পেস পরীক্ষা দিতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

প্রায় পাঁচ মাস পর বাংলাদেশ দল মাঠে নামছে টেস্ট পরীক্ষা দিতে, আর সেটা অ্যান্টিগায় গতিময় উইকেটে। যে স্টেডিয়ামের দু’প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে টেস্টের  ভয়ংকর দুটি নাম বোলারের নাম অ্যান্ডি রবার্টস ও কার্টলি অ্যামব্রোসের নাম ফলক, কারণ তাদের নামেই স্টেডিয়ামের দুটি প্রান্তের নামকরণ করা হয়েছে। তাই কন্ডিশনের পর কাঁপণ ধরানো পেস আক্রমনের মুখে পড়তে যাচ্ছে টিম বাংলাদেশ এটা নির্দ্বিধায় বলা যায়।

 

প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা ভালই জবাব দিলেও বোলারদের আরো ভাল করতে হবে। কারণ নিজেদের কন্ডিশনে জেসন হোল্ডার, কেমার রোচ, মিগুয়েল কামিন্সরা যে ভয় ধরাতেই প্রস্তুতি নিচ্ছে এটা অনুমেয়। কিন্তু তার জন্য কতটুকু প্রস্তুত সাকিব আল হাসানের দল। ওপেনিংয়ে হয়তো বরাবরের মতো তামিম-ইমরুল জুটিকে দেখা যাবে। তারপরেই দেশের সবচেয়ে সফল টেস্ট ব্যাটসম্যান মুমিনুলকে দেখা যাবে। মুশফিক, মাহমুদউল্লার পর অধিনায়ক সাকিবকে দেখা যেতে পারে ব্যাট হাতে। শেষের দিকে লিটনের ব্যাট কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে। এরপর মিরাজের ছোট ইনিংসও হতে পারে দলের আশির্বাদ । তিন পেসার নিয়ে পরিকল্পনা সাজাতে পারে বাংলাদেশ। তাহলে রুবেল হোসেনের সাথে শফিউল ও আবু জায়েদকে দেখা যেতে পারে স্কোয়াডে।

শেষ দিনে খানিকটা বৃষ্টির শঙ্কা থাকলেও থাকলেও অ্যান্টিগায় আবাহাওয়া শুষ্ক থাকার সম্ভাবনা বেশি। এই ভেন্যুতে আগে পাঁচটি টেস্ট হলেও ফলাফল এসেছে দুটি টেস্টের, বাকি তিনটি ড্র হয়েছে। আর স্বাগতিক দল জিতেছে মাত্র একটি টেস্ট।

উইন্ডিজের উইকেট সব সময় পেস বান্ধব হলেও এই ভেন্যুতে প্রথম দিকে রান ভালই আসে। তাই টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সম্ভাবনা বেশি টস জয়ী অধিনায়কের। বাংলাদেশ দলে চার পেসার থাকলেও সুযোগ মিলতে পারে তিন জনের। রুবের অভিজ্ঞ তাই তার দলে থাকা কনফার্ম। কামরুল ইসলাম, আবু জায়েদ আর শফিউলের মধ্য থেকে এগিয়ে শফিউল। আর সাম্প্রতিক ফর্ম হয়তো আবু জায়েদের পক্ষে ভোট দিতে পারে।

স্পিন বোলিংয়ের দায়িত্ব অধিনায়ক সাকিবকেই সামলাতে হবে। পার্টটাইমার হিসেবে মুমিনুলকেও হাত ঘোরাতে হতে পারে।

এই মাঠেই সাকিবের টেস্ট অধিনায়কত্বের শুরু হয়েছিল। ২০০৯ সালে চোট পেয়ে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দলের বাইরর চলে গেলে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক হিসেবে তার এই দায়িত্বের শুরু এখান থেকেই।

খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায়।

সম্ভাব্য একাদশঃ

বাংলাদেশঃ তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, মেহেদি হাসান, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, আবু জায়েদ রাহী।

উইন্ডিজঃ ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, ডেভন স্মিথ, কাইরন পাওয়েল, শাই হোপ, রসটন চেজ, শেন ডওরিচ, জ্যাসন হোল্ডার, দেবেন্দ্র বিশু, কেমার রোচ, মিগুয়েল কামিন্স, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘অতোটা উত্তেজনা অনুভব করছি না’

Read Next

২০০৯ নিয়ে আসতে পারবেন সাকিবরা?

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।