আক্ষেপ নেই মিরাজের!

বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে মেহেদী হাসান মিরাজ দ্বিতীয় সাকিব আল হাসান হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। বলা হবেইনা কেন? ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফর্ম করেই যে ওই নামটা কুড়িয়েছিলেন ২০১৬ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেওয়া মিরাজ, ঘরের মাঠের ওই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশও পেয়েছে সাফল্য, খেলেছে সেমিফাইনাল।

দারুণ প্রতিভাবান এই ক্রিকেটারের অলরাউন্ডার নৈপুন্য বারবারই ক্রীড়ামোদীদের তার মধ্যে সাকিবের ছায়া খুঁজতে বাধ্য করতো। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাদা পোশাক দিয়ে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপান। অভিষেকেই দুর্দান্ত পারফরম্যান্স, ২ ম্যাচে ১৯ উইকেট, ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের একাই নাকানিচুবানি খাওয়ান।

জাতীয় দলে আসার পর কোনফরম্যাটেই ব্যাটসম্যান মিরাজকে যথোপযুক্তভাবে পাওয়া যাচ্ছেনা, ৮-৯ নম্বরে নামা একজন ব্যাটসম্যানকে আসলে কতটুকুই খুঁজে পাওয়া সম্ভব? জাতীয়দলের আগে নিয়মিতই ব্যাট করতেন ৪-৫ নম্বরে, সুযোগ থাকতো ব্যাটিং প্রতিভা প্রদর্শনের। জাতীয় দলে মূলত বোলিংয়ের পাশাপাশি শেষের দিকে টুকটাক রানের চাকা ঘুরানোই মিরাজের দায়িত্ব। তবে এতে হতাশা বা আফসোস নেই মিরাজের, মিরাজ মানছেন দলের প্রয়োজনেই ব্যাটিং অর্ডারে তাকে নীচের দিকে নামতে হচ্ছে, যেখানেই নামেন দলে অবদান রাখাতেই তার তৃপ্তি,

” আক্ষেপ নেই, আমার চাইতেই দীর্ঘদিন ধরে খেলা ভালো ব্যাটসম্যান বাংলাদেশ দলে আছে। আমরা যখন সিনিয়র হবো, তখন আমাদেরও দায়িত্ব বাড়বে। এখন যে জায়গায় খেলছি ঠিক আছে। টিম কম্বিনেশনের জন্যই নীচের দিকে খেলা, তবে যেখানেই খেলি ১০ রান করে হলেও দলের জন্য অবদান রাখতে পারাই বড় ব্যাপার।”

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

প্রয়োজনে অবসর ভেঙ্গে ফিরতে প্রস্তুত ক্লার্ক!

Read Next

নিষিদ্ধ হলেন স্মিথ, ব্যানক্রফটকে জরিমানা!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।