যার জন্য সময়ও থমকে যেত

২০০ টেস্টে ১৫৯২১ রান, ৪৬৩ ওয়ানডেতে ১৮৪২৬ রান, ১ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১০ রান। টেস্ট ও ওয়ানডে মিলিয়ে সেঞ্চুরি করেছেন ঠিক ১০০ টি। ব্যাটিংয়ের সম্ভাব্য সব রেকর্ড নিজের করে নেওয়া শচীন টেন্ডুলকার ভারতে যেন ক্রিকেট ঈশ্বর।

১৯৭৩ সালের ২৪ এপ্রিল পৃথিবীর আলো প্রথমবার দেখেন শচীন টেন্ডুলকার। আজ (২৪ এপ্রিল, ২০২০) ৪৭ বছর পূর্ণ করা শচীন টেন্ডুলকারের ঘনিষ্ঠ একজন জানিয়েছেন করোনা ভাইরাসের কারণে এবার জন্মদিন পালন করবেন না। নিজে জন্মদিন পালন না করলেও শচীন ভক্তরা থেমে থাকবেন না নিশ্চিতভাবেই।

২৪ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে অজস্র রান করে শচীন টেন্ডুলকার ভক্ত বানিয়েছেন অনেক কিংবদন্তিকেও। বিভিন্ন সময়ে শচীন স্তুতিতে মেতেছেন রথী-মহারথীরাও।

শচীন টেন্ডুলকার সম্পর্কে বিখ্যাত ১০ উক্তি-

‘পৃথিবীতে দু’ধরণের ব্যাটসম্যান আছে। একধরণের শচীন টেন্ডুলকার, আর একধরণ বাকিরা…’ – অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার।

‘… সিমলা থেকে দিল্লী। ট্রেনে আসছিলাম। হঠাৎ একটা স্টেশনে ট্রেন থামল। কী ব্যাপার, না শুনলাম শচীন ৯৮ রানে ব্যাট করছে। যাত্রীরা, রেলওয়ে অফিশিয়ালরা, ট্রেনের আশেপাশে থাকা সবাই কয়েক মিনিটের মতো অপেক্ষা করছিল। সেঞ্চুরি হতে আবার ট্রেন ছাড়ল। টেন্ডুলকার ভারতে এমনই জিনিয়াস, যার জন্য সময়ও থমকে যেতে পারে…’ – পিটার রোবাক।

‘… শচীন অনেকটা থ্রি ইডিয়টসের রায়ান (মুভিতে র‍্যাঞ্চো)- এর মতো চরিত্র। যে নিজের পাঠ্য নিজেই স্থির করে নিয়ে এক্সিলেন্সের প্রতীক হতে পেরেছে। শচীন আসলে এক্সিলেন্সের জীবন্ত প্রতিনিধি। যে কোনও ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান, যারা এক্সিলেন্স ধাওয়া করছে, তারা ওকে দেখে উদ্বুদ্ধ হতে বাধ্য…’- চেতন ভগত।

Sachin Tendulkar's last walk to the crease bags best photo award

‘রান না পেলে আর ফেরারি-মার্সেডিজ দিয়ে কি লাভ? সেই কোটিপতি হয়ে কি হবে? তবে হ্যা, সবচেয়ে বেশি রান, সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করে অবসর নেবার পর এখন মনে হচ্ছে আমার ভাইকে কোটিপতি বলাই যায়…’ – অজিত টেন্ডুলকার।

‘… শচীন হল জিনিয়াস। আমি একজন মানুষ…’- ব্রায়ান লারা।

‘… ঐ হেলমেটের তলায় কোঁকড়া চুল, মাথা আর কপালের মধ্যে এমন কোনও রাসায়নিক প্রক্রিয়া ঘটত যার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই। যার কোন হদিস কেউ কখনও বার করতে পারেনি। কী সেই রহস্য? যাতে একটা খেলাকে এত বছর ধরে শাসন করা যায়! সমতল থেকে এমন সব টেক অফ করা যায়! ওর সৌভাগ্যবান সতীর্থরাও উত্তর জানে না। যখন শচীন ব্যাট করতে যেত লোকে জীবনের সুইচ বন্ধ রেখে টিভির সুইচটা অন করত…’ – বিবিসি স্পোর্টস।

‘… ওর ব্যাট এর ভারি অথচ সেটা দিয়ে এত স্বচ্ছন্দে মারে, যেন টুথপিক ঘোরাচ্ছে…’- ব্রেট লি।

‘শচীনকে এমন একজন মানুষ হিসেবেও মনে রাখব, যে চৌদ্দ বছর ধরে বাংলা শেখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছে। কিন্তু ভাষাটা কখনও শিখে উঠতে পারেনি (হাসি)…’- সৌরভ গাঙ্গুলি।

‘… আর্কাইভ থেকে একটাও গোলমেলে ঘটনার খোঁজ নেই। একটাও মদ খেয়ে অভব্যতা, কোন বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক, সতীর্থের সঙ্গে ঝগড়া, রিপোর্টারের সঙ্গে কথা কাটাকাটি… কিছু নেই। ম্যাথু প্যারিস যেমন বারাক ওবামা সম্পর্কে এই পাতাতে মাত্র ক’দিন আগে মন্তব্য করছেন সেভাবেই বলতে হয়, আচ্ছা, এ কি মানুষ…’- মাইকেল অ্যাথারটন।

‘… যা যা অপরাধ করার, সব শচীন ক্রিজে থাকার সময় করে নাও। কেউ তোমায় দেখতে আসবে না। কারণ, স্বয়ং ঈশ্বরও তো তখন খেলা দেখতে ব্যস্ত…’- সিডনি ক্রিকেট মাঠের ব্যানার।

উক্তিগুলো পশ্চিমবঙ্গের ক্রীড়া লেখক গৌতম ভট্টাচার্যের ‘সচ অমনিবাস- ২৫ বছরের রূপকথার জীবননাট্য’ বই থেকে সংগ্রহীত।

শিহাব আহসান খান

Read Previous

‘ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা সেঞ্চুরি করলে নিজের জন্য করত’

Read Next

যে ব্যাটসম্যান হরভজনকে কাঁদিয়ে ছাড়তেন

Total
58
Share
error: Content is protected !!