বৃষ্টিতে জয়বঞ্চিত হলো অস্ট্রেলিয়া

ওভালে বৃষ্টির কারণে জয়বঞ্চিত হলো অস্ট্রেলিয়া। প্রবল বৃষ্টিতে বাংলাদেশকে ১৮২ রানে গুঁটিয়ে দিয়েও ২০ ওভার ব্যাটিং করতে না পারায় বাংলাদেশের সাথে পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। নিশ্চিত পরাজয় এড়িয়ে যেতে পারায় বাংলাদেশ ধন্যবাদ দিতেই পারে বৃষ্টিকে। সেমিফাইনালে যাবার আশাটা যে এখনো শেষ হয়ে যায়নি বাংলাদেশের! 

বৃষ্টিস্নাত আবহাওয়ায় মাশরাফি বিন মর্তুজার পক্ষে হেসেছিল টসভাগ্য। আর তাতেই ব্যাটিং বেছে নিতে এক মুহূর্তও ভাবেননি টাইগার দলপতি। তবে দলের প্রথম চারজন বায়টসম্যানের তিনজনেরই স্কোর ছিল ১০ রানের নিচে। সৌম্য সরকার ৩, ইমরুল কায়েস ৬ আর মিডল অর্ডারের স্বস্তি মুশফিকুর রহিমও এদিন ফেরেন মাত্র ৯ রান করেই।

সাকিব আল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে তামিম ইকবাল এরপর শুরু করেন ইনিংস মেরামতের কাজ। দুজনের রসায়নটাও জমছিল বেশ। ৬৯ রানের জুটিতে বাংলাদেশ আবারও ফিরে পায় ভরসা। কিন্তু সাকিব আল হাসান ব্যক্তিগত ২৯ আর দলীয় ১২২ রানে বিদায় নিলে আবারো বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

সাব্বির রহমান আর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও দ্রুতই ফেরেন সাজঘরে। কিন্তু এক তামিম ইকবাল ছিলেন একদমই স্রোতের বিপরীতে। ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলের ম্যাচে বাংলাদেশী এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান একাই করেন ৯৫ রান। নার্ভাস নাইন্টিজের শিকার হয়ে স্টার্কের বলে ফিরে না গেলে হয়তোবা পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে দেখা পেতে পারতেন টানা দ্বিতীয় শতকের।

১১৪ বলে ৩ ছয় আর ৬ চারে তামিম ইকবালের ৯৫ রানের ইনিংসে ভর করেই বাংলাদেশ অল্প রানে গুটিয়ে যাওয়ার লজ্জা থেকে বাঁচে। বাংলাদেশ দলের ইনিংসে নাভিশ্বাস তুলে দেয়া মিচেল স্টার্ক তার দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে এসেই ৯ বলের ব্যবধানে শেষ চার উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশকে অলআউট করে দেন ১৮২ রানেই।

১৮৩ রান স্কোরবোর্ডে তোলার মিশনে ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিলো অস্ট্রেলিয়া। তবে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের দৈর্ঘ্য যখন ১৬ ওভার ঠিক তখন বৃষ্টি সব সমীকরণ পালটে দেয় অজিদের। ম্যাচের ফলাফল আসার জন্যে অস্ট্রেলিয়া আর মাত্র ৪ ওভার ব্যাটিং করার সুযোগ পেলেই হতো। তবে বৃষ্টির আধিপত্যে তেমনটি হয়নি। আর ৪ ওভার ব্যাটিং না করতে পারার আক্ষেপ অজি শিবিরে তাই থাকবে কয়েকটা দিন তা বলে দেয়া যায়।

অস্ট্রেলিয়ার খেলা দুইটি ম্যাচই বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়াতে তাদের পয়েন্ট এখন দুই। আর সমানসংখ্যক ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের পয়েন্ট এক।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশঃ ১৮২/১০ (৪৪.৩ ওভার) তামিম ইকবাল ৯৫, সাকিব আল হাসান ২৯, মেহেদী হাসান মিরাজ ১৪, মুশফিকুর রহিম ৯, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৮, সাব্বির রহমান ৮। মিচেল স্টার্ক ৪/২৯, অ্যাডাম জাম্পা ২/১৩।

অস্ট্রেলিয়াঃ ৮৩/১ (১৬ ওভার) ডেভিড ওয়ার্নার ৪০*, স্টিভেন স্মিথ ২২*, রুবেল হোসেন ২১/১।

ম্যাচ পরিত্যক্ত।

 

শিহাব আহসান খান

Read Previous

দু’সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে ওয়াহাব রিয়াজ

Read Next

নিজেদের ভাগ্যবান মানছেন মাশরাফি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।