উপমহাদেশের কেউই আসছেননা টাইগারদের কোচ হয়ে

‘গুঞ্জন’ বাংলাদেশ ক্রিকেটের একটি ভয়াবহ রোগে পরিণত হয়েছে। বাতাসে ছড়িয়ে থাকা উড়ো খবরে ভক্ত সমর্থকরা যখন প্রতিক্রিয়া জানানো শুরু করে তখনই কোন বিসিবি কর্মকর্তা এসে জানালেন ব্যাপারটা ওরকম কিছু নয়। সবশেষ গুঞ্জন প্রাক্তন কোচ হাথুরুসিংহের পুনরায় বাংলাদেশের কোচ হিসেবে আসার সম্ভাবনা। আবার সামনে এলেন বিসিবি সভাপতি উড়িয়ে দিলেন গুঞ্জনের খবর, জানালেন হাথুরুতো নয়ই উপমহাদেশের কেউই আসছেননা বাংলাদেশের কোচ হিসেবে।

ছবি: সংগ্রহীত

সফলতার দিক দিয়ে বাংলাদেশের সেরা কোচদের একজনই ধরা হয় লঙ্কান চন্ডিকা হাথুরুসিংহকে, ২০১৪ সালে বাংলাদেশের দায়িত্ব নিয়ে আমূলে বদলে দেন পুরো দলের চেহারাটাই। দলীয় সাফল্যে বাংলাদেশকে পৌঁছে দেন অন্য উচ্চতায়। তবে পেশাদারিত্বের জায়গায় দাঁড়িয়ে দলে হতে চেয়েছেন একক ক্ষমতার অধিকারী। সাফল্য অর্জনে সিনিয়র ক্রিকেটার বিদ্বেষী মানসিকতা তাকে ভিলেন করেছে কোটি ভক্তের কাছে। গতবছর অস্ট্রেলিয়ায় ছুটি কাটাতে গিয়ে আর ফেরেননি, তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন ইংলিশ কোচ স্টিভ রোডস।

চুক্তি হয় ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত। সাফল্য বিবেচনায় খারাপও করছিলেননা, তবে তাকে মূলত ইংলিশ কন্ডিশনে বিশ্বকাপ বলেই আলাদা গুরুত্ব দিয়ে নিয়োগ দেওয়া হয়। আর বিশ্বকাপেই কিনা মুখ থুবড়ে পড়ে টাইগাররা, নড়েচড়ে বসে বিসিবি। চুক্তির মেয়াদ শেষের আগেই বরখাস্ত করে রোডসকে। হাথুরুসিংহের বিদায়ের পর কেনই অমন উদ্ভট চিন্তায় রোডসের নিয়োগ আবার এক টুর্নামেন্টের পারফরম্যান্স বিবেচনায়ই কেনইবা বরখাস্ত?

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দিয়েছেন ব্যাখ্যা, ‘ওই সময় কোচ পাচ্ছিলাম না আমরা। যাদের নিয়ে আমাদের ভাবনা ছিল তাদের সবাই বিশ্বকাপ পর্যন্ত কারও না কারও সাথে চুক্তিবদ্ধ ছিল।’

রোডসের বিদায়ে যাদের আসার গুঞ্জন ছড়িয়েছে সবদিকে তাদের মধ্যে পুরোনো কোচ হাথুরুসিংহে ছাড়াও ছিল অস্ট্রেলিয়ান জেমি সিডন্সের নামও। খেলোয়াড়, বোর্ড কর্তাদের মতামতের ভিত্তিতে হাথুরুসিংহেই ছিলেন এগিয়ে এমন খবরও প্রকাশিত হয়েছে গণমাধ্যমে। তবে বিসিবি সভাপতি বক্তব্যে স্পষ্ট হাথুরুসিংহেতো নয়ই উপমহাদেশের কেউই হচ্ছেননা টাইগারদের নতুন কোচ,’ আমরা উপমহাদেশের কাউকেই কোচ হিসেনে আনছিনা। উপমহাদেশের বাইরের এমন কাউকে আনবো যে এখানকার পরিবেশ, খেলোয়াড় সম্পর্কে ধারণা রাখে। উপমহাদেশে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে।’

টাইগারদের নতুন কোচ খোঁজার কাজ দ্রুতই শুরু হচ্ছে অপেক্ষা বিশ্বকাপ শেষের। বিশ্বকাপের পর অনেক দলের কোচেরই চুক্তি শেষ হবে, বিসিবি নিতে চায় সেই সুযোগ। কদিন আগে ম্যানেজার খালেদ মাহমুদের দেওয়া বক্তব্যের সুরেই কথা বললেন পাপনও, কোচ খোঁজার এটাই উপযুক্ত সময় বলছেন তিনিও,’ আমাদের নতুন কোচ খোঁজার এটাই উপযুক্ত সময় বলে মনে হয় আমার। বিশ্বকাপ শেষেই চুক্তির মেয়াদ শেষ হচ্ছে অনেক কোচের। এখন থেকেই কোচ খোঁজা শুরু করলে আমরা ভালো কোচ পাব বলেই আমাদের বিশ্বাস।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাউন্সার কেড়ে নিল তরুণ ক্রিকেটারের প্রাণ

Read Next

জয় রাঙাতে যেয়ে ড্র করলো বিসিবি একাদশ

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।