৯৭ ডেস্ক

দুই যুগ পর কমনওয়েলথে ফিরছে ক্রিকেট

সারাবিশ্বের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য দারুণ সংবাদ, দুই যুগ পর কমনওয়েলথ গেমসে ফিরছে ক্রিকেট। সবশেষ আসরে পুরুষদের একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ অন্তর্ভুক্ত থাকলেও আসন্ন আসরে ক্রিকেট প্রতিনিধিত্ব করবে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি।

আট দলের অংশগ্রহণে গেমসে ক্রিকেটের ম্যাচগুলো হবে ঠিক আট দিনে। সদ্য সমাপ্ত ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল ভেন্যু বার্মিংহামে অনুষ্ঠিত হবে ক্রিকেট ম্যাচগুলো, ক্রিকেটসহ অন্যান্য ইভেন্টের খেলাগুলোও ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম শহরেই অনুষ্ঠিত হবে।

২০২২ সালে এজবাস্টনে মেয়েদের ওই টি-টোয়েন্টি ম্যসচগুলো অনুষ্ঠিত হবে ২৭ জুলাই থেকে ৭ আগস্ট সময়কালে চলবে আট নারী ক্রিকেট দলের সোনা জয়ের লড়াই। আইসিসির নবনিযুক্ত প্রধান নির্বাহী মানু শাওনে এ প্রসঙ্গে বলেন,” এটা নারী ক্রিকেট ও সারাবিশ্বের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য ঐতিহাসিক মুহুর্ত যারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ক্রিকেট সমর্থন করে আসছে।”

১৯৯৮ সালে কুয়ালালামপুরে সবশেষ কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত ছিল। সেবার ৫০ ওভার ম্যাচের টুর্নামেন্টে সোনা জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। কিংবদন্তি ক্রিকেটার জ্যাক ক্যালিস, শ্চীন টেন্টেন্ডুলকার, রিকি পন্টিংও খেলেছেন সেবারের কমনওয়েলথ। দুই যুগ পর কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেট ফেরাতে পেরে আনন্দিন কমনওয়েলথ গেম ফেডারেশনের(সিজিএফ) সভাপতি ড্যাম লউইস মার্টিন বলেন,” এটা ঐতিহাসিক দিন, আমরা বেশ আনন্দিত ক্রিকেটকে আবারও কমনওয়েলথে স্বাগত জানাতে পেরে।”

কমনওয়েলথের মত আসরে ক্রিকেট আয়োজনের অংশীদার হতে পেরে ইংলিশ বোর্ডও বেশ আনন্দিত। এক বিবৃতিতে ইসিবি বলছে নারী ক্রিকেটকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে কমনওয়েলথের এই আয়োজন অনন্য ভূমিকা রাখবে। ক্রিকেটের বিশ্বায়নে নারীদের এই অংশগ্রহণ কাজে দিবে বলেও বিশ্বাস আইসিসি প্রধান নির্বাহীর, “আমরা বিশ্বাস করি কমনওয়েলথ গেমস হবে দুর্দান্ত মঞ্চ দারুণ উত্তেজনাপূর্ন নারী টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে প্রদর্শনের। এবং সাহায্য করবে ক্রিকেটের বিশ্বায়নে।”

মন্তব্য

  • Developed By :