তামিমের টোটকাতে ঢাকা টেস্টে উজ্জীবিত মিরাজ

উইন্ডিজের সাথে সদ্য সমাপ্ত দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দুটোতেই থাকার কথা ছিলো তামিম ইকবাল আর মেহেদি হাসান মিরাজের। তবে হাতের চোট সেরে উঠলেও এই সিরিজের ঠিক আগেই আবার নতুন করে ইনজুরিতে পড়ে ছিটকে গেছিলেন তামিম, তবে একদাশে ছিলেন মিরাজ। শুধু ছিলেনই-না ঢাকা টেস্টেতো প্রতিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছেন এই অফস্পিনার। এমন সাফল্যর কারণ জানাতে যেয়ে মিরাজ টানলেন তামিমের কথা।

ক্যারিবিয়ানদের সাথে দ্বিতীয় ম্যাচের দুই ইনিংস মিলিয়ে সর্বমোট ১২ উইকেট তুলে নিয়েছেন মিরাজ। বলতে গেলে প্রায় একা হাতেই সফরকারীদের ব্যাটিং লাইন আপ ধ্বসিয়ে দিয়েছেন তিনি। এমন সাফল্যর স্বীকৃতিটাও মিলেছে হাতেনাতে, খেলা শেষে ম্যাচসেরার পুরস্কারটা উঠেছে তারই হাতে। অথচ চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্টে কিছুটা মলিন ছিলো মিরাজের পারফরম্যান্স। দুই ইনিংস মিলে সর্বসাকুল্য পেয়েছিলেন ৩ উইকেটে।

ম্যাচসেরার পুরস্কার হাতে মিরাজ

তাইতো ধারাবাহিক সাফল্যের ক্ষুধাতে মরিয়া মিরাজ চট্টগ্রাম টেস্টের পর মন খারপ করে ছিলেন কিছুটা। এবার আবার স্বরূপে ফিরলেন ঠিক পরের ম্যাচেই। তাইতো ম্যাচসেরা হয়ে সংবাদমাধ্যমের সাথে কথা বলতে এসে দুর্দান্ত এমন পারফরম্যান্সের রহস্যভেদ করলেন মিরাজ নিজেই। যেখানে তিনি জানালেন সতীর্থ ক্রিকেটার তামিম ইকবালের একটা ফোনকল কতটা পরিবর্তন এনেছে তার মধ্যে।

মিরাজ বলেন, ‘চট্টগ্রাম টেস্টের পর মন একটু খারাপ ছিল। তামিম ভাইয়ের সঙ্গে তখন ফোনে অনেকক্ষণ কথা হয়। উনি আমাকে আত্মবিশ্বাস না হারানোর কথা বলেন।’

 

তরুণ এই অফস্পিনার আরও যোগ করেন, ‘তামিম ভাই বলেছিলেন, “তুই কেমন বোলার এটা আমরা সবাই জানি। এখন পর্যন্ত কোথায় কেমন পারফরম্যান্স করেছিস সবাই জানে। তোর সামর্থ্য আমরা জানি। চট্টগ্রামে খুব ভালো বোলিং করেছিস, এটা ধরে রাখ।” তার কথা আমাকে দারুণভাবে অনুপ্রাণিত করেছিল।”

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

চমক ছাড়াই টাইগারদের ওয়ানডে দল ঘোষণা

Read Next

সাকিব ভোলাতে চেয়েছিলেন, বোঝাতে চেয়েছিলেন

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।