অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম লড়াইয়ে আত্মবিশ্বাসী মুশফিক

ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন প্রতিষ্ঠিত শক্তি। টেস্ট ক্রিকেটেও উন্নতির রথে আছে বাংলাদেশ। শক্তিমত্তার সীমাবদ্ধতার চ্যালেঞ্জ জয় করেই টেস্টে গত ছয় বছর ধরে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মুশফিকুর রহিম। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসেই ক্যারিয়ারে প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট খেলার সুযোগ পাচ্ছেন তিনি।

যার রোমাঞ্চটাও অনুভব করছেন তিনি। হোম কন্ডিশনের সঠিক ব্যবহার ও নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলে ইংল্যান্ডের মতোই ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকেও হারানো অসম্ভব কিছু নয় বলেই মনে করেন টেস্ট অধিনায়ক।

MUshfiq test practise এর চিত্র ফলাফল
ছবিঃ সংগৃহীত

ইংলিশদের বিপক্ষে ২০০৫ সালে সাদা পোশাকে লর্ডসে অভিষেক। ১২ বছরের ক্যারিয়ারে ক্রিকেট থেকে যা পেয়েছেন তার প্রতিদান দেওয়ার সময় এসেছে বলেছেন টেস্টে দেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান। তার আগেই সাদা পোশাকে ক্রিকেট জনকদের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি করে হয়েছিলেন আলোচিত। সেই থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম ভরসা মুশফিকুর রহিম।

১২ বছরে গা থেকে তরুণ্যের গন্ধটা ঝড়ে গেছে। বদলে যোগ হয়েছে অভিজ্ঞতা। বেড়েছে দায়িত্ব। মুশফিকুর রহিম- সাদা পোশাকের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সেনাপতি। ১২ বছরে অন্যরা যেখানে টেস্ট খেলার সেঞ্চুরি করেছেন, সেখানে মুশফিকের ম্যাচ মাত্র ৫৪টি। বেশি টেস্ট খেলতে না পারার আক্ষেপ তার থাকাটাই স্বাভাবিক।

আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলেই রোমাঞ্চটা উপভোগ করতে চান মুশফিক। ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে চাই অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে খেলা হোক। শুধু আমি না আমাদের দলে অনেকেই আছে অনেক বছর খেলেও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে প্রথম টেস্ট খেলবে। আমরা ওয়ানডে খেলেছি কয়েকটা। খুব কম। টেস্ট খেলিনি। এটা অনেক বড় রোমাঞ্চ হবে। সবসময় শুনেছি অস্ট্রেলিয়া অনেক আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলে। আমাদের কন্ডিশনে আমরাও চেষ্টা করব আমাদের যে আক্রমণাত্মক মানসিকতা সেটা বজায় রাখতে।’

নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে চারটি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। সবকটিতেই জিতেছে অজিরা। সর্বশেষ টেস্ট ২০০৬ সালে বাংলাদেশের মাটিতে। বর্তমান বাংলাদেশ টেস্ট দলের কারোই অভিজ্ঞতা নেই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ বছর পার করে দেওয়া মুশফিক, সাকিব, তামিম, মাহমুদউল্লাহরাও এবারই প্রথম টেস্ট খেলবেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

সব পক্ষে থাকলে ১৮ আগস্ট ২২ দিনের বাংলাদেশ সফরে আসবে স্মিথরা। ২২-২৩ আগস্ট একটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের পর ২৭-৩১ আগস্ট মিরপুরের হোম অফ ক্রিকেটে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া। এরপর ৪-৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহম্মেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে মুশফিক-সাকিবদের বিপক্ষে মাঠে নামবে টিম অস্ট্রেলিয়া।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সুস্থ রুবেল, শিখছেন ওয়ালশ থেকে

Read Next

পিএসএলের নতুন দলের মেন্টর হচ্ছেন ওয়াসিম আকরাম

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।