নতুন অধিনায়কে ভাগ্য বদলায়নি কোলকাতার

নতুন অধিনায়কে ভাগ্য বদলায়নি কোলকাতার

দীনেশ কার্তিকের পরিবর্তে কোলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়কত্ব পাওয়া এউইন মরগান শুরুটা করেছেন হার দিয়ে। আবুধাবিতে আইপিএলের ৩২তম ম্যাচে ব্যাটিং ব্যর্থতায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জন্য খুব বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে পারেনি কোলকাতা নাইট রাইডার্স। ১৪৮ রানের জবাবে কুইন্টন ডি ককের ফিফটিতে ভর করে ৮ উইকেটের জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

প্রথম ৭ ম্যাচে ৪ জয় কোলকাতা নাইট রাইডার্সের, পয়েন্ট টেবিলে চার নম্বর অবস্থানে থাকলেও দলীয় ব্যর্থতার একটা বড় সমালোচনা সইতে হয়েছে অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককে। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক এউইন মরগানের কাঁধে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে ম্যাচ থেকেই কিছুটা নির্ভার হতে চেয়েছেন কার্তিক। তবে মরগানও শুরুটা করলেন বেশ বাজেভাবে।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিপর্যয়ে কোলকাতার ব্যাটিং লাইন আপ। ৬১ রানেই ৫ উইকেট হারানো কোলকাতাকে পথ দেখিয়েছেন প্যাট কামিন্স ও কাপ্তান এউইন মরগান। দুজনের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে যোগ হয় ৮৭ রান। ২৯ বলে ৩৯ রান করা মরগান যোগ্য সঙ্গ দেন কামিন্সকে। আর তাতেই ট্রেন্ট বোল্ট, জাসপ্রীত বুমরাহদের সামলে টি-টোয়েন্টিতে প্রথম ফিফটি তুলে নেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

তার ৩৬ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় খেলা ৫৩ রানের ইনিংসে সম্মানজনক পুঁজি পায় কোলকাতা নাইট রাইডার্স। ৫ উইকেটে তোলা কোলকাতার ১৪৮ রান আগে ব্যাট করে চলতি আইপিএলে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। যদিও বুমরাহ’র করা ১৮ তম ওভারে ডি কক ক্যাচটি ঠিকঠাক গ্লাভস বন্দী করতে পারলে কামিন্সকে ফিরতে হত ৩৬ রানেই।

সহজ লক্ষ্য পেয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও কুইন্টন ডি কক মাত্র ৫.৪ ওভারেই তুলে ফেলেন ৫০ রান। ১০.৩ ওভার স্থায়ী জুটিতে দুজনে যোগ করেন ৯৪ রান। শিভাম মাভির বলে রোহিত শর্মা ৩৫ রান করে ফিরে গেলে ভাঙ্গে জুটি। মাঝে সুরিয়া কুমার যাদবও (১০) দ্রুত ফিরে গেলেও অন্য প্রান্তে সাবলীল ছিলেন ডি কক।

হার্দিক পান্ডিয়াকে নিয়ে ৮ উইকেট ও ১৯ বল হাতে রেখেই দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। ৪৪ বলে ৯ চার ৩ ছক্কায় খেলা ডি ককের ৭৮ রানের ইনিংসটি তার আইপিএল ক্যারিয়ারের তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। তাকে সঙ্গ দেওয়া পান্ডিয়া অপরাজিত ছিলেন ১১ বলে ২১ রান করে। এই জয়ে দিল্লি ক্যাপিটালসকে দুইয়ে নামিয়ে শীর্ষে উঠলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। যদিও সমান ৮ ম্যাচে দুই দলের সমান ৬ টি করে জয়, তবে রান রেটে এগিয়ে থাকায় মুম্বাই আছে টেবিলের চূড়ায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কোলকাতা নাইট রাইডার্স ১৪৮/৫ (২০ ওভার), ত্রিপাঠি ৭, গিল ২১, রানা ৫, কার্তিক ৪, মরগান ৩৯*, রাসেল ১২, কামিন্স ৫৩*; বোল্ট ৪-০-৩২-১, কোল্টার নাইল ৪-০-৫১-১, বুমরাহ ৪-০২২-১, ক্রুনাল ৪-০-২৩-০, রাহুল ৪-০১৮-০

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ১৪৯/২ (১৬.৫ ওভার), রোহিত ৩৫, ডি কক ৭৮*, যাদব ১০, পান্ডিয়া ২১*; গ্রিন ২.৫-০-২৪-০, কামিন্স ৩-০-২৮-০, কৃষ্ণ ২-০-৩০-০, রাসেল ২-০-১৫-০, ভরুন ৪-০-২৩-১, মাভি ৩-০-২৪-১

ফলঃ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ৮ উইকেট ও ১৯ বল হাতে রেখে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ কুইন্টন ডি কক (মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইপিএল ছেড়ে দেশে ফিরলেন কেভিন পিটারসেন

Read Next

নিউজিল্যান্ড সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড

Total
7
Share
error: Content is protected !!