কিছু কি আদায় করতে পেরেছেন?

হাসান মাহমুদ- উনারা যেটা বলে যে শুধু ভালো চ্যানেলে বল করতে হবে। জায়গায় বল করতে, যে ব্যাটসম্যানই আসুকনা কেন ভালো জায়গায় বল করার চেষ্টা করতে। আর যদি বাউন্ডারি খাই নার্ভাস হতে নিষেধ করছে, যে সাহস বাড়াতে হবে সামনে অনেক খেলা খেলতে হবে তোমাকে। এই সবই বলছিল আরকি।

ক্রিকেট৯৭– নিজের শক্তির জায়গা কোনটি মনে করেন? আর কোন জিনিসটি নিয়ে ভবিষ্যতে কাজ করতে চান?

হাসান মাহমুদ- আমি ম্যাচে যত বেশি গুড লেংথে বল করতে পারি সেটা চেষ্টা করি। তারপর ইয়র্কারটা আমার বেশি ইচ্ছের জায়গা। এ জায়গাটায় যদি অ্যাকুরেসি আরেকটু বাড়ানো যায় টি-টোয়েন্টিতে সার্ভাইব করা অনেক সহজ হবে আমার জন্য। ভ্যারিয়েশন, অফ কাটার, ব্যাক হ্যান্ডেড স্লোয়ার এসব ট্রাই করছি সাফল্য পেতে।

ক্রিকেট৯৭- ব্যাক হ্যান্ডেড স্লোয়ার নিয়ে আগেও একবার বলেছেন। বিপিএলে ভালো চেষ্টাও করেছেন, বিপিএল শেষে কি মনে হচ্ছে এটা আপনি আরও ভালো করবেন ?

হাসান মাহমুদ- মনে তো হচ্ছে। আর সামনে আরও অনেক ক্যাম্প আছে, সেখানেও সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে যেন এসব ভালো করতে পারি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

টাইগারদের আগুন বোলিং থেকে জিম্বাবুয়েকে বাঁচালো বৃষ্টি

Read Next

ছোট টার্গেটে বাংলাদেশের ঝড়ো শুরু

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
22
Share